সম্পাদকীয়

নির্বাচন যেখানে মূল লক্ষ্য …

এবারের লোকসভা কোনও রকম আলাপ আলোচনা ছাড়াই প্রায় ৪৫ লক্ষ কোটি টাকার কেন্দ্রীয় বাজেট অনুমোদন করেছে। শাসক ও বিরোধী পক্ষের বাদানুবাদে প্রত্যাশিতভাবেই সংসদের দ্বিতীয় পর্বের বাজেট অধিবেশন তেমন কোনও কাজ ছাড়াই শেষ হয়েছে।  সংসদে লাগাতার হট্টগোল দেখে এই অধিবেশন নির্ধারিত সময়ের আগেই শেষ হলে, আর কিছু না হউক সরকারি কোষাগার থেকে দেশের জনগণের দেওয়া ট্যাক্সের কিছু টাকা বাঁচানো যেত।  সংসদ চলতে না দিয়ে ক্ষমতাসীন দল ও বিরোধী দলের একে অপরকে কাঠগড়ায় দাঁড় করানোর কোনো যৌক্তিকতা নেই, কারণ কোথাও না কোথাও উভয় দলই এর জন্য দায়ী।

আদানি মামলায় জয়েন্ট পার্লামেন্টারি কমিটি (জেপিসি) তদন্তের দাবিতে বিরোধীরা তাণ্ডব চালালে, শাসকদলও রাহুল গান্ধীকে লন্ডনে দেওয়া বিবৃতির জন্য ক্ষমা চাওয়ার দাবিতে অনড় থাকল।  পক্ষ ও বিরোধী দলের এসব দাবির কোনো বিশেষ গুরুত্ব ছিল না।  আদানি মামলায় জেপিসি তদন্তের ন্যায্যতা শেষ হয়ে গিয়েছিল কারণ সুপ্রিম কোর্ট একটি ছয় সদস্যের কমিটি গঠন করেছে।  উল্লেখ্য, এ কমিটি গঠনে সরকারের কোনো ভূমিকা নেই।  সুপ্রিম কোর্ট নিজেই কমিটির সদস্য বাছাই করেছে।  এর পরেও বিরোধীরা সন্তুষ্ট হয়নি, কারণ এটি হওয়ার ছিল না। সংসদে হট্টগোল করার জন্য বিরোধীদের একটি অজুহাত দরকার ছিল।

 আশ্চর্যের বিষয় হল এই সময় শাসক দলও সংসদে তোলপাড় সৃষ্টি করে এবং লন্ডনে দেওয়া রাহুল গান্ধীর বক্তব্যের জন্য ক্ষমা চাওয়া উচিত বলে জোর দেয়। রাহুল গান্ধীর বক্তব্যে শাসকদলের আপত্তি থাকতে পারে কিন্তু তার ক্ষমা চাওয়ার বিষয়টি এত গুরুত্বপূর্ণ ছিলনা যার জন্য লোকসভার পুরো অধিবেশন নষ্ট করা যেতে পারে। রাহুল গান্ধী যদি তার বক্তব্য কে ভুল হিসাবে মানতে প্রস্তুত না হন তবে ক্ষমতাসীন দল বা অন্য কেউ কী করতে পারে?  

ক্ষমতাসীন দল নিজেই সংসদে তোলপাড় সৃষ্টি করে সংসদ চলতে না দেওয়ার ঘটনা খুবই বিরল, কিন্তু এবার তা ঘটল। ক্ষমতাসীন দল এবং বিরোধী দল উভয়েই আসল লক্ষ্য বিভিন্ন রাজ্যে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের পাশাপাশি ২০২৪ লোকসভা নির্বাচন। তাই দেশের লোকের স্বার্থের কথা ভুলে তারা মত্ত থাকলেন আসন্ন নির্বাচনের দলীয় এজেন্ডা ঠিক করতে।

খবরটি শেয়ার করুণ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন


সম্পাদকীয়

বিশ্ব উস্নায়ন এবং তাকে কেন্দ্র করে জলবায়ু পরিবর্তন একবিংশ শতাব্দীর অন্যতম বড় চ্যালেঞ্জ। এটি  ধীরে ধীরে একাধিক উপায়ে মানব সমাজকে ব্যাপকভাবে প্রভাবিত করছে এবং অদূর ভবিষ্যতে এটি প্রায় অনিয়ন্ত্রিত হয়ে যাবে বলে মনে করা হচ্ছে।ইতিমধ্যে এটি আমাদের পরিবেশ, অর্থনীতি এবং আমাদের জীবন যাত্রার উপর ব্যাপক ভাবে প্রভাব দেখাতে শুরু করেছে ।সদ্য হয়ে যাওয়া হিমাচল প্রদেশের বন্যা আমাদের সামনে বেশ কিছু প্রশ্ন তুলে দিল । এবছর হিমাচল প্রদেশে বর্ষাকালে রেকর্ড পরিমাণে বৃষ্টিপাত হয়েছে ,যা বিগত কয়েক বছরের তুলনায় বহু গুণ বেশী।  ভারতের আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, হিমাচল প্রদেশে ১ জুলাই থেকে ১২ জুলাই পর্যন্ত গড় বৃষ্টিপাত হয়েছে ২৪৯.৬ মিমি যা স্বাভাবিক গড় ৭৬.৬ মিমি থেকে প্রায় ৭০% বেশী .....বিস্তারিত পড়ুন

