শীঘ্রই ন্যাশনাল রিসার্চ ফাউন্ডেশন (NRF) গঠন করছে সরকার

উত্তরাপথঃ ভারত সরকার সারা দেশের হাজার হাজার বিশ্ববিদ্যালয়, কলেজ, ইনস্টিটিউট এবং ল্যাবরেটরিগুলিতে গবেষণা বাড়ানোর জন্য একটি ন্যাশনাল রিসার্চ ফাউন্ডেশন (NRF)  গঠন করার পরিকল্পনা করছে ৷  তহবিল প্রতিষ্ঠার জন্য আইন আগামী তিন সপ্তাহের মধ্যে ভারতীয় সংসদে বিল পেশ করা হবে বলে আশা করা হচ্ছে। ২৮ জুন, এনআরএফ প্রতিষ্ঠার জন্য একটি খসড়া বিল কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা থেকে অনুমোদন পেয়েছে, যার নেতৃত্বে রয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

যদি ন্যাশনাল রিসার্চ ফাউন্ডেশন (NRF) পার্লামেন্ট দ্বারা অনুমোদিত হয়, মোদি এর সভাপতি হিসাবে কাজ করবেন এবং বিজ্ঞান ও শিক্ষামন্ত্রী এর সহ-সভাপতি হবেন।  সংগঠনটি বিভিন্ন শাখার বিজ্ঞানীদের নিয়ে একটি গভর্নিং বোর্ড গঠন করা হবে এবং সরকারের প্রধান বৈজ্ঞানিক উপদেষ্টার নেতৃত্বে এই নির্বাহী পরিষদ কাজ করবে।

ন্যাশনাল রিসার্চ ফাউন্ডেশন (NRF) পাঁচ বছরে প্রায় ৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বাজেট ঘোষণা করেছে। এই তহবিলের প্রায় ৭০% বেসরকারি বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে আসবে, এবং অবশিষ্ট অংশ সরকার দেবে। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রকের একটি বিবৃতিতে বলা হয়েছে, এনআরএফ-এর লক্ষ্য হল শিক্ষা, শিল্প এবং সরকারের মধ্যে সম্পর্ক জোরদার করে সারা দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলিকে কৃষি গবেষণার কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহার করা।  

ভারত বিশ্বের চতুর্থ বৃহত্তম গবেষণা দেশ। গবেষণা ডাটাবেস সাইভালের তথ্য অনুসারে, ২০১৭ থেকে ২০২২ সালের মধ্যে, এই খাতে ৫৪ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। এই সংখ্যা বিশ্বব্যাপী গবেষণা বৃদ্ধির দ্বিগুণেরও বেশি। এই সময়ের মধ্যে প্রায় ১৫ শতাংশ গবেষণাপত্র শীর্ষ জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে। কিউএস ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটির সাবজেক্ট র‌্যাঙ্কিংয়ে এ তথ্য উঠে এসেছে।

সবচেয়ে বেশি গবেষণার কাজ হয়েছে প্রকৌশল ও প্রযুক্তি খাতে। এই সংখ্যাটি মোট গবেষণা কাজের প্রায় ৫২.৬ শতাংশ। ভারত দুই বা ততোধিক দেশের সহযোগিতায় গবেষণার ১৯ শতাংশ কাজ করছে। এই কারণেই সাম্প্রতিক বছরগুলিতে ভারতীয় বিশ্ববিদ্যালয়গুলি QS র‌্যাঙ্কিংয়ে বেড়েছে। বুধবার লন্ডনে QS ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটির সাবজেক্ট র‌্যাঙ্কিং প্রকাশিত হয়েছে। কিউএস ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটি সাবজেক্ট র‍্যাঙ্কিংয়ে ৬৬টি ভারতীয় বিশ্ববিদ্যালয় স্থান পেয়েছে। যা ২০২২ সালের তুলনায় ১৮.৭ শতাংশ বেশি। এ বছর ভারতের ৩৫৫টি বিশ্ববিদ্যালয় আবেদন করেছিল। এর মধ্যে ইন্সটিটিউট অব এমিনেন্সে স্থান পেয়েছে ১১টি বিশ্ববিদ্যালয়।

বিষয়ভিত্তিক তালিকায়, ভারতীয় বিশ্ববিদ্যালয়গুলি কম্পিউটার বিজ্ঞান, রসায়ন, জীববিদ্যা, পদার্থবিদ্যায় সেরা পারফর্ম করেছে। সারা বিশ্বে গবেষণার ক্ষেত্রে ভারত দ্রুত তার স্থান করে নিচ্ছে। চীন ৪.৫ লাখ গবেষণা পত্র নিয়ে প্রথম স্থানে রয়েছে, তারপরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ৪.৪ লাখ এবং যুক্তরাজ্য ১.৪ লাখ।

খবরটি শেয়ার করুণ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন


২০২৩ নির্বাচন কি সত্যি ২০২৪ এর সেমিফাইনাল ?

