SAFF Championship: সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে ইগর স্টিমাচ লাল কার্ড দেখে মাঠের বাইরে

উত্তরাপথ

ভারত-পাক ম্যাচ মানেই চূড়ান্ত উত্তেজনা এই ছবি বেশ পরিচিত। ২২ গজ হোক বা ফুটবলের ময়দান। এ বারের সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে (SAFF Championship) প্রথম দিনই মুখোমুখি হয়েছিল সুনীল ছেত্রীর ভারত ও ইসা সুলেমানের পাকিস্তান। বেঙ্গালুরুর কান্তিরাভা স্টেডিয়ামে ভারত-পাক ম্যাচের সময় উত্তেজনা চরমে পৌঁছায়। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ২-০ ব্যবধানে এগিয়ে থাকাকালীন মেজাজ হারিয়ে বড়সড় ভুল করেন সুনীল ছেত্রীদের হেড কোচ যার ফলে তিনি লাল কার্ড দেখেন। ইগর স্টিমাচ লাল কার্ড দেখে মাঠের বাইরে যাওয়ার পর বাকি সময়টা ভারতীয় দলকে সাপোর্ট করেন তাদের সহকারি কোচ মহেশ গাওলি। তিনিই ম্যাচের শেষে বলেন, ‘আমাদের কোচের দোষ ছিল এটা ঠিক। কিন্তু এর জন্য যে শাস্তিটা তাঁকে পেতে হল সেটা বেশ কঠোর।’

আসলে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ২-০ এগিয়ে থাকাকালীন একসময় থ্রো-ইন কে পাবে তা নিয়ে টেকনিক্যাল এরিয়া থেকে নেপালের রেফারিকে ইশারা করেছিলেন সুনীলদের হেড কোচ ইগর স্টিমাচ। সেই সময় পাকিস্তানের ফুটবলার রাহিস নবি থ্রো-ইন নিচ্ছিলেন। তখনই মেজাজ হারিয়ে তাঁর হাত থেকে বল মাঠে ফেলে দেন ইগর স্টিমাচ। ব্যস তারপরই শুরু হয় তুমুল ঝামেলা। স্টিমাচের এই আচরণে ফুটবলাররা মারমুখী হয়ে ওঠেন। পুরো বিষয়টি থামানোর চেষ্টা করেন ভারতের ক্যাপ্টেন সুনীল ছেত্রী। দ্রুত দুই দলের ফুটবলাররা ফের ম্যাচে ফেরেন।

ভারতের কোচ ইগর স্টিমাচ এই প্রথম কোনও ম্যাচে লাল কার্ড দেখলেন তেমনটা কিন্তু নয়। কারণ ২০২১ সালের সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের সময়ও তিনি এক ম্যাচে লাল কার্ড দেখেছিলেন।

খবরটি শেয়ার করুণ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন


রাষ্ট্রীয় নৈশভোজে ২২ জুন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে যাবেন মোদী

উত্তরাপথ: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আগামী মাসের ২২ তারিখে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে যাচ্ছেন একটি রাষ্ট্রীয় নৈশভোজে যোগ দিতে।এই নৈশভোজে মোদীকে রাষ্ট্রপতি জো বিডেন এবং ফার্স্ট লেডি জিল বিডেন আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।এই সফরে মূলত দ্বিপাক্ষিক কৌশলগত সম্পর্কের ক্রমবর্ধমান গুরুত্বের উপর জোর দেওয়া হবে এবং একটি মুক্ত ইন্দো-প্যাসিফিক সম্পর্ক নিয়ে আলোচনা হবে বলে মনে করা হচ্ছে।   MEA বলেছে যে মোদী এবং বিডেন G20 সহ প্লুরি-পার্শ্বিক এবং বহুপাক্ষিক ফোরামে ভারত-মার্কিন সহযোগিতা জোরদার করার উপায়গুলিও .....বিস্তারিত পড়ুন

ওসাকা ক্যাসেল – ঐতিহাসিক এক দুর্গ ভ্রমণ

ঋতুপর্ণা চক্রবর্তী, টোকিও, জাপান: কেল্লা বা দুর্গ এই নাম শুনলেই কল্পনায় ঐতিহাসিক ঘটনায় মোড়া রোমাঞ্চকর এক ভ্রমণক্ষেত্রের দৃশ্য ভেসে ওঠে। জাপানে এমন শতাধিক দুর্গ আছে যার সৌন্দর্য আজও যেমন বিমুগ্ধকর ঠিক তেমনি তার অতীতের সাদা কালো দিনের গল্প দর্শনার্থীকে অবাক করে। প্রাচীনকাল থেকেই জাপানে দুর্গ তৈরি হয়ে আসছে, তবে ইতিহাস বলছে দেশের রাজনৈতিক টানাপড়েন ও গৃহ যুদ্ধের কারণে ১৫ শতকের গোড়া থেকে দুর্গের বিশেষ প্রয়োজন দেখা দেয়। সামন্ত যুগে, জাপান বেশ কিছু ছোট ছোট স্বাধীন রাষ্ট্রে বিভক্ত ছিল, যারা একে অপরের বিরুদ্ধে প্রায়ই যুদ্ধ ঘোষণা করত এবং .....বিস্তারিত পড়ুন

Scroll to Top