বিজ্ঞানীরা বিশুদ্ধ বলের তৈরি একটি কণা (glueball) খুঁজে পেয়েছেন

উত্তরাপথঃ অর্ধ শতাব্দীরও বেশি সময় ধরে, কণা পদার্থবিদরা গ্লুবল (glueball)  নামে পরিচিত একটি অনন্য কণার অস্তিত্বের তত্ত্ব দিয়েছেন। গ্লুবল হল একটি তাত্ত্বিক কণা যা সম্পূর্ণরূপে গ্লুন দিয়ে তৈরি, শক্তিশালী পারমাণবিক বলের বল বাহক যা পারমাণবিক নিউক্লিয়াসে প্রোটন এবং নিউট্রনকে একত্রে ধারণ করে। ব্যাপক গবেষণা এবং পরীক্ষা সত্ত্বেও, গ্লুবলের অস্তিত্ব অধরা এবং নিশ্চিত করা চ্যালেঞ্জিং ছিল। সাম্প্রতিক বছরগুলিতে, বিজ্ঞানীরা গ্লুবলের (glueball) অনুসন্ধানে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি করেছেন। চীনের বেইজিং ইলেক্ট্রন-পজিট্রন কোলাইডার II (BEPC-II) ব্যবহার করে গবেষকরা সাম্প্রতিকতম আবিষ্কারটি উপহার দিয়েছে। যেখানে তারা X(2370) নামে পরিচিত একটি নতুন কণা সনাক্ত করেছে। এই নতুন আবিষ্কৃত কণাটির ভর রয়েছে 2370 MeV/c2, যা একটি গ্লুবলের (glueball) প্রত্যাশিত ভরের সাথে ঘনিষ্ঠভাবে সারিবদ্ধ।

একটি যুগান্তকারী আবিষ্কার যা কণা পদার্থবিদ্যার প্রচলিত ধারনাকে চ্যালেঞ্জ করে, বিজ্ঞানীরা সম্পূর্ণরূপে বিশুদ্ধ বল(force) দ্বারা গঠিত একটি কণা চিহ্নিত করতে পারেন। এই আবিষ্কার, যদি নিশ্চিত করা হয়, মহাবিশ্বে মৌলিক মিথস্ক্রিয়া সম্পর্কে আমাদের বোঝার বিপ্লব ঘটাতে পারে। সূক্ষ্ম গবেষণা এবং উন্নত পরীক্ষামূলক কৌশলগুলির মাধ্যমে, গবেষকরা প্রথাগত পদার্থ-ভিত্তিক রচনাকে অস্বীকার করে এমন একটি কণার অস্তিত্বের পরামর্শ দেওয়ার বাধ্যতামূলক প্রমাণ খুঁজে পেয়েছেন। এই নিবন্ধটি এই আবিষ্কারের প্রভাব এবং কণা পদার্থবিজ্ঞানের ক্ষেত্রের সম্ভাব্য প্রভাবগুলি নিয়ে আলোচনা করে৷

X(2370) আবিষ্কার গ্লুবলের অস্তিত্বকে সমর্থনকারী প্রমাণের ক্রমবর্ধমান দেহে যোগ করে। যদি বিজ্ঞানীরা একটি গ্লুবলের অস্তিত্ব নিশ্চিত করতে পারে, X(2370) হোক বা অন্য কণা, এটি মৌলিক মিথস্ক্রিয়াগুলির মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ অন্তর্দৃষ্টি প্রদান করবে যা সাবঅ্যাটমিক কণার আচরণকে নিয়ন্ত্রণ করে।কণা পদার্থবিদ্যার স্ট্যান্ডার্ড মডেল, যা মহাবিশ্বের মৌলিক কণা এবং শক্তিগুলিকে বর্ণনা করে, গ্লুবলের অস্তিত্বের ভবিষ্যদ্বাণী করে। একটি গ্লুবলের অস্তিত্ব নিশ্চিত করা স্ট্যান্ডার্ড মডেলের একটি উল্লেখযোগ্য বৈধতা হবে এবং কণা পদার্থবিদ্যায় গবেষণার জন্য নতুন পথ খুলে দিতে পারে।