উত্তরাপথ: ২০২৩ নির্বাচন কি সত্যি ২০২৪ এর সেমিফাইনাল ? না  কি কংগ্রেসের কাছে আবার একটু - একটু  করে ঘুরে দাঁড়াবার প্রচেষ্টা এবং বিজেপির কাছে মোদী ম্যাজিক যে এখনও অব্যাহত সেটা প্রমান করা। বিজেপির এখন প্রচারের একমাত্র মুখ নরেন্দ্র মোদী। সদ্য সমাপ্ত কর্ণাটক নির্বাচনের পুরো প্রচার হয়েছিল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে কেন্দ্র করে। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ, বিজেপির জাতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা সহ মুখ্যমন্ত্রী বাসভরাজ বোমাই নিজেও প্রধানমন্ত্রী মোদির নামে ভোট চাইলেন। তার  উপরে, প্রধানমন্ত্রী মোদি নিজে .....বিস্তারিত পড়ুন

আগামী ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে কি সলমন খানকেও দেখা যাবে কলকাতায় ?

উত্তরাপথ: একেই বলে রথ দেখা কলা বেচা। এলেন ইস্ট বেঙ্গল ক্লাবের শতবর্ষ উদযাপনের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে,আর বাড়তি পাওনা হিসেবে পেয়ে গেলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাথে একান্ত সাক্ষাতের সুযোগ।  কালো টয়োটা এসইউভি ডব্লিউবি০২এএন৬৬৪৯ গাড়িতে করে বিকেল ৪টে ২০ মিনিটে পৌঁছেযান মুখ্যমন্ত্রীর কালীঘাটের বাড়িতে। অবশ্য রাস্তায় উপচে পড়া ভিড়ের জন্য দু'বার দাঁড়াতে হয়েছিল গাড়িতে থাকা সুপারস্টারকে। পুলিশি নিরাপত্তার ঘেরাটোপে মুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতে ঢোকে সলমন খান। আগেই নিজের টালির চালার বাড়ির সামনে আটপৌড়ে শাড়িতে অপেক্ষায় .....বিস্তারিত পড়ুন

বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ের রায়ের বিরুদ্ধে রাস্তায় শিলিগুড়ির প্রাথমিক শিক্ষকরা

উত্তরাপথ: ৩৬ হাজার প্রাথমিক শিক্ষকের চাকরি বাতিল করে দেন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। তার প্রতিবাদে শনিবার শিলিগুড়িতে পথে নেমে বিক্ষোভ শুরু করেন শিলিগুড়ির প্রাথমিক শিক্ষকরা। ২০১৪ সালের টেট পরীক্ষার ভিত্তিতে ২০১৬ সালে নিযুক্ত হয়েছিলেন ৪২ হাজার ৫০০ শিক্ষক। এই নিয়োগে ইন্টারভিউতে ব্যাপক দুর্নীতির অভিযোগ ওঠে। এমনকি নিয়োগ পরীক্ষায় অ্যাপটিটিউড টেস্টও নেওয়া হয়নি বলে ইন্টারভিউয়াররাই বিচারপতির কাছে সাক্ষ্য দিয়ে জানিয়েছেন। তার ভিত্তিতে ৩৬ হাজার প্রাথমিক শিক্ষকের চাকরি বাতিল করে দেন কলকাতা .....বিস্তারিত পড়ুন

মানুষে মানুষে ঐক্য কীভাবে সম্ভব

দিলীপ গায়েন: হিন্দু,মুসলমান,ব্রাহ্মণ,তফসিলি।সকলেই মানুষ।কিন্তু এদের মধ্যে যে ব্যবধান তা হলো ধর্ম ও সাংস্কৃতিক। এই ব্যবধান মুছতে পারলে একাকার হওয়া সম্ভব। যারা বলছে আর্থিক সমতা প্রতিষ্ঠা হলে ব্যবধান মুছে যাবে, তাদের কথাটি বোধ হয় সঠিক নয়।তার প্রমাণ গরিব ও শ্রমিক শ্রেণীর মধ্যে আর্থিক ব্যবধান নেই। অথচ জাতিভেদ রয়ে গেছে। তেমনি কিছু ব্যতিক্রমী ঘটনা ব্যতীত ধনী ও শিক্ষিত সমাজে আর্থিক সচ্ছলতা থাকলেও জাতিভেদ রয়ে গেছে। একমাত্র হাসপাতালে বা চিকিৎসা ব্যবস্থায় জাতিভেদ নেই।কারণ সেখানে তো প্রচলিত ধর্মজাত প্রভেদ বা পরিচয় নেই। আছে মেডিসিন, যা সম্পূর্ণ বিজ্ঞান। কারোর ধর্ম বা জাত দেখে প্রেসক্রিপশন হয় কি? এখানে মানুষের একমাত্র এবং শেষ পরিচয় সে মানুষ। .....বিস্তারিত পড়ুন

Scroll to Top