শিক্ষা ও স্বাস্থ্য


সমীক্ষায় প্রকাশ ভারতে ডায়াবেটিস ছাড়াও এই ব্যাধিগুলি বিস্ফোরক গতিতে বাড়ছে

উত্তরাপথঃ ICMR সমীক্ষা অনুসারে, ডায়াবেটিস ছাড়াও এই বিপাকীয় ব্যাধিগুলি ভারত এবং সমগ্র দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলে খুব দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে এবং মানুষকে প্রভাবিত করছে।ভারতে ডায়াবেটিস রোগ এত দ্রুত বৃদ্ধি পেয়েছে যে ভারতকে ডায়াবেটিসের হাব বলা হয়। কিন্তু, ICMR সমীক্ষা অনুসারে শুধু ডায়াবেটিসই নয়, ভারতের জনগণের উপর আরও অনেক বিপাকীয় রোগের ঝুঁকি বাড়ছে।ICMR (ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিক্যাল রিসার্চ) এর গবেষকদের একটি দল দ্বারা পরিচালিত এই গবেষণায় দেখা গেছে যে ভারতের অনেক রাজ্যে অসংক্রামক বিপাকীয় রোগের ঝুঁকি বাড়ছে। এই গবেষণাটি দ্য ল্যানসেট ডায়াবেটিস অ্যান্ড এন্ডোক্রিনোলজিতে প্রকাশিত হয়েছে। ICMR সমীক্ষা অনুসারে ডায়াবেটিস ছাড়াও ভারতে যে সমস্ত রোগের ঘটনা দ্রুত গতিতে বাড়ছে সেগুলি হল উচ্চ রক্তচাপ, স্থূলতা এবং ডিসলিপিডেমিয়া। গবেষকদের মতে, এই বিপাকীয় ব্যাধিগুলি ভারত এবং সমগ্র দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলে খুব দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে এবং মানুষকে প্রভাবিত করছে। এর আগেও অনেক গবেষণায় বলা হয়েছিল যে ভারতে ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ এবং ডিসলিপিডেমিয়া রোগীদের সংখ্যা অনেক বেশি। আইসিএম-এর এই গবেষণায়, ভারতে এই বিপাকীয় ব্যাধিগুলির সমস্যা বোঝার জন্য ২৮টি রাজ্য, ২টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল এবং দিল্লি-এনসিআর অঞ্চলে একটি সমীক্ষা চালানো হয়েছিল। .....বিস্তারিত পড়ুন

সাম্প্রতিক গবেষণা ত্বকের ক্যান্সার (মেলানোমা) সম্পর্কে প্রকাশ করল নতুন তথ্য

উত্তরাপথঃ এক্সট্রিম মেলানোমা হল এক ধরনের ত্বকের ক্যান্সার যা মেলানোসাইট নামে পরিচিত রঙ্গক-উৎপাদনকারী কোষ থেকে উৎপন্ন হয়। এটি মানুষের দেহে যেমন বাহু, হাত এবং পায়ে বিকাশ হতে পারে। এটি ত্বকের ক্যান্সারের সবচেয়ে আক্রমণাত্মক রূপগুলির মধ্যে একটি যা দ্রুত ছড়িয়ে পড়তে পারে যদি তাড়াতাড়ি সনাক্ত করা না হয় এবং দ্রুত চিকিৎসা করা না হয়। বিশ্বব্যাপী ত্বক-ক্যান্সার-সম্পর্কিত মৃত্যুর ৭৫% জন্য দায়ী।এতদিন ফর্সা ত্বকযুক্ত ব্যক্তিদের মেলানোমা হওয়ার ঝুঁকি কমাতে প্রায়শই সূর্যের এক্সপোজারের বিরুদ্ধে সতর্কতা অবলম্বন করার পরামর্শ দেওয়া হত, সেক্ষেত্রে বলা হত কালো ত্বকের ব্যক্তিদের এই রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা অনেক কম।    তবে সাম্প্রতিক মায়ো ক্লিনিকের গবেষণার মূল ফলাফলগুলিতে বলা হয় মেলানোমা অধিকাংশ ক্ষেত্রে কালো ত্বকের বর্ণযুক্ত ব্যক্তিদের মধ্যে পরে সনাক্ত করা হয়।দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা একটি  ভুল ধারণা যে কালো ত্বকের লোকেদের ত্বকের ক্যান্সারের ঝুঁকি নেই এই কারণে কালো ত্বকের ব্যক্তিদের মধ্যে এক অতিরিক্ত আত্মবিশ্বাস তৈরি হয়।এটি একটি বিপজ্জনক অবৈজ্ঞানিক ধারনা যার পরিণতি মারাত্মক  হতে পারে।এক্ষেত্রে সার্জিক্যাল অনকোলজিস্ট টিনা হাইকেন, এমডি, গবেষণার সিনিয়র লেখক এবং মায়ো ক্লিনিক কমপ্রিহেনসিভ ক্যান্সার সেন্টারের একজন গবেষকের মতে, "আমরা নন-হিস্পানিক কৃষ্ণাঙ্গ রোগীদের শ্বেতাঙ্গ রোগীদের সাথে তুলনা করেছি .....বিস্তারিত পড়ুন

