আপনার অনিয়মিত ঘুম কি আপনাকে অসুস্থ করে তুলছে?

অনিয়মিত ঘুম ও সময় । গ্রাফিক্স – উত্তরাপথ

উত্তরাপথঃঅনিয়মিত ঘুম এর সময়সূচী কি আপনাকে অসুস্থ করে তুলছে? আমরা সকলেই জানি যে একটি ভাল রাতের ঘুম আমাদের সামগ্রিক স্বাস্থ্য এবং সুস্থতার জন্য অত্যাবশ্যক।সম্প্রতি দ্য ইউরোপিয়ান জার্নাল অফ নিউট্রিশন-এ প্রকাশিত গবেষণায় বিজ্ঞানীরা অনিয়মিত ঘুম -এর ধরণ এবং ক্ষতিকারক অন্ত্রের ব্যাকটেরিয়ার মধ্যে একটি আশ্চর্যজনক সংযোগ উন্মোচিত করেছে।বিজ্ঞানীদের বক্তব্য কাজের দিন এবং ছুটির দিনগুলির মধ্যে ঘুমের ধরণে পরিবর্তন হলে , এটি আমাদের অভ্যন্তরীণ শরীরের কার্যকলাপেও পরিবর্তন ঘটায়।যা আমাদের শরীরে ওজন বৃদ্ধি, হার্টের সমস্যা এবং ডায়াবেটিসের ঝুঁকি বাড়ায়।

অন্ত্রের মাইক্রোবায়োম বলতে ট্রিলিয়ন ব্যাকটেরিয়াকে বোঝায় যা আমাদের পাচনতন্ত্রে থাকে। এই ব্যাকটেরিয়াগুলি আমাদের সামগ্রিক স্বাস্থ্য বজায় রাখতে, হজমে সহায়তা করতে, ইমিউন সিস্টেমকে সাহায্য করতে  এমনকি আমাদের মানসিক সুস্থতাকেও প্রভাবিত করতে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। একটি সুষম এবং বৈচিত্র্যময় অন্ত্রের মাইক্রোবায়োম সর্বোত্তম স্বাস্থ্যের জন্য নিয়মিত ঘুম অপরিহার্য।

এছাড়াও শিকাগো বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের দ্বারা পরিচালিত একটি গবেষণায় অন্ত্রের মাইক্রোবায়োমে অনিয়মিত ঘুম -এর ধরণগুলির প্রভাব পরীক্ষা করা হয়েছে। গবেষণায় সুস্থ ব্যক্তিদের অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছিল । গবেষণায় অংশগ্রহণকারীদের অন্ত্রের ব্যাকটেরিয়া বিশ্লেষণ করা হয়েছে । গবেষণায় একটি দল যারা বিভিন্ন ঘুমের সময়সূচী অনুসরণ করেছে , আর অন্য দলটি যার মধ্যে অনিয়মিত ঘুমের ধরণের সদস্যরা ছিল।পর্যবেক্ষণে গবেষকরা অনিয়মিত ঘুম এবং অন্ত্রের মাইক্রোবায়োমে ভারসাম্যহীনতার মধ্যে একটি সম্পর্ক আবিষ্কার করেছেন। যেখানে অনিয়মিত ঘুম ক্ষতিকারক ব্যাকটেরিয়া বৃদ্ধি এবং উপকারী ব্যাকটেরিয়া হ্রাসের সাথে যুক্ত।

এই গবেষণার ফলাফলগুলি অনিয়মিত ঘুমের ধরণগুলির সাথে যুক্ত স্বাস্থ্যের উপর তার প্রভাব নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। অন্ত্রের মাইক্রোবায়োমে ভারসাম্যহীনতা স্থূলতা, ডায়াবেটিস, প্রদাহজনক অন্ত্রের রোগ এমনকি মানসিক স্বাস্থ্যের ব্যাধি সহ বিভিন্ন স্বাস্থ্যের অবস্থার সাথে যুক্ত। অতএব, অনিয়মিত ঘুম এই অবস্থার বিকাশ বা বৃদ্ধিতে অবদান রাখে।

