আদানি কাঁটা…..

এক বছরের মার্কেট সামারী: আদানি এন্টারপ্রাইজেস লিমিটেড

২৪ জানুয়ারি হিন্ডেলবার্গ রিপোর্ট প্রকাশের সাথে তার প্রভাব পড়ে  আদানি গোষ্ঠীর  শেয়ারে। শুরু হয় শেয়ারের রেকর্ড পতন। শেয়ারবাজারের এই পতনের প্রভাব পড়ে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের উপর । ৩০ জানুয়ারি  এলআইসি  পক্ষ থেকে একটি বিবৃতিতে বলা হয়  আদানি গ্রুপের স্টক গুলির ক্রয় মূল্য  ছিল ৩০.১২৭ কোটি টাকায়, বর্তমানে তা প্রায় ২৫,০০০ কোটি  টাকায় নেমে এসেছে।অন‍্যদিকে এসবিআই সহ দেশের বেশ কিছু  ব‍্যাঙ্ক আদানি গোষ্ঠীকে প্রায়  ৮১,২০০ কোটি টাকার লোন দিয়েছিল। শুধুমাত্র এসবিআই এর বিনিয়োগ আদানি গোষ্ঠীসমূহতে ২৭,০০০ কোটি টাকা। ২৪ জানুয়ারির আগে আদানি গ্রুপের মার্কেট ক‍্যাপের সর্বোচ্চ স্তর ছিল প্রায় ২৫ লাখ কোটি। সেই স্তর থেকে  আদানি শেয়ারের মূল্য মাত্র এক মাসে ৭১ শতাংশের বেশি কমেছে । বাজার মূল্যর দিক থেকে  ১৭.৮ লক্ষ কোটির  বেশি।

ভারতীয় রিজার্ভ ব‍্যাঙ্কের ‘বীমা এবং ক্রেডিট গ‍্যারান্টি কর্পোরেশন ‘ ব‍্যাঙ্কে জমা করা টাকার পরিমানের উপর সাধারণ মানুষের জন্য বীমা সুরক্ষার গ‍্যারান্টি দেয়। এমনকি যদি একটি ব‍্যাঙ্ক লোকসানে যায় বা ব‍্যর্থ হয়,তবে ৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত মানুষের অমানত সম্পূর্ণ  নিরাপদে থাকে। এসবিআই ভারতীয় রিজার্ভ ব‍্যাঙ্কের অধীনস্থ সবচেয়ে বড় ব‍্যাঙ্ক অন্যদিকে এলআইসি ভারতের সবচেয়ে বড় বীমা প্রতিষ্ঠান তাই এই দুটি প্রতিষ্টানের গ্রাহকদের তাদের সঞ্জিত টাকা নিয়ে চিন্তার কোনো কারণ ছিলনা ২৪ জানুয়ারির আগে পযর্ন্ত। কিন্তু ২৪ জানুয়ারির পর আদানিগোষ্ঠীকে বাঁচাতে বা নিজেদের আর্থিক ক্ষতি কমাতে আর কোনও লোন দিয়েছে কিনা,কত টাকা লোন দিয়েছে  বা কত টাকা বিনিয়োগ করেছে তার কোনও  তথ্য নেই ।‍ এই মুহূর্তে সরকারের কাছে আদানি সবচেয়ে বড় কাঁটা সেইসাথে সাধারণ মানুষের কষ্টার্জিত টাকা যা এলআইসি ও এসবিআইএ জমা আছে সেগুলিকে সুরক্ষিত রাখা। সামনেই ২০২৪ এ নির্বাচন।

খবরটি শেয়ার করুণ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন


মানব-চালিত রোবট ARCHAX এর সাথে দেখা করুন

উত্তরাপথঃসাম্প্রতিক বছরগুলিতে, প্রযুক্তিগত অগ্রগতি আমাদের এক ধাপে অনেকটা এগিয়ে নিয়ে এসেছে, আজ রোবটগুলি আমাদের দৈনন্দিন জীবনের একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ। স্বয়ংক্রিয় সহকারী থেকে স্ব-ড্রাইভিং গাড়ি পর্যন্ত,সর্বত্র আজ রোবটের অবাধ উপস্থিতি। ARCHAX মানব-চালিত এই রোবট  এমনই এক উদ্ভাবন যা বিজ্ঞানী এবং সাধারণ জনগণ উভয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে । অটোনোমাস রোবোটিক কম্প্যানিয়ন উইথ হিউম্যান অ্যাসিসট্যান্সের সংক্ষিপ্ত আর্ক্যাক্স, এর একটি যুগান্তকারী সৃষ্টি যা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার (AI) বুদ্ধিমত্তাকে একজন মানব অপারেটরের দক্ষতা এবং সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতার সাথে একত্রিত করে তৈরি করা হয়েছে।জাপানের Tsubame Industries ARCHAX তৈরি করেছে।এটি একটি মানুষের আকারের ককপিট সহ একটি বিশাল ট্রান্সফরমার রোবট। .....বিস্তারিত পড়ুন