COPD আক্রান্তদের জীবনযাত্রার মান উন্নত করতে পারে মাছ

উত্তরাপথঃ ক্রনিক অবস্ট্রাকটিভ পালমোনারি ডিজিজ (COPD) একটি  ফুসফুসের রোগ যা বিশ্বব্যাপী লক্ষ লক্ষ মানুষকে প্রভাবিত করে চলেছে। এতে শ্বাস প্রশ্বাসের সমস্যা সহ এবং প্রায়শই কাশি, শ্বাসকষ্ট এবং অত্যধিক শ্লেষ্মা উৎপাদনের মতো উপসর্গগুলি দেখা যায়।নতুন বিশ্লেষণ অনুসারে গবেষকরা বিভিন্ন গবেষণা বিশ্লেষণ করে দেখিয়েছেন যে ভিটামিন, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড সমৃদ্ধ খাবার, যেমন চর্বিযুক্ত মাছ COPD আক্রান্তদের ফুসফুসের সমস্যার বিভিন্ন উপসর্গ কমাতে সেই সাথে শ্বাস নেওয়ার সমস্যায় সাহায্য করতে পারে। হাঙ্গেরির সেমেলওয়েস বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা দীর্ঘস্থায়ী অবস্ট্রাকটিভ পালমোনারি ডিজিজ (সিওপিডি) তে আক্রান্ত কয়েক হাজার রোগীর উপর গবেষণা করেছেন। তারা ২০১৮ এবং ২০২৩ সালের মধ্যে করা তাদের গবেষণার ফলাফলগুলি নিউট্রিয়েন্ট জার্নালে প্রকাশ করেছেন। গবেষকদের পর্যালোচনায় দেখা গেছে যে, বিশেষ করে, প্রোটিন, ওমেগা-3 পলিআনস্যাচুরেটেড ফ্যাটি অ্যাসিড, এবং শাকসবজি সিওপিডি রোগীদের উপকার করে।সেমেলওয়েইস বিশ্ববিদ্যালয়ের পালমোনোলজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডঃ জ্যানোস ভার্গের মতে "পশ্চিমী প্রকার থেকে ভূমধ্যসাগরীয় প্রকারে খাদ্য পরিবর্তন করা প্রয়োজন,"। .....বিস্তারিত পড়ুন