আমাদের দেহ একটি প্রাকৃতিক অভ্যন্তরীণ ঘড়িতে কাজ করে যা সার্কাডিয়ান রিদম নামে পরিচিত, যা ঘুম-জাগরণ চক্র সহ বিভিন্ন শারীরবৃত্তীয় প্রক্রিয়াগুলিকে নিয়ন্ত্রণ করে। অনিয়মিত ঘুমের ধরণ দ্বারা এই ছন্দে ব্যাঘাত ঘটানো, যেমন অসময়ে ঘুম এবং ঘুমের সময়সূচীতে ঘন ঘন পরিবর্তন, আমাদের সামগ্রিক স্বাস্থ্যের উপর ক্ষতিকর প্রভাব ফেলতে পারে ।

একটি স্বাস্থ্যকর অন্ত্রের মাইক্রোবায়োম এবং সামগ্রিক সুস্থতার জন্য, একটি সামঞ্জস্যপূর্ণ ঘুমের সময়সূচী স্থাপন এবং বজায় রাখা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। একটি স্বাস্থ্যকর ঘুমের রুটিন অর্জনের জন্য এখানে কয়েকটি টিপস দেওয়া হল-

 বিছানায় ঘুমতে যাওয়ার এবং প্রতিদিন একই সময়ে ঘুম থেকে ওঠার বিষয়ে লক্ষ্য রাখুন, এমনকি সপ্তাহান্তেও। এটি আপনার শরীরের অভ্যন্তরীণ ঘড়ি বা সার্কাডিয়ান রিদম নিয়ন্ত্রিত করতে সাহায্য করে এবং ভাল ঘুমের গুণমানকে উন্নত করে।

 আপনার শোবার ঘর অন্ধকার, শান্ত এবং আরামদায়ক তাপমাত্রায় রয়েছে কিনা তা নিশ্চিত করুন। নীল আলো নির্গত ইলেকট্রনিক ডিভাইসগুলি সরান, কারণ এটি আপনার ঘুমের প্রক্রিয়াতে ব্যাঘাত ঘটাতে পারে।

ঘুমের আগে একটি রুটিন তৈরি করুন যাতে বই পড়া বা ধ্যান অনুশীলনের মতো কার্যকলাপ অন্তর্ভুক্ত থাকে। এই ক্রিয়াকলাপগুলি আপনার শরীরকে সংকেত দিতে সহায়তা করতে পারে যে এটি ঘুমের জন্য প্রস্তুত হওয়ার সময়।

 ঘুমানোর সময় ক্যাফিন, নিকোটিন এবং অ্যালকোহল খাওয়া এড়িয়ে চলুন, কারণ এগুলো ঘুমের ধরণকে ব্যাহত করতে পারে এবং আপনার বিশ্রামের গুণমানকে প্রভাবিত করতে পারে।

এরপরও আপনি যদি ক্রমাগত ঘুমের সমস্যা বা অনিয়মের সম্মুখীন হন, তাহলে একজন  চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া জরুরী ।

একটি সামঞ্জস্যপূর্ণ ঘুমের সময়সূচী বজায় রাখা শুধুমাত্র বিশ্রামের ঘুমের জন্যই গুরুত্বপূর্ণ নয়, এটি একটি স্বাস্থ্যকর অন্ত্রের মাইক্রোবায়োম বজায় রাখতেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। অনিয়মিত ঘুম এর ধরণ অন্ত্রের ক্ষতিকারক ব্যাকটেরিয়াগুলির সাথে যুক্ত। সাম্প্রতিক গবেষণায় আমাদের সামগ্রিক স্বাস্থ্যের জন্য একটি নির্দিষ্ট সময়ে ঘুমের বিষয়টিকে অগ্রাধিকার দেওয়ার গুরুত্ব তুলে ধরা হয়েছে।

খবরটি শেয়ার করুণ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন


প্রাপ্তবয়স্কদের স্মৃতিশক্তি এবং চিন্তাভাবনা হ্রাস সমস্যার সমাধানের ক্ষেত্রে প্রোবায়োটিক

