বিচারকের বিচারাধীন বিষয়ে সাক্ষাৎকার কতটা যুক্তিযুক্ত

উত্তরাপথ

আদালতের বিচারাধীন বিষয় নিয়ে সংবাদমাধ্যমে সাক্ষাৎকার দেওয়ার অভিযোগ ঘিরে সুপ্রিম কোর্টের কড়া মন্তব্যে বিপাকে  কলকাতা হাই কোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। হাই কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেলের কাছে এ বিষয়ে রিপোর্ট নিয়ে ভারতের প্রধান বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড় আপাতত ২ টি মামলা অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যাইয়ের বেঞ্চ থেকে সরিয়ে দিলেন ।এতে হাজার হাজার চাকরি প্রার্থী যারা ন্যায় বিচারের আশায় বসে ছিলেন তারা কার্যত উদ্বিগ্ন। একটা প্রশ্ন আসা স্বাভাবিক এই জাতীয় সাক্ষাৎকার বিচারাধীন বিষয় নিয়ে একজন বিচারকের দেওয়া কতটা যুক্তিযুক্ত ।

প্রসঙ্গত  উল্লেখ্য শিক্ষা দুর্নীতিতে ধৃত কুন্তল ঘোষের বয়ান অনুযায়ী অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কেও  জেরা করতে চেয়ে সিবিআইয়ের আবেদনের বিরোধিতা সংক্রান্ত মামলা সোমবার সুপ্রিম কোর্টে ওঠে তাতেই উঠে আসে বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ের প্রসঙ্গ। এসএসসি এবং  টেট নিয়োগ দুর্নীতির মামলা চলার মাঝে তিনি যে সাক্ষাৎকার  দিয়েছেন, তা প্রধান বিচারপতির গোচরে আনা হয়। তাতেপ্রধান বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড় কলকাতা  হাই কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেলের কাছে সাক্ষাৎকারের অনুবাদ চান।  প্রধান বিচারপতির দৃষ্টি আকর্ষণ করে আইনজীবী অভিষেক মনু সিংভি, কপিল সিব্বলরা জানান, সাক্ষাৎকারটি একটি টেলিভিশন চ্যানেলে সরাসরি  সম্প্রচার হয়েছে । তারপর প্রধান বিচারপতি নিজের অবস্থানে অনড় থেকে শুক্রবারের মধ্য়ে রিপোর্ট তলব করেন। সেইসঙ্গে প্রধান বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড় রীতিমতো বিরক্তির সুরেই মন্তব্য করেন, ”রাজনৈতিক নেতাদের মতো বিচারাধীন বিষয়ে চ্যানেলে বসে ইন্টারভিউ দেওয়া কাজ বিচারপতিদের কাজ নয়।” এমনকী তিনি এও বলেন যে ইন্টারভিউয়ের বিষয়টি সত্যি হলে শীর্ষ আদালত হাই কোর্টের  প্রধান বিচারপতিকে পরামর্শ দেবে, এসএসসি মামলা বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ের এজলাস থেকে সরিয়ে অন্য বিচারপতিকে দেওয়ার জন্য । 

খবরটি শেয়ার করুণ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন


বিশ্ব মানবতার আলোয় যৌবনের পূজারী নজরুল

অসীম পাঠকঃ জীবনের প্রয়োজনে যুগের পরিবর্তন যেমন সত্য তেমনি যুগের প্রয়োজনে জীবনের আবির্ভাব অমোঘ। এই বাস্তব সত্যটিকে আরও গভীর ভাবে উপলব্ধি করার কাল এসেছে। তারই অভ্যাস অনুরণিত হচ্ছে দিকে দিকে। সর্বত্র আলোড়ন উঠেছে বিদ্রোহী কবির জীবন দর্শন নিয়ে , তাঁর আগুন ঝরা কবিতা নিয়ে। সর্বহারার কবি নজরুল ইসলাম। যারা বঞ্চিত অবহেলিত , নিপীড়ন আর শোষণের জ্বালা যাদের বুকে ধিকি ধিকি জ্বলে বুকেই জুড়িয়ে যাচ্ছিল দাহ, তাদের মূক বেদনার ভাষা দিয়েছিলেন নজরুল।পদদলিত পরাধীন জাতির বুকে স্বাধীনতার তৃষ্ণা জাগিয়েই তিনি শান্ত থাকেননি , দেশের সমাজের বুক থেকে মানুষে মানুষে বিভেদ ব্যাবধান দূর করবার ব্রত ও গ্রহন করেছিলেন। তিনিই প্রথম কবি যিনি সমাজের সমাজপতি দের ছলনার .....বিস্তারিত পড়ুন

