চার্লস ক্যামিলার রাজ্যাভিষেক অনুষ্ঠানের রাজকীয় প্রস্তুতি

উত্তরাপথ

ছবি সৌজন্যে: পিউপিল

আগামী ৬ মে ব্রিটেনে রাজা চার্লস ও রানী ক্যামিলার রাজ্যাভিষেক অনুষ্ঠানের প্রস্তুতি জোরদার হয়েছে।  চার্লস এবং ক্যামিলা বাকিংহাম প্যালেস থেকে একটি কালো ডায়মন্ড জুবিলি স্টেট কোচ চ্যারিয়টে ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবে পৌঁছাবেন।   এই সময়ে তার কনভয় গতবারের (এলিজাবেথের রাজ্যাভিষেকের) চেয়ে ছোট পথ নেবে।  বাকিংহাম প্যালেস বলেছে, রাজা আধুনিক ভাবে  একটি সাধারণ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে শপথ নিতে চেয়েছিলেন।রাজা এবং রানীর মোটর গাড়ীতে করে  শোভাযাত্রা  ওয়েস্টমিনস্টারে পৌঁছানোর আগে ২ কিলোমিটার দূরত্ব অতিক্রম করবে।  এ সময় তিনি সকাল ১১টায় রাজ্যাভিষেকের জন্য অ্যাডমিরালটি আর্চ, ট্রাফালগার স্কোয়ার, চার্লস-১ এর মূর্তি এবং পার্লামেন্টে পৌঁছাবেন।  অনুষ্ঠানের পর, রাজা-রানি ২৬০  বছরের পুরোনো গোল্ড স্টেট কোচ রথে প্রাসাদে ফিরে আসবেন।

৭০ বছর পর ব্রিটেনে অনুষ্ঠিত হওয়া রাজ্যাভিষেক অনুষ্ঠানের জন্য একটি বিশেষ ইমোজিও প্রকাশ করা হয়েছে।  সোশ্যাল মিডিয়ার যুগে এটাই প্রথম রাজ্যাভিষেক দেখাচ্ছে।  ইমোজিতে সেন্ট এডওয়ার্ডের মুকুট দ্বারা অনুপ্রাণিত একটি মুকুট রয়েছে।  রাজ্যাভিষেকের সময় চার্লসকে এই মুকুট পরানো হবে।  রাজা অনুষ্ঠানের মাধ্যমে দেখাতে চান যে ব্রিটেনে রাজতন্ত্র এখনও গুরুত্বপূর্ণ।  তবে তিনি ১৯৫৩সালে রানী এলিজাবেথের অনুষ্ঠানের চেয়ে পুরো অনুষ্ঠানটিকে ছোট রাখতে চলেছেন।এই সময়, রাজাকে সেন্ট এডওয়ার্ডের মুকুট পরানো হবে। মুকুটের ফ্রেমটি ২.২ কেজি সোনা দিয়ে তৈরি।  নীলকান্তমণি, গার্নেট, পোখরাজ সহ বহু মূল্যবান পাথর এতে খোদাই করা আছে।  এটি একটি বেগুনি মখমল কাপড়ের টুপি। রানি এলিজাবেথও ১৯৫৩ সালে তার রাজ্যাভিষেকের সময় একই মুকুট পরেছিলেন। এরপর এটি টাওয়ার অব লন্ডনে রাখা হয়। অনুষ্ঠানে অনেক রাজকীয় প্রতীক অন্তর্ভুক্ত করা হবে।  এর মধ্যে থাকবে ৫টি প্রতীকী তলোয়ার, ২টি রাজদণ্ড, স্যাফায়ারের সার্বভৌম আংটি এবং হীরার রুবি ক্রস সেট।  রাজ্যাভিষেকের সময় ক্যামিলাকে কুইন মেরির মুকুট দেওয়া হবে, যা সম্প্রতি সংস্কার করা হয়েছে।  এ সময় তার হাতে থাকবে হাতির দাঁত দিয়ে তৈরি বিতর্কিত রাজদণ্ড (রাজদণ্ড)।

যাইহোক, শতাব্দী ধরে ব্যবহৃত রাজকীয় চিহ্নগুলির বেশিরভাগই অনুষ্ঠানের অংশ হবে।  এর মধ্যে থাকবে ৫টি প্রতীকী তলোয়ার, ২টি রাজদণ্ড, স্যাফায়ারের সার্বভৌম আংটি এবং হীরার রুবি ক্রস সেট।  রাজ্যাভিষেকের সময় ক্যামিলাকে কুইন মেরির মুকুট দেওয়া হবে, যা সম্প্রতি সংস্কার করা হয়েছে।  এ সময় তার হাতে থাকবে হাতির দাঁত দিয়ে তৈরি বিতর্কিত রাজদণ্ড (রাজদণ্ড)।