উত্তরাপথঃ সারা বিশ্বের জনসংখ্যার বয়স বৃদ্ধির সাথে স্মৃতিশক্তি এবং চিন্তাভাবনা হ্রাস এবং ডিমেনশিয়ার মতো নিউরোডিজেনারেটিভ রোগের প্রকোপ বাড়ছে৷ তাদের এই  সমস্যাগুলি যে কেবল তাদের একার সমস্যা তা নয় ,এটি ধীরে ধীরে পুরো পারিবারিক সমস্যার আকার নেয়।সম্প্রতি বয়স্ক প্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে মস্তিষ্কের কার্যকারিতাকে পুনরুদ্ধার করার জন্য গবেষকদের মধ্যে কার্যকর কৌশল খোঁজার আগ্রহ বাড়ছে।বর্তমানে বেশীরভাগ গবেষক মস্তিস্কের স্বাস্থ্য উদ্ধারের ক্ষেত্রে প্রোবায়োটিকের সম্ভাব্য ভূমিকা নিয়ে গবেষণা করছেন । এখন খুব স্বাভাবিকভাবেই একটি প্রশ্ন আসে প্রোবায়োটিক কি? কেনই বা গবেষকরা মস্তিস্কের স্বাস্থ্য উদ্ধারের ক্ষেত্রে প্রোবায়োটিকের ভূমিকা নিয়ে গবেষণা করছেন । .....বিস্তারিত পড়ুন

প্রশান্ত মহাসাগর অঞ্চলে একটি নতুন দ্বীপের জন্ম হয়েছে

উত্তরাপথঃ হঠাৎ করেই একটি নতুন দ্বীপের জন্ম হয়েছে।২০২৩ এর ৩০ অক্টোবর  প্রশান্ত মহাসাগর অঞ্চলে একটি মৃত আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাত একটি নতুন দ্বীপের জন্ম দিয়েছে। বিস্ফোরণের পর জাপানের ওগাসাওয়ারা দ্বীপ চেইনের কাছে বিশাল বিশাল পাথরের টুকরো দেখা গেছে। এ বিষয়ে জাপানি গবেষক বলেন, গত মাসে প্রশান্ত মহাসাগর জলের নিচে আগ্নেয়গিরির বিস্ফোরণের পর টোকিও থেকে প্রায় ১২০০ কিলোমিটার দক্ষিণে ইওটো দ্বীপের কাছে একটি ছোট নতুন দ্বীপের উদ্ভব হয়েছে।টোকিও বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূমিকম্প গবেষণা ইনস্টিটিউটের অধ্যাপক ফুকাশি মায়েনো জানিয়েছেন যে নতুন দ্বীপ, এখনও যার নাম নেই প্রশান্ত মহাসাগরের ইওটো দ্বীপ থেকে ১ কিলোমিটার দূরে ১০০ মিটার ব্যাসের একটি পাথুরে দ্বীপে একটি phreatomagmatic বিস্ফোরণ ঘটেছে। টোকিও থেকে প্রায় ১২০০ কিলোমিটার দক্ষিণে বিস্ফোরণটি দেখা গেছে। ভূপৃষ্ঠের নীচে জলের সাথে লাল গরম ম্যাগমা সংঘর্ষের কারণে প্রতি কয়েক মিনিটে বিস্ফোরণ ঘটে।গত ২১ অক্টোবর, ২০২৩-এ অগ্ন্যুৎপাত শুরু হয়েছিল, যা আগে ইও জিমা নামে পরিচিত ছিল এবং এটি দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের অন্যতম রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের স্থান ছিল। প্রায় ১০ দিন ধরে অগ্ন্যুৎপাত চলার পর, আগ্নেয়গিরির উপাদান অগভীর সমুদ্রতলের উপর জমা হয় এবং প্রায় ১৬০ ফুট পর্যন্ত উচ্চতায় বড় বড় পাথরের আকারে সমুদ্র পৃষ্ঠের উপরে উঠে আসে। .....বিস্তারিত পড়ুন