ব্যায়াম শারীরিক সুস্থতার সাথে মানসিক চাপকে কম করতে পারে

উত্তরাপথঃ ব্যায়ামকে দীর্ঘকাল ধরে শারীরিক সুস্থতা বজায় রাখার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করা হয়, কিন্তু আপনি কি জানেন যে এটি মানসিক স্বাস্থ্যের উপরও ভালো প্রভাব ফেলতে পারে? সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা গেছে যে ব্যায়াম মানসিক চাপকে একেবারে কম করতে পারে।সেইসাথে এটি মানসিক চাপের নেতিবাচক প্রভাবগুলির বিরুদ্ধে লড়াই করার ক্ষেত্রে একটি প্রাকৃতিক এবং কার্যকর উপায়। আমেরিকান কলেজ অফ কার্ডিওলজির জার্নালে প্রকাশিত সমীক্ষায় দেখা গেছে সেই সমস্ত ব্যক্তি যারা ব্যায়াম সহ বিভিন্ন শারীরিক কাজকর্মে বেশি সক্রিয় ছিল তাদের মধ্যে হৃৎপিণ্ড সহ রক্তনালীর ব্যাধিগুলি অর্থাৎ Cardiovascular diseases কম ছিল ।গবেষকরা দেখেছেন যে একজন ব্যক্তি যখন ব্যায়াম করেন, তখন তার শরীর এন্ডোরফিন নিঃসরণ করে - যা "ফিল-গুড" হরমোন নামেও পরিচিত -  এটি উদ্বেগ এবং বিষন্নতার অনুভূতি কমাতে সাহায্য করে। এই হরমোনগুলি প্রাকৃতিক ভাবে ব্যথানাশক হিসাবে কাজ করে, এবং একজন ব্যক্তিকে সুস্থতা এবং সুখের অনুভূতি দেয়। অতিরিক্তভাবে, ব্যায়াম সেরোটোনিন এবং ডোপামিনের মতো নিউরোট্রান্সমিটারের উৎপাদন বাড়ায়,যা মানুষের মেজাজ নিয়ন্ত্রণে রাখে ,সেইসাথে সুখ এবং মানসিক শান্তির অনুভূতি দেয়। প্রসঙ্গত ২০১৯ সালে আনুমানিক ১৭.৯ মিলিয়ন মানুষ হৃৎপিণ্ড এবং রক্তনালীর ব্যাধিগুলিতে (Cardiovascular diseases )মারা গেছে, যা বিশ্বব্যাপী মৃত্যুর ৩২%। এই মৃত্যুর মধ্যে ৮৫% হার্ট অ্যাটাক এবং স্ট্রোকের কারণে হয়েছে। .....বিস্তারিত পড়ুন

খাবারে এই জিনিসগুলি আপনাকে স্থূলতা, বিপি, ডায়াবেটিসের শিকার করতে পারে

উত্তরাপথঃ সেন্টার ফর সায়েন্স অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টের সাম্প্রতিক এক গবেষণায় জানা গেছে, জাঙ্ক ফুড এবং প্যাকেটজাত খাবার খেয়ে আমরা জেনে বা অজান্তে নিজেদেরকে বিভিন্ন রোগের মধ্যে ঠেলে দিচ্ছি। গবেষণার ফলাফলে দেখা যায়, জাঙ্ক ফুডে অতিরিক্ত পরিমাণে লবণ, চর্বি, ট্রান্স ফ্যাট থাকে যা স্থূলতা, উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিস ও হৃদরোগের জন্য দায়ী। শক্তিশালী প্রক্রিয়াজাত খাদ্য শিল্প সংস্থা এবং  প্রশাসনের যোগসাজশ বা নির্লিপ্ততার কারণে জাঙ্ক ফুডকে ৬ বছর ধরে যাবতীয় প্রচেষ্টা সত্ত্বেও আইনের আওতায়  আনা যায়নি। জাঙ্ক ফুড ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানিগুলি ভুল তথ্য দিয়ে ভোক্তাদের বিভ্রান্ত করছে এবং খাদ্য নিয়ন্ত্রক সংস্থাগুলি নীরব দর্শক হয়ে বসে আছে। পরের বার, নামী –অনামী যে কোনও ব্র্যান্ডের  প্যাকেটজাত খাবারের প্যাকেট খোলার আগে বা  বার্গার , পিজ্জা খাওয়ার আগে দুবার ভাবুন। মাত্র ৩৫ গ্রাম বাদাম ক্র্যাকার চিবিয়ে আপনি প্রতিদিন নির্ধারিত লবণের ৩৫ শতাংশ এবং চর্বি ২৬ শতাংশ খাচ্ছেন। আর আপনি যদি পনির পিজ্জার সমান চারটি টুকরো খেয়ে থাকেন, তাহলে বুঝবেন আপনি দৈনিক চাহিদার প্রায় ৯৯.৯ শতাংশ লবণ এবং ৭২.৮ শতাংশ চর্বি খেয়েছেন। উচ্চ লবণ, উচ্চ চর্বি, ট্রান্স ফ্যাট এবং কার্বোহাইড্রেট এই ধরনের জাঙ্ক ফুডে ব্যবহার খুব মারাত্মক পরিণতি ডেকে আনতে পারে। চিকিৎসকরা বলছেন, এটি ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ , হৃদরোগ এমনকি ক্যান্সারের মতো অসংক্রামক রোগকে সরাসরি আমন্ত্রণ জানানোর মতো ঘটনা। .....বিস্তারিত পড়ুন

উচ্চ কোলেস্টেরল হলে ডিম খাওয়া কি উচিত ?