বৈধ নথি ছাড়া প্লেনে ওঠার চেষ্টা এটি কি নিছক কৌতুহল মেটানো

উত্তরাপথঃ এটি কি নিছক কৌতুহল না কি কিশোর দুস্ক্রিয়তা। সম্প্রতি বাংলাদেশ এর শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পাসপোর্ট, টিকিট বা বোর্ডিং পাশ কোনও কিছু ছাড়াই জুনায়েদ নামের ১২ বছরের এক শিশু বৈধ নথি ছাড়া বিনা বাধায় কুয়েত এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে উঠে পড়ে। তবে এবারই প্রথম নয়, এর আগেও প্লেনে চড়তে ব্যর্থ হয়ে বাড়িতে ফিরে গেছে। এবার কৌশল পালটে বিমানবন্দরে ঢোকে শিশুটি। এ ঘটনায় বিমানবন্দরের ইমিগ্রেশন ও সিকিউরিটি বিভাগের ১০ কর্মকর্তা-কর্মচারীকে কারণ দর্শাতে বলা  হয়েছে। গঠন করা হয়েছে পাঁচ সদস্যের একটি উচ্চপর্যায়ের তদন্ত কমিটি। যে এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটে এ ঘটনা ঘটে, সেই কুয়েত এয়ারলাইন্সকেও শোকজ করা হয়েছে।  বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল এম মফিদুর রহমান বলেছেন, ছেলেটি ব্রোকেন ফ্যামেলি .....বিস্তারিত পড়ুন

মহারানী পদ্মাবতী এবং জোহরের ঐতিহ্য: সাহস ও আত্মত্যাগের এক গল্প

উত্তরাপথঃ ভারতের ইতিহাসে, এমন অনেক গল্প রয়েছে যা সময়কে অতিক্রম করে আমাদের সম্মিলিত চেতনায় এক অমোঘ চিহ্ন রেখে যায়। তেমনই একটি গল্প মহারানী পদ্মাবতী ও জোহরের ঐতিহ্য। সাহস, সম্মান এবং ত্যাগের এই গল্প প্রজন্মের পর প্রজন্মকে অনুপ্রাণিত করেছে এবং আমাদের কল্পনাকে মুগ্ধ করে চলেছে।ভারতীয় ইতিহাসের পাতায় অত্যন্ত সুন্দরী ও সাহসী মহারানী পদ্মাবতী'র উল্লেখ আছে।  রানী পদ্মাবতী রানী পদ্মিনী নামেও পরিচিত।  রানী পদ্মাবতীর পিতা ছিলেন সিংহল প্রদেশের (শ্রীলঙ্কা) রাজা গন্ধর্বসেন।ইতিহাসে রানী পদ্মিনী তার ব্যতিক্রমী সৌন্দর্য, বুদ্ধিমত্তা এবং বীরত্বের জন্য পরিচিত হলেও, তিনি করুণা এবং শক্তির প্রতীক হিসেবেও পরিচিত ছিলেন। দিল্লির শক্তিশালী শাসক আলাউদ্দিন খিলজি তার অতুলনীয় সৌন্দর্যের কথা শুনে তাকে অধিকার করার সংকল্প করেছিলেন। .....বিস্তারিত পড়ুন

বিজ্ঞানীদের মতে, বিশ্ব উষ্ণায়নের প্রভাবে কিছু মাছের প্রজাতি সঙ্কুচিত হচ্ছে

উত্তরাপথঃ আমাদের গ্রহে বিশ্ব উষ্ণায়নের প্রভাব ক্রমশ স্পষ্ট হয়ে উঠছে, ক্রমবর্ধমান তাপমাত্রা আমাদের পরিবেশের বিভিন্ন দিককে প্রভাবিত করছে।সম্প্রতি বিজ্ঞানীরা আবিষ্কার করেছেন যে কিছু মাছের প্রজাতি সঙ্কুচিত হচ্ছে এর প্রভাবে। বিজ্ঞানীদের করা এই গবেষণাটি আমাদের মহাসাগরের উষ্ণায়নের প্রত্যক্ষ পরিণতি বলে মনে করা হচ্ছে। গবেষকদের একটি আন্তর্জাতিক দল দ্বারা পরিচালিা সাম্প্রতিক এই গবেষণায় বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলে মাছের জনসংখ্যা পরীক্ষা করা হয়েছে। বিজ্ঞানীরা দেখেছেন যে কড এবং হ্যাডকের মতো বাণিজ্যিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ সহ অসংখ্য প্রজাতির আকার গত কয়েক দশক ধরে হ্রাস পাচ্ছে। আকারের এই হ্রাস সামুদ্রিক বাস্তুতন্ত্র এবং মৎস শিল্প উভয় ক্ষেত্রে ভবিষ্যতে উদ্বেগের কারণ হতে পারে। .....বিস্তারিত পড়ুন

Scroll to Top