ওজন হ্রাস (weight loss) মস্তিষ্কের বার্ধক্যের লক্ষণগুলিকে ধীর করে

উত্তরাপথঃ এপ্রিলে প্রকাশিত একটি সমীক্ষা অনুসারে, শাকসবজি, সামুদ্রিক খাবার এবং গোটা শস্য সমৃদ্ধ একটি ভূমধ্যসাগরীয় খাদ্য খাওয়া - এমনকি শুধুমাত্র খাদ্যের নির্দেশিকা অনুসরণ করে   ওজন হ্রাস (weight loss)মস্তিষ্কের বার্ধক্যের লক্ষণগুলিকে ধীর করে বলে মনে করা হয়।সাম্প্রতি ডিউক ইউনিভার্সিটি স্কুল অফ মেডিসিনের বিজ্ঞানীদের দ্বারা পরিচালিত, একটি  গবেষণায় দেখা গেছে যে ওজন হ্রাস মস্তিষ্কে বার্ধক্য প্রক্রিয়াকে ৯ মাস পর্যন্ত ধীর করে (aging process) দিতে পারে। গবেষণায় ৬০ থেকে ৭৮ বছর বয়সের মধ্যে ৪৭ জন অংশগ্রহণকারীকে জড়িত করা হয়েছিল, যাদের প্রত্যেকেরই ওজন বেশি বা স্থূল ছিল এবং তাদের অনিয়ন্ত্রিত খাদ্যগ্রহণ  ছিল। তাদের এলোমেলোভাবে একটি ক্যালোরি-সীমাবদ্ধ গ্রুপ বা একটি নিয়ন্ত্রণ গ্রুপে বরাদ্দ করা হয়েছিল।ক্যালোরি-সীমাবদ্ধতা গোষ্ঠীর সদস্যদের একটি খাদ্য পরিকল্পনা অনুসরণ করে, যার লক্ষ্য ছিল তাদের আনুমানিক প্রয়োজনের চেয়ে ১০ – ১৫% কম ক্যালোরি গ্রহণ করা। অন্যদিকে, নিয়ন্ত্রণ গ্রুপ তাদের খাদ্য পরিবর্তন করেনি .....বিস্তারিত পড়ুন

সহযাত্রী

দীপা - আর তো এগারো বছর আটমাস বারোদিন চাকরি , তাই না ? অংশু - বাপরে বরাবরই তোমার স্মৃতিশক্তি প্রবল , এতোটা মনে আছে ? দীপা- ঘোরো টো টো করে আর কটা বছর , আফটার রিটায়ার্ড মেন্ট কি করবে ? অংশু - ফার্ম হাউস ,গাছপালা পশুপাখি নিয়ে থাকবো। দীপা- বাঃ উন্নতি হয়েছে। যে অংশুবাবু কখনও একটা ফুলের চারা লাগায়নি সে কিনা ফার্ম হাউস করবে … অংশু - সময়ের সাথে সব বদলায় ম্যাডাম , আচ্ছা তোমার কনুইয়ের নীচে সেই পোড়া দাগটা দেখি তো গেছে কিনা … দীপা- তুমি অনেক রোগা হয়ে গেছো , তা ওজন কত শুনি ? অংশু - সত্তর বাহাত্তর হবে বোধহয় মাপিনি, দীপা - তা কেনো মাপবে ? একটা অগোছালো মানুষ। অংশু - যাক বাবা তাও অপদার্থ শব্দ টা বলোনি। দীপা - ভাবোনা ডিভোর্স হয়েছে বলে সে অধিকার নেই। সমাজ বিজ্ঞানের অধ্যাপক হয়েও আসলে সমাজটাই শেখোনি , আর কি শিখেছো বলো, ঐ ছেলে পড়ানো , সেমিনার আর লেখালেখি। তা ধন্যবাদ তোমার রূপালী ঠৌট উপন্যাস এবছর একাডেমি পেলো , দারুণ লেখো তুমি, আগের চেয়ে অনেক ধার। অংশু- বাঃ তুমি পড়েছো ? দীপা- সব পড়েছি , তোমার রিসেন্ট উপন্যাসের নায়িকা মেঘনা টি কে ? মানে কার আড়ালে কাকে লিখেছো ? অংশু - এও কি বাংলা সাহিত্যের অধ্যাপিকাকে বলে দিতে হবে ? দীপা- বারোটা বছর সময়ের শাসনে অনেক বদলালেও আমি বোধহয় সেই বড্ড সেকেলেই রয়ে গেলাম। অংশু - একা একাই কাটিয়ে দিলে বারো বছর। দীপা- একই প্রশ্ন আমিও করতে পারি। অংশু - আচ্ছা দীপা আজ না হয় শেষবারের মতো বলি, আমার মধ্যে কি ছিলো না বলোতো ? কেনো পারোনি এই বাউন্ডুলে ভবঘুরে মানুষটার সাথে চিরকালের ঘর বাঁধতে ? আমি কি ভালোবাসতে জানি না ? .....বিস্তারিত পড়ুন

Scroll to Top