আগামী ৩ বছরে শূন্য বর্জ্য হওয়ার পথে রাজস্থানের প্রথম গ্রাম

উত্তরাপথঃ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিভাগের একটি প্রকল্পের আওতায় আঁধি গ্রামে এই পরিবর্তন করা হচ্ছে।জয়পুর থেকে ৫০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত আন্ধি গ্রাম।আগামী তিন বছরে এই গ্রাম শূন্য বর্জ্য হয়ে যাবে বলে মনে করা হচ্ছে ।আন্ধি গ্রামের এই সম্পূর্ণ রূপান্তরটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিভাগের একটি প্রকল্পের অধীনে করা হচ্ছে।  এই প্রকল্পটি সবুজ প্রযুক্তির হস্তক্ষেপ ব্যবহার করে আন্ধি গ্রামকে জিরো ওয়েস্ট মডেলে রূপান্তরিত করার কাজ চলছে ।  এই প্রকল্পটি ২১ মার্চ ২০২২ এ শুরু হয়েছে,  প্রকল্প পরিচালক বলেন, এ গ্রামের অবস্থা আগে খুবই খারাপ ছিল।আগে এই গ্রামের লোকেদের কঠিন বর্জ্য আলাদা করার কোনও ধারনা ছিল না । .....বিস্তারিত পড়ুন

পোল্ট্রি শিল্পে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে চলেছে নতুন জিন প্রযুক্তি

উত্তরাপথ - পোল্ট্রি শিল্পে পুরুষ ছানা মারার অভ্যাস দীর্ঘকাল ধরে নৈতিক উদ্বেগের বিষয়।পরিসংখ্যানে প্রকাশ প্রতি বছর পোলট্রিগুলিতে ৭ বিলিয়ন পুরুষ ছানাকে হত্যা করা হয়।কারণ পুরুষ ছানারা ডিম দিতে পারে না সেই সাথে তারা  মাংসের জন্যও উপযুক্ত না হওয়ার কারণে,তারা অর্থনৈতিকভাবে অলাভজনক বলে বিবেচিত হয় । সেই কারণে ডিম ফোটার পরপরই তাদের euthanized করা হয়।এবার এই সমস্যা সমাধানে মধ্য ইস্রায়েলের Yuval Cinnamon এর গবেষণাগারে এক নতুন প্রযুক্তি আবিষ্কার করা হয় যার দ্বারা সমস্ত ছানাই মহিলা হবে।এক্ষেত্রে পুরুষ ছানাগুলিকে সম্পূর্ণভাবে ডিম থেকে বেরোনোর আগেই তাদের বাঁধা দেওয়া হবে। এই নতুন প্রযুক্তির আবিষ্কার মুর্গীর পুরুষ ছানাগুলিকে প্রায়শই ম্যাসারেশন বা গ্যাসিং পদ্ধতির মাধ্যমে হত্যা করার মত অমানবিক কাজ বন্ধ করতে সাহায্য করবে। .....বিস্তারিত পড়ুন

মিশন ইম্পসিবল ডেড রেকনিং পার্ট ওয়ান রিভিউ: ৬১ বছর বয়সী টম ক্রুজের আবারও অনবদ্য

উত্তরাপথঃ মিশন ইম্পসিবল দর্শকদের একটি রোমাঞ্চকর যাত্রায় নিয়ে যায়। যেখানে সিনেমাটি  তিন ঘণ্টা দেখা অতিক্রান্ত হওয়ার পরও দর্শক এটি দেখতে চান। আর এটিই টম ক্রুজ এবং পরিচালক ক্রিস্টোফার ম্যাককোয়ারির আসল সাফল্য।গত বছর হলিউড সুপারস্টার টম ক্রুজ 'টপ গান ম্যাভেরিক' দিয়ে দর্শকদের মন্ত্রমুগ্ধ করার পর, এখন টম ক্রুজ এজেন্ট হান্টের চরিত্রে শক্তিশালী অ্যাকশন নিয়ে দর্শকদের সামনে এসেছেন। টম ক্রুজের 'মিশন ইম্পসিবল' ফিল্ম সিরিজের সপ্তম কিস্তি 'মিশন ইম্পসিবল- ডেড রেকনিং পার্ট ওয়ান' সদ্য ভারতে মুক্তি পেয়েছে । টম ক্রুজ এই ছবিতে তার জনপ্রিয় ইমেজ ধরে রেখেছেন এবং এই ছবিতে দর্শকদের অ্যাকশনের একটি বড় অংশ উপহার দিয়েছেন। মিশন ইম্পসিবল মুভিগুলি শুধুমাত্র টম ক্রুজের জন্য দেখা হয় এবং এই মুভিটি দেখা আবশ্যকও বটে৷ .....বিস্তারিত পড়ুন

Scroll to Top