সম্পাদকীয়

মণিপুর,সংকট উন্মোচন: কারণ বোঝা এবং সমাধান খোঁজা

মণিপুর,সংকট বর্তমানে ভারতের সামাজিক-রাজনৈতিক ক্ষেত্রে এক প্রধান সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে।পরিস্থিতি এতটাই ভায়াবহ যে বিদেশেও আমাদের দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ হচ্ছে । বর্তমান মণিপুর সংকটের শিকড় রয়েছে ঐতিহাসিক, রাজনৈতিক এবং আর্থ-সামাজিক কারণের জটিল জালে। তাই প্রায় টানা তিনমাস ধরে চলতে থাকা এই সমস্যার আজও কোনও সমাধান নেই।

বর্তমান মণিপুর,সংকট বোঝার জন্য, এর ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপটে অনুসন্ধান করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। মণিপুরের আঞ্চলিক পরিচয়, সাংস্কৃতিক স্বাতন্ত্র্য এবং স্ব-শাসনের এক দীর্ঘ ইতিহাস রয়েছে। ১৯ শতকের শেষের দিকে ব্রিটিশদের দ্বারা মণিপুরের অধিভুক্তি, এবং ১৯৪৯ সালে ভারতের সাথে একীভূত হওয়ার পরে, মণিপুরী জনগণের মধ্যে একটি বিরক্তি এবং বিচ্ছিন্নতার অনুভূতি তৈরি হয়েছিল।  

বর্তমান মণিপুর সংকটে জাতিগত উত্তেজনা একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। রাজ্যটি মেইতি, নাগা, কুকি এবং পাঙ্গল সহ বিভিন্ন জাতিগত সম্প্রদায়ের আবাসস্থল। এই সম্প্রদায়গুলির প্রত্যেকটির ভিন্ন ভিন্ন আকাঙ্খা রয়েছে, যা জমি, সম্পদ বা রাজনৈতিক ক্ষমতা নিয়ে তাদের মধ্যে জাতিগত দ্বন্দ্ব সৃষ্টি করছে। নির্দিষ্ট গোষ্ঠীর দ্বারা স্বায়ত্তশাসন বা পৃথক রাষ্ট্রের দাবি বছরের পর বছর ধরে বিদ্রোহ আন্দোলনকে উস্কে দিয়েছে, যার ফলে সহিংসতা এবং অস্থিতিশীলতা সৃষ্টির একটি চক্র তৈরি হয়েছে।

মণিপুরে বেশ কয়েকটি সশস্ত্র গোষ্ঠীর উপস্থিতি সংকটকে আরও বাড়িয়ে দিয়েছে৷ বিচ্ছিন্নতাবাদসহ বিভিন্ন এজেন্ডা অনুসরণকারী এই দলগুলো সরকারি বাহিনীর সঙ্গে এবং নিজেদের মধ্যেও সশস্ত্র সংঘর্ষে লিপ্ত হচ্ছে। দীর্ঘস্থায়ী সংঘাত বিচারবহির্ভূত হত্যা, মহিলাদের উপর নির্যাতন সহ অগণিত মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনা ঘটছে যার ফলে মণিপুরের সাধারণ জনগণকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।  

পর্যাপ্ত উন্নয়ন উদ্যোগের অভাব এবং ক্রমাগত আর্থ-সামাজিক বিভাজনও মণিপুর সংকটের জন্য দায়ী। মণিপুর, বর্তমানে অসংখ্য চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন, যেমন অপর্যাপ্ত পরিকাঠামো, সীমিত চাকরির সুযোগ এবং উচ্চ বেকারত্বের হার সেই সাথে দুর্নীতি এই সংকটকে আরও বাড়িয়ে দিয়েছে, এবং জনগণের মধ্যে ব্যাপক হতাশার সৃষ্টি করেছে।

