Political Violence: রাজনৈতিক সন্ত্রাস করে এতবড় জয় অর্জন করা সম্ভব ?

উত্তরাপথ

পশ্চিমবঙ্গে ত্রি-স্তরীয় পঞ্চায়েত নির্বাচন ও Political Violence যেন একে অপরের পরিপূরক হয়ে গেছে । এবারের নির্বাচনে ব্যাপক ভাবে জয়লাভ করেছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দল  তৃণমূল কংগ্রেস ,বিজেপি দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে, এবং বাম দল এবং কংগ্রেসের জোট সবচেয়ে কম আসন পেলেও ভোটের  হার আগের বারের থেকে অনেকটাই বেড়েছে। তৃণমূল কংগ্রেসের এই জয় আগামী লোকসভা নির্বাচনের আগে তাদের দলের কর্মীদের বাড়তি উৎসাহ দেবে সন্দেহ নাই।

তবে এত বড় জয়ের পরও জাতীয় স্তরে মমতা সমালোচনার স্বীকার । কারণ তার রাজ্যে নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় এখনও পর্যন্ত ৪৫ জন প্রান হারিয়েছে যার দায় রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে তিনি কোনও ভাবেই অস্বীকার করতে পারেন না।অন্যদিকে বিজেপি, বাম এবং কংগ্রেস, টিএমসিকে পুরো রাজনৈতিক হিংসার জন্য দায়ী করেছেন। তাদের যুক্তি রাজ্য নির্বাচন কমিশন পঞ্চায়েত নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করার পর থেকেই রাজ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে। সেই সময় বারবার অভিযোগ করা হয়েছিল যে নির্বাচনে  ৬০,০০০ প্রার্থীর মনোনয়ন জমা দেওয়ার জন্য পর্যাপ্ত দিন নেই। কিন্তু তা সত্বেও কমিশনের পক্ষ থেকে দিন বাড়ানো হয়নি।ফলে পরের দিন থেকেই, রাজ্য জুড়ে বেশ কয়েকটি জায়গায় সহিংসতার ঘটনা ঘটে।

যদিও ক্ষমতাসীন তৃণমূল কংগ্রেস (টিএমসি) রাজনৈতিক সন্ত্রাস নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হওয়ার জন্য কেন্দ্রীয় বাহিনীকে দায়ী করেছে। ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর এবং বিরোধী দলগুলি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে “গণতন্ত্র চূর্ণ করার” জন্য অভিযুক্ত করেছে৷।  বিজেপি, বাম এবং কংগ্রেস টিএমসিকে তাদের প্রার্থীদের মনোনয়ন জমা দেওয়া থেকে নির্বাচনে অংশ নেওয়া পুরো পর্বে বাঁধা দেওয়া সহ ভয় দেখানোর অভিযোগ করেছে এবং রাজনৈতিক সন্ত্রাসের জন্য দায়ী করেছে। অন্যদিকে, টিএমসি নিজেদের নির্দোষ বলে দাবি করেছে ।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য ২০১৮ সালে, টিএমসি ৯৫% এর বেশি গ্রাম পঞ্চায়েত জিতেছিল, যার মধ্যে ৩৪% আসন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায়  জিতেছিল, যা বাংলা পঞ্চায়েত নির্বাচনের ইতিহাসে একটি রেকর্ড। সেইসময়, বিরোধীরা অভিযোগ করেছিল তাদের মনোনয়ন জমা দিতে দেওয়া হয়নিএরসেই সময় টিএমসিকে বড় ধরনের সহিংসতা এবং ভোট কারচুপির অভিযোগে সমালোচনার মুখোমুখি হয়েছিল এবং পুলিশের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছিল।

এতসবের পরও একটা প্রশ্ন থেকে যায় এতবড় জয় কি শুধুমাত্র রাজনৈতিক সন্ত্রাস (Political Violence) করে অর্জন করা সম্ভব ? না কি বিরোধীদের সাংগঠনিক দুর্বলতা ঢাকার এক মরীয়া চেষ্টা ।