উত্তরাপথঃ কোলেস্টেরল এখন বেশীরভাগ লোকেদের ক্ষেত্রে এক সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। ভুল খাদ্যাভ্যাস এবং খারাপ জীবনযাত্রার কারণে মানুষের মধ্যে কোলেস্টেরলের সমস্যা দ্রুত বাড়ছে।আমাদের শরীরে দুই ধরনের কোলেস্টেরল রয়েছে, প্রথমটি হল ভাল কোলেস্টেরল এবং দ্বিতীয়টি খারাপ কোলেস্টেরল। শরীরে সুস্থ কোষ গঠনের জন্য ভালো কোলেস্টেরল প্রয়োজন। সেই সঙ্গে খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা বেড়ে গেলে তা শিরায় জমতে শুরু করে এবং ব্লকেজ হতে পারে। শরীরে খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা বেড়ে যাওয়ার কারণে উচ্চ রক্তচাপ, হার্ট অ্যাটাক এবং স্ট্রোকের মতো মারাত্মক রোগের ঝুঁকি বেড়ে যায়। এমন পরিস্থিতিতে কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণ করা খুবই জরুরি হয়ে পড়ে। উচ্চ কোলেস্টেরল কমাতে আপনার খাবারের দিকে বিশেষ যত্ন নিতে হবে। মানুষের প্রায়ই এই প্রশ্ন থাকে যে উচ্চ কোলেস্টেরলের ক্ষেত্রে ডিম খাওয়া কি উচিত ? ডিম আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী। এতে ভিটামিন-এ, ভিটামিন-বি6, ভিটামিন-বি12, আয়রন, প্রোটিন, ক্যালসিয়াম, ফোলেট এবং অসম্পৃক্ত ফ্যাটি অ্যাসিডের মতো অনেক পুষ্টি উপাদান রয়েছে, যা স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী। প্রতিদিন ডিম খেলে অনেক স্বাস্থ্য উপকার পাওয়া যায়। তবে কিছু স্বাস্থ্য সমস্যায় ডিম না খাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়। যাদের উচ্চ কোলেস্টেরল রয়েছে তাদের জন্য ডিম দীর্ঘদিন ধরে একটি বিতর্কিত খাবার। কিছু গবেষণা পরামর্শ দেওয়া হয়েছে যে ডিমের কোলেস্টেরল রক্তের কোলেস্টেরলের মাত্রাকে প্রভাবিত করে, .....বিস্তারিত পড়ুন

গরমের এই ৫টি সবজি যা ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখবে

উত্তরাপথঃ রক্তে শর্করা অর্থাৎ ডায়াবেটিস বর্তমান সময়ের একটি মারাত্মক সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। ডায়াবেটিস একটি দীর্ঘস্থায়ী রোগ যা বিশ্বব্যাপী লক্ষ লক্ষ মানুষকে প্রভাবিত করে চলেছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অনুমান সারা বিশ্বে ৪২২ মিলিয়নেরও বেশি লোকের ডায়াবেটিস রয়েছে, যার সংখ্যা ক্রমাগত বৃদ্ধি পাচ্ছে।মানুষ রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণের জন্য শুধুমাত্র ওষুধের উপর নির্ভর করতে বাধ্য হয়। কিন্তু সাম্প্রতিক বছরগুলিতে, ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে শাকসবজির ভূমিকার প্রতিও মানুষের আগ্রহ বাড়ছে। শাকসবজিতে ভিটামিন, খনিজ, ফাইবার এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সহ প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপাদান রয়েছে যা রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করতে পারে। কিছু শাকসবজি ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করার ক্ষমতার জন্য বিশেষভাবে শক্তিশালী, যা তাদের ডায়াবেটিস-বান্ধব খাদ্যে অপরিহার্য সংযোজন করে তোলে। আজ আমরা সবচেয়ে শক্তিশালী পাঁচটি সবজি সম্পর্কে বলতে যাচ্ছি, যেগুলির সেবন শুধুমাত্র আপনার উচ্চ রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখে না, ডায়াবেটিস সংক্রান্ত অনেক জটিলতা কমাতেও সাহায্য করে। ১। ব্রকলি- ব্রকলি, একটি প্রধান সবুজ সবজি হিসাবে বিবেচিত হয়। এটি ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য খুবই উপকারী। ব্রকলি ফাইবার, ভিটামিন এবং খনিজ সমৃদ্ধ, যা তাকে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য একটি দুর্দান্ত পছন্দ করে তোলে .....বিস্তারিত পড়ুন

12 3 4 5 6 7 8
Scroll to Top