মণিপুর সংকট মোকাবেলা করার জন্য একটি বহুমুখী পদ্ধতির প্রয়োজন যা ঐতিহাসিক, রাজনৈতিক এবং আর্থ-সামাজিক জটিলতাগুলিকে বিবেচনা করে সংকট দূর করতে সাহায্য করতে পারবে ।এর প্রথম পদক্ষেপ হিসাবে সরকার, সশস্ত্র গোষ্ঠী এবং সুশীল সমাজের বিভিন্ন সংস্থাগুলির মধ্যে অর্থপূর্ণ বোঝাপড়া এবং বিশ্বাস  বৃদ্ধি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। পারস্পরিক এই বোঝাপড়ার মাধ্যমে সংকটের মূল কারণগুলিকে সমাধান করা উচিত এবং রাজনৈতিক, সামাজিক এবং অর্থনৈতিক সংস্কারের সম্ভাবনাগুলি অন্বেষণ করা উচিত।সেইসাথে প্রশাসনে স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা, এবং সুশাসনের প্রচার মণিপুরের আর্থ-সামাজিক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় সাহায্য করতে পারে।

এছাড়াও মণিপুরের সমস্ত সম্প্রদায়ের চাহিদা পূরণ করার জন্য বিভিন্ন সামাজিক উন্নয়নমূলক প্রকল্পগুলির প্রয়োগ অত্যন্ত জরুরী । সেই সাথে মণিপুরের দীর্ঘমেয়েদী উন্নয়নের জন্য স্বাস্থ্য, শিক্ষা এবং দক্ষতা উন্নয়নে বিনিয়োগের মাধ্যমে কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি করা এবং আর্থ-সামাজিক বিভাজন দূর করা অত্যন্ত প্রয়োজন।সেইসাথে আইনের শাসন নিশ্চিত করে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা যা এই অঞ্চলে শান্তি ও স্থিতিশীলতা বজায় রাখার জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

খবরটি শেয়ার করুণ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন


সালাদ খাওয়া'র সেরা সময়: খাবার আগে না পরে?

উত্তরাপথঃ আজকাল অনেক ডাইয়েটিশিয়ান সুস্থ থাকতে খাবারে বিশেষ করে সালাদ অন্তর্ভুক্ত করার পরামর্শ দেন।  কারণ এতে অনেক ধরনের শাকসবজি, ডাল এবং ফল রয়েছে, যা আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য বিশেষভাবে উপকারি। কিন্তু সালাদ খাওয়ার সেরা সময় কখন তা নিয়ে মানুষ খুব বিভ্রান্তিতে পড়ে, খাবার পরে না আগে খাবে বুঝতে পারে না।কেউ কেউ যুক্তি দেন যে খাবারের আগে সালাদ খাওয়া হজমে সহায়তা করে এবং  বিভিন্ন স্বাস্থ্যগত উপকারিতা প্রদান করে,আবার আরেক দল বিশ্বাস করে যে খাবারের পরে এটি খাওয়া আরও উপকারী। আসুন উভয় দৃষ্টিভঙ্গি অন্বেষণ করি এবং প্রতিটি পদ্ধতির সম্ভাব্য সুবিধাগুলি বিবেচনা করি। খাবার আগে সালাদ খাওয়া: খাবারের আগে সালাদ খাওয়া ক্ষুধা নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করতে পারে। শাকসবজির উচ্চ ফাইবার সামগ্রী এবং জলের উপাদান পূর্ণতার অনুভূতি তৈরি করতে পারে, যা মূল কোর্সের সময় ক্যালোরি গ্রহণকে হ্রাস করতে পারে। .....বিস্তারিত পড়ুন

পোল্ট্রি শিল্পে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে চলেছে নতুন জিন প্রযুক্তি

উত্তরাপথ - পোল্ট্রি শিল্পে পুরুষ ছানা মারার অভ্যাস দীর্ঘকাল ধরে নৈতিক উদ্বেগের বিষয়।পরিসংখ্যানে প্রকাশ প্রতি বছর পোলট্রিগুলিতে ৭ বিলিয়ন পুরুষ ছানাকে হত্যা করা হয়।কারণ পুরুষ ছানারা ডিম দিতে পারে না সেই সাথে তারা  মাংসের জন্যও উপযুক্ত না হওয়ার কারণে,তারা অর্থনৈতিকভাবে অলাভজনক বলে বিবেচিত হয় । সেই কারণে ডিম ফোটার পরপরই তাদের euthanized করা হয়।এবার এই সমস্যা সমাধানে মধ্য ইস্রায়েলের Yuval Cinnamon এর গবেষণাগারে এক নতুন প্রযুক্তি আবিষ্কার করা হয় যার দ্বারা সমস্ত ছানাই মহিলা হবে।এক্ষেত্রে পুরুষ ছানাগুলিকে সম্পূর্ণভাবে ডিম থেকে বেরোনোর আগেই তাদের বাঁধা দেওয়া হবে। এই নতুন প্রযুক্তির আবিষ্কার মুর্গীর পুরুষ ছানাগুলিকে প্রায়শই ম্যাসারেশন বা গ্যাসিং পদ্ধতির মাধ্যমে হত্যা করার মত অমানবিক কাজ বন্ধ করতে সাহায্য করবে। .....বিস্তারিত পড়ুন