খবরটি শেয়ার করুণ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন


SAFF Final: কুয়েতকে হারিয়ে সাফ চ্যাম্পিয়ন ভারত

উত্তরাপথ: SAFF Final (সাফ) ফুটবলের শিরোপা হাতছাড়া করেনি এবারও ভারত। শ্বাসরুদ্ধকর লড়াই শেষে শিরোপা নিজেদের কাছেই রেখে দিল Blue Tigers -রা। এই নিয়ে রেকর্ড ৯ম বার এই শিরোপা নিজেদের কাছে রাখল সুনিল ছেত্রীরা। টাইব্রেকারে তারা কুয়েতকে হারিয়েছে ৫-৪ ব্যবধানে । তবে এই জয় খুব সহজে পায়নি সুনিল ছেত্রীরা। বেঙ্গালুরুর শ্রী কান্তিরাভা স্টেডিয়ামে কুয়েতের বিপক্ষে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই শেষে শিরোপা দখলে নিল ভারত। নির্ধারিত সময়, অতিরিক্ত সময় অতঃপর টাইব্রেকার; তবুও নিষ্পত্তি হয়নি শিরোপার। অবশেষে ভারত শিরোপা বুঝে পায় সাডেন ডেথে। .....বিস্তারিত পড়ুন

Camel Cloning: দুবাই ‘উট' ক্লোনিং‘এর জন্য খবরের শিরোনামে

উত্তরাপথ: দুবাই, তার ঐশ্বর্য এবং জাঁকজমকের জন্য পরিচিত হলেও এবার দুবাই তার ‘উট ক্লোনিং ‘এর জন্য খবরের শিরোনামে।এবার আশা যাক ক্লোনিং কি তা নিয়ে আলোচনায়। ক্লোনিং হল প্রাকৃতিক বা কৃত্রিম উপায়ে অভিন্ন জিনোম সহ পৃথক জীব উৎপাদনের প্রক্রিয়া অর্থাৎ জীবের অভিন্ন অনুলিপি তৈরি করার প্রক্রিয়া।২০০৯সালে বিশ্বের প্রথম উটের ক্লোনিংয়ের নেতৃত্ব দেওয়া, নিসার ওয়ানি এখন দুবাইয়ের একটি ল্যাবে বছরে কয়েক ডজন উটের প্রতিলিপি তৈরি করছেন যা উপসাগরীয় অঞ্চলের এখন একটি বড় ব্যবসা যেখানে উট লালন-পালন করা হয় সৌন্দর্য ও রেসিং .....বিস্তারিত পড়ুন

Gond Tribe: মধ্য প্রদেশে গোন্ড উপজাতির সমৃদ্ধ সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য সংরক্ষণ

গার্গী আগরওয়ালা মাহাতো: গোন্ড উপজাতি(Gond tribe) বিশ্বের বৃহত্তম উপজাতি গোষ্ঠীগুলির মধ্যে একটি। এটি ভারতের বৃহত্তম উপজাতি । এদের গায়ের রং কালো, চুল কালো, ঠোঁট মোটা, নাক বড় ও ছড়ানো। তারা অলিখিত ভাষা গোন্ডি ভাষাতে কথা বলে, যা দ্রাবিড় ভাষার সাথে সম্পর্কিত। গোন্ড উপজাতির একটি দীর্ঘ এবং সমৃদ্ধ ইতিহাস রয়েছে, বিশ্বাস করা হয় যে তাদের শিকড় প্রাক-আর্য যুগে্র । গোন্ডদের সবচেয়ে গৌরবময় রাজা ছিলেন সংগ্রাম শাহ এবং দলগত শাহ, যারা ম্ধ্যপ্রদেশের গন্ডয়ানা রাজ্যের  বিস্তীর্ণ এলাকায় অনেকগুলি দুর্গ তৈরি করেছিলেন। মাত্র ৩০ বছর বয়সে দলগত .....বিস্তারিত পড়ুন

Scroll to Top