গ্লুবল (glueball)  এবং তাদের বৈশিষ্ট্যগুলি অধ্যয়ন করা বিজ্ঞানীদের শক্তিশালী পারমাণবিক শক্তিকে আরও ভালভাবে বুঝতে সাহায্য করতে পারে, যা প্রকৃতির চারটি মৌলিক শক্তির মধ্যে একটি। শক্তিশালী শক্তি পারমাণবিক নিউক্লিয়াসে প্রোটন এবং নিউট্রনকে একত্রে আবদ্ধ করার জন্য দায়ী, এবং এর প্রক্রিয়াগুলি বোঝা সাবঅ্যাটমিক জগতের রহস্য উদঘাটনের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ।X(2370) এবং অন্যান্য সম্ভাব্য গ্লুবল প্রার্থীদের আবিষ্কার কণা পদার্থবিদ্যার ক্ষেত্রে একটি বড় অগ্রগতির প্রতিনিধিত্ব করে। এই অধরা কণাগুলির অনুসন্ধান এবং অধ্যয়ন চালিয়ে যাওয়ার মাধ্যমে, বিজ্ঞানীরা শক্তিশালী শক্তির গোপনীয়তা আনলক করতে এবং মহাবিশ্বের মৌলিক বিল্ডিং ব্লকগুলির একটি গভীর উপলব্ধি অর্জনের আশা করেন।

সামগ্রিকভাবে, গ্লুবলের অনুসন্ধান গবেষণার একটি আকর্ষণীয় এবং চ্যালেঞ্জিং ক্ষেত্র যা মহাবিশ্বকে পরিচালনা করে এমন মৌলিক শক্তি এবং কণা সম্পর্কে আমাদের বোঝার বিপ্লব ঘটাতে সক্ষম। প্রযুক্তি এবং পরীক্ষা-নিরীক্ষায় ক্রমাগত অগ্রগতির সাথে, বিজ্ঞানীরা গ্লুবলের(glueball) দীর্ঘস্থায়ী রহস্য এবং কণা পদার্থবিজ্ঞানের ভবিষ্যতের জন্য এর প্রভাব সমাধানের কাছাকাছি চলে যাচ্ছেন।

খবরটি শেয়ার করুণ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন


বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ের রায়ের বিরুদ্ধে রাস্তায় শিলিগুড়ির প্রাথমিক শিক্ষকরা

উত্তরাপথ: ৩৬ হাজার প্রাথমিক শিক্ষকের চাকরি বাতিল করে দেন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। তার প্রতিবাদে শনিবার শিলিগুড়িতে পথে নেমে বিক্ষোভ শুরু করেন শিলিগুড়ির প্রাথমিক শিক্ষকরা। ২০১৪ সালের টেট পরীক্ষার ভিত্তিতে ২০১৬ সালে নিযুক্ত হয়েছিলেন ৪২ হাজার ৫০০ শিক্ষক। এই নিয়োগে ইন্টারভিউতে ব্যাপক দুর্নীতির অভিযোগ ওঠে। এমনকি নিয়োগ পরীক্ষায় অ্যাপটিটিউড টেস্টও নেওয়া হয়নি বলে ইন্টারভিউয়াররাই বিচারপতির কাছে সাক্ষ্য দিয়ে জানিয়েছেন। তার ভিত্তিতে ৩৬ হাজার প্রাথমিক শিক্ষকের চাকরি বাতিল করে দেন কলকাতা .....বিস্তারিত পড়ুন

কতো অজানা রে

মৈত্রেয়ী চৌধুরী: ইতিহাস বিষয়ে আলোচনা করতে গেলেই আমাদের মনে যে সব সৌধের প্রসঙ্গ মনে আসে তারমধ্যে পার্লামেন্ট ভবন একটা অবশ্য দ্রষ্টব্য স্থান। বহু পর্যটক এই ভবন দেখতে যান. কিন্তু জানেন কি, এই পার্লামেন্ট ভবনের ডিজাইন কে বানিয়েছিলেন ? 10 জনকে জিজ্ঞেস করলে 9 জনই বলতে পারবেন না। যাঁরা খুব ইতিহাস নিয়ে ঘাঁটাঘাঁটি করেন অথবা গুগুল সার্চ করে থাকেন, তাঁরা হয়তো উত্তরটা দিতে পারবেন। পার্লামেন্ট ভবনের ডিজাইন বানিয়েছিলেন বিখ্যাত ব্রিটিশ স্থপতি এডুইন লুটিয়েন। তাঁর সহকারী ছিলেন আরেক ব্রিটিশ স্থপতি হার্বার্ট বেকার। 1927 খ্রিস্টাব্দে এই ভবনটির নির্মাণ সম্পূর্ণ হয় এবং ব্রিটিশ .....বিস্তারিত পড়ুন

Scroll to Top