রবি কিরণে “আদিত্য”

ড. সায়ন বসুঃ বীর "বিক্রমে" চাঁদের মাটিতে পা রাখার পর এবার ভারতীয় মহাকাশ গবেষণাকেন্দ্র (ISRO)-এর লক্ষ্য সূর্য | আমাদের ৮টি গ্রহ (প্লুটো এখন বামন গ্রহের তালিকায়) যাকে কেন্দ্র করে ঘুরছে সেই সূর্যের দিকে পাড়ি দিয়েছে "আদিত্য" ২রা সেপ্টেম্বর| চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে অবতরণের ১০ দিনের মাথায় আদিত্যকে সূর্যের উদ্দেশ্যে পাঠিয়ে দিয়ে ISRO বাকি বিশ্বের মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্রগুলির কাছে যে একটি শক্তিশালী বার্তা পৌঁছে দিতে পেরেছে তা বলাই বাহুল্য| আদিত্য মিশনের সূচনা ২০০৮ সালের জানুয়ারী মাসে মহাকাশ বিজ্ঞান সম্পর্কিত একটি উপদেষ্টা কমিটির বৈঠকে|প্রাথমিকভাবে ঠিক করা হয় যে একটি ছোট এবং কম ওজনের (৪০০ কেজি) কৃত্রিম উপগ্রহকে low Earth orbit (LEO ;লিও) যে কক্ষপথের উচ্চতা ১,২০০ কিলোমিটারের থেকে কম সেখানে পাঠানো হবে এবং তার কাজ হবে সূর্যের একদম যে বাইরের স্তর যাকে আমরা সৌর-করোনা বলি তার সম্বন্ধে তথ্য পাঠানো। .....বিস্তারিত পড়ুন

এবার থেকে সংসদের কর্মীরা নতুন ইউনিফর্ম সহ ভারতীয় ঐতিহ্য প্রদর্শন করবে

উত্তরাপথঃ আগামী ১৮ থেকে ২২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সংসদের বিশেষ অধিবেশনের ঘোষণা ৩১ আগস্ট সংসদীয় বিষয়ক মন্ত্রী প্রহলাদ যোশী করেছিলেন। অধিবেশন চলাকালীন কেন্দ্রের দ্বারা ভারতের নাম পরিবর্তন করে ভারত রাখার প্রস্তাবও আনা হতে পারে।সংসদের বিশেষ অধিবেশন এগিয়ে আসার সাথে সাথে, কর্মীদের পরের সপ্তাহে নতুন ভবনে যাওয়ার সময় সংসদ কর্মীদের নতুন ইউনিফর্ম পরতে হবে।এই ইউনিফর্মগুলিতে ভারতীয় সংস্কৃতির উপাদানগুলিকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে । নেহেরু জ্যাকেট' এবং খাকি রঙের প্যান্ট অন্তর্ভুক্ত থাকবে। নতুন ড্রেস কোড সংসদের উভয় কক্ষে কার্যকর করা হবে।ইউনিফর্মটি তৈরি করেছে ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ ফ্যাশন টেকনোলজি (NIFT)। তবে নতুন সংসদ ভবনে আনুষ্ঠানিক প্রবেশের জন্য ১৯ সেপ্টেম্বর নির্ধারিত হয়েছে,সেদিন গণেশ চতুর্থীর একটি ছোট 'পূজা' অনুষ্ঠান হবে। .....বিস্তারিত পড়ুন

Scroll to Top