এবার চাঁদের পথে জাপান, অবতরণে সময় লাগতে পারে ছয় মাস

উত্তরাপথঃ এ যেন হঠাৎ করে শুরু হওয়া বিভিন্ন দেশগুলির মধ্যে চাঁদে যাওয়ার প্রতিযোগিতা।ভারতের পর এবার চাঁদের পথে পারি দিল জাপান । চাঁদের জন্য SLIM নামে  তাদের নিজস্ব মুন ল্যান্ডার উৎক্ষেপণ করেছে জাপান।  মহাকাশযানটি ৭ সেপ্টেম্বর জাপানের স্থানীয় সময় সকাল ৮.৪২মিনিটে উৎক্ষেপণ করা হয়।  এটিতে জাপানের নিজস্ব  H2A রকেট ব্যবহার করা হয়েছে। এই মহাকাশ যানটি  তানেগাশিমা স্পেস সেন্টার থেকে উৎক্ষেপণ করা হয়েছে।প্রসঙ্গত দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে জাপান এটিকে নির্দিষ্ট সময়ের চেয়ে ১০ দিন দেরিতে উৎক্ষেপণ করল।মহাকাশযান SLIM ছাড়াও একটি মহাকাশ টেলিস্কোপও পাঠিয়েছে জাপান।উভয় মহাকাশযান এক ঘন্টার মধ্যে তাদের নির্দিষ্ট পথে পৌঁছেছে।  সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে 'স্মার্ট ল্যান্ডার ফর ইনভেস্টিগেটিং মুন' (SLIM) প্রায় চার মাস পর চাঁদে অবতরণ করবে। .....বিস্তারিত পড়ুন

ধানের সাধ ভক্ষণ : জিহুড়

ড.  নিমাইকৃষ্ণ মাহাত: আশ্বিন সংক্রান্তিতে কৃষক সমাজের মধ্যে জিহুড় পার্বণ পালিত হয়। কৃষক সাধারণের মধ্যে জিহুড় পার্বণের একটি বিশেষ তাৎপর্য রয়েছে। জিহুড় অর্থাৎ আশ্বিন সংক্রান্তির সময় বহাল জমিতে লাগানো ধান বা বড়ান ধানে থোড় আসতে শুরু করে। সুতরাং ধান গাছ গর্ভাবস্থায় থাকে। মানুষের ক্ষেত্রে গর্ভাবস্থায় নানা ধরনের আচার-সংস্কার পালন করা হয়। এই সংস্কারগুলির অন্যতম হলো " ন' মাসি " অর্থাৎ গর্ভাবস্থার নবম মাসে যে আচার -অনুষ্ঠান পালন করা হয়। এর কিছুদিন পরেই সন্তানজন্মগ্রহণ করে। মানব- সমাজের গর্ভাবস্থাজনিত এই ধরনের আচার সংস্কারের সঙ্গে ধান গাছের গর্ভাবস্থার কারণে পালনীয় অনুষ্ঠান জিহুড়ের সাদৃশ্য থাকে দেখা যায়। সেই জন্য অনেকে জিহুড় অনুষ্ঠানকে ধান গাছের 'সাধভক্ষণ'  বলে থাকেন। জিহুড়-এ ধান গাছ .....বিস্তারিত পড়ুন

মানব-চালিত রোবট ARCHAX এর সাথে দেখা করুন

উত্তরাপথঃসাম্প্রতিক বছরগুলিতে, প্রযুক্তিগত অগ্রগতি আমাদের এক ধাপে অনেকটা এগিয়ে নিয়ে এসেছে, আজ রোবটগুলি আমাদের দৈনন্দিন জীবনের একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ। স্বয়ংক্রিয় সহকারী থেকে স্ব-ড্রাইভিং গাড়ি পর্যন্ত,সর্বত্র আজ রোবটের অবাধ উপস্থিতি। ARCHAX মানব-চালিত এই রোবট  এমনই এক উদ্ভাবন যা বিজ্ঞানী এবং সাধারণ জনগণ উভয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে । অটোনোমাস রোবোটিক কম্প্যানিয়ন উইথ হিউম্যান অ্যাসিসট্যান্সের সংক্ষিপ্ত আর্ক্যাক্স, এর একটি যুগান্তকারী সৃষ্টি যা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার (AI) বুদ্ধিমত্তাকে একজন মানব অপারেটরের দক্ষতা এবং সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতার সাথে একত্রিত করে তৈরি করা হয়েছে।জাপানের Tsubame Industries ARCHAX তৈরি করেছে।এটি একটি মানুষের আকারের ককপিট সহ একটি বিশাল ট্রান্সফরমার রোবট। .....বিস্তারিত পড়ুন

Scroll to Top