অনুষ্ঠান শেষ হওয়ার পর ফিরে আসার সময় চার্লসকে দ্বিতীয় ইম্পেরিয়াল স্টেট ক্রাউন দেওয়া হবে।  রাজা চার্লস এবং রানী ক্যামিলা ২৬০ বছরের পুরোনো গোল্ড স্টেট কোচ রথে প্রাসাদে ফিরে আসবেন।  এর আগে ব্রিটেনে এই রথটি রাজ্যাভিষেকের পর ফিরে যাওয়ার জন্য ব্যবহার করা হয়েছে, যা নিয়েও অনেক আলোচনা হয়েছে।রথে সোনার প্রলেপের কারণে এই রথের ওজন অনেক বেশি।  এটি খুব ধীরে ধীরে চলে যাতে জনসাধারণ নতুন রাজা-রাণীকে দীর্ঘ সময়ের জন্য দেখতে পারে।

খবরটি শেয়ার করুণ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন


স্বপ্নপূরণ না হলেও জ্যাভিলিনে সোনা জিতলেন নীরজ

উত্তরাপথ: দোহায় ডায়মন্ড লিগে জ্যাভিলিনে সোনা জিতলেন নীরজ চোপড়া কিন্তু তার জ্যাবলিনে ৯০ মিটার দূরত্ব অতিক্রম করার স্বপ্নপূরণ হল না । দোহায় তার জ্যাভিলিন থামল ৮৮.৬৭ মিটার দূরত্ব অতিক্রম করে। গতবছরও এই লিগে প্রথম পদক জিতেছিলেন নীরজ। দোহার সুহেম বিন হামাদ স্টেডিয়ামে প্রথমবার জ্যাভলিন ছুড়েই চমক দেন নীরজ। প্রথমবারেই তার জ্যাভলিন চলে যায় ৮৮.৬৭ মিটার। ২০২২ সালে জুরিখের ডায়মন্ড লিগে সফলতা হয়েছিলেন নীরজ এবং টোকিও অলিম্পিকে সোনা জিতেছিলেন তিনি। তার লক্ষ্য ছিল ৯০ মিটারের গণ্ডি পেরনোর কিন্তুসেই লক্ষ্য .....বিস্তারিত পড়ুন

প্রয়াত "কালবেলা"-র স্রষ্টা সাহিত্যিক সমরেশ মজুমদার

উত্তরাপথ: সাহিত্য একাডেমি পুরুষ্কার প্রাপ্ত প্রখ্যাত সাহিত্যিক সমরেশ মজুমদার কলকাতার এক বেসরকারী হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৯ বছর।বেশ কিছুদিন ধরে তিনি ফুসফুস ও শ্বাসনালীর সংক্রামণের কারনে তিনি হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। ১৯৪২ সালে উত্তরবঙ্গের গয়েরকাটায় জন্ম এই বিখ্যাত লেখকের।ষাটের দশকের গোড়ায় তিনি কলকাতায় এসেছিলেন। ভর্তি হয়েছিলেন স্কটিশ চার্চ কলেজের বাংলা (সাম্মানিক) স্নাতক বিভাগে৷ এর পর স্নাতকোত্তর  সম্পন্ন করেন কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। সমরেশ মজুমদারের উল্লেখযোগ্য .....বিস্তারিত পড়ুন

মতুয়া আন্দোলনের এক মনোগ্রাহী ভাষ্য

অরবিন্দ পুরকাইত: আপাত বা গভীর কোনও স্তরেই তেমন কিছু তফাৎ পরিলক্ষিত না হলেও, বর্ণবাদী সমাজে একই পাড়ায় একেবারে প্রায় পাশাপাশি কেবল বিশেষ বিশেষ ঘরে জন্মানোর নিমিত্ত - শিক্ষাদীক্ষা পরের কথা – ভূমিষ্ঠ হওয়া থেকেই আজীবন একজন শ্রদ্ধা-ভক্তি-প্রণাম পাওয়ার অদৃশ্য শংসাপত্রের অধিকারী আর অন্যজনের সেবা-শ্রদ্ধা-ভক্তির অদৃশ্য দাসখতের দায়বদ্ধতা! কেন-না সৃষ্টিলগ্নেই একজন প্রজাপতি ব্রহ্মার মুখনিসৃত আর অন্যজন পদজ যে! সুতরাং মুখ থাকবে সবার উপরে, সবার নিচে পা – এতে অস্বাভাবিকতা বা আশ্চর্যের তো কিছু নেই! কিন্তু কেবল সেবা-শ্রদ্ধাতেই সব মিটে .....বিস্তারিত পড়ুন

Scroll to Top