Super Buffalo: সুলতান, যুবরাজের পর রাজা এখন উদয়পুরে

উত্তরাপথ

সুলতান ও যুবরাজের পর রাজা (Super Buffalo)এখন উদয়পুরে। গত দুই দিন যাবৎ রাজস্থানের উদয়পুরে কিশান মহৎসব শুরু হয়েছে। এই মহৎসবে বিভিন্ন জায়গা থেকে হাজার হাজার কৃষক যোগ দেয়।উৎসবে আগত কৃষকদের পশুপালনে উৎসাহিত করতে হাজির হন ‘‘চুরু কা রাজা’। বর্তমানে উদয়পুরের কিশান মহৎসবের মূল আকর্ষণই এই রাজা ।এই রাজার  বর্তমান বাজার মূল্য শুনলে চোখ মাথায় উঠবে। রাজার মালিক পবন কুমার জাঠের মতে রাজার বর্তমান বাজার মূল্য ৪ কোটি টাকা ।পুস্কর পশুমেলাতে একবার রাজার দাম উঠেছিল ৮ কোটি টাকা । রাজার এই দামের পেছনে আসল কারণ হল রাজার সিমেন। প্রতিমাসে রাজার মালিক সিমেন বিক্রি করে ৩-৪ লাখ টাকা উপার্জন করে।

রাজা হল মুরা জাতের ষাঁড়। এদের কানের শেষপ্রান্ত মুড়ানো থাকে এবং ওজন সাধারণ ষাঁড়দের তুলনায় তিনগুন হয়। এক একটি মুরা জাতের ষাঁড়ের ওজন ১৫০০ কেজির বেশী হয়। এদের উচ্চতা ৫ ফিটের বেশী হয় এবং লম্বা প্রায় ৭ ফিট মতো হয়। রাজার মালিকের কথায় ,রাজাকে সারাদিন কুলার চালিয়ে রাখা হয় এবং বিকেলের দিকে বাইরে ঘুরতে নিয়ে যাওয়া হয়। রাজার পরিচর্যার জন্য মালিকের মাসে ২৫-৩০ হাজার টাকা খরচ হয়।

তবে রাজাই প্রথম নয় এর আগে সুলতান ছিল যার দাম দক্ষিণ আফ্রিকার এক কৃষক বলেছিল ২১ কোটি টাকা ।হরিয়ানার সুলতানের মালিকের নাম নরেশ বেনিয়াল। সুলতানের পেছনে মালিকের প্রতিদিন ২০০০-৩০০০ খরচ হত। সুলতানের খাবারে প্রতিদিন দেশী ঘি এর মলিদা ,গাজর ও বিভিন্ন শস্য থাকত । তবে বর্তমানে সুলতান আর নেই । ১৪ বছর বয়সে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যায়।

 ভারতের সবচেয়ে দামী ষাঁড় হল কুরুক্ষেত্রের যুবরাজ।এটি লম্বায় ৭ ফিট এবংপ্রায় ৬ ফিট এর উচ্চতা। এর একবারের সিমেন থেকে ৫০০ ডোজ বানানো যায় ।যুবরাজ ৪ বছরে ১.৫ লক্ষ বেবির বাবা ।এদের থেকে যেসব বেবি হয় তারাও এই একই জাতীয় ষাঁড় হয়। প্রতিদিন এরা ২০ কেজি দুধ দেয়।  

খবরটি শেয়ার করুণ

1 thought on “Super Buffalo: সুলতান, যুবরাজের পর রাজা এখন উদয়পুরে”

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন


জলবায়ু পরিবর্তন আমাজনের রেইনফরেস্টের কিছু অংশকে সাভানাতে রূপান্তরিত করতে পারে

উত্তরাপথঃ আমাজন রেইনফরেস্ট, যাকে "পৃথিবীর ফুসফুস" হিসাবে উল্লেখ করা হয়। এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ বাস্তুত্তন্ত্র যা বিশ্বব্যাপী জলবায়ু নিয়ন্ত্রণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।সম্প্রতি প্রসিডিংস অফ দ্য ন্যাশনাল একাডেমি অফ সায়েন্সেসের বৈজ্ঞানিক জার্নালে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে একটি নতুন তত্তের বর্ণনা করা হয়েছে ,সেখানে বলা হয়েছে কীভাবে বর্ষার মৌসুমে বিকল্প বন্যা এবং শুষ্ক মৌসুমে খরা, যাকে ডবল-স্ট্রেস বলা হয়, বন প্রতিষ্ঠাকে সীমিত করছে।উদ্বেগজনক গবেষণাতে আরও বলা হচ্ছে যে, জলবায়ু পরিবর্তন-প্ররোচিত খরা আমাজন রেইনফরেস্টের কিছু অংশকে সাভানাতে রূপান্তরিত করতে পারে, যা জীববৈচিত্র্য এবং সামগ্রিকভাবে গ্রহের জন্য সম্ভাব্য ধ্বংসাত্মক পরিণতি আনতে পারে। .....বিস্তারিত পড়ুন

সম্পাদকীয়

বিশ্ব উস্নায়ন এবং তাকে কেন্দ্র করে জলবায়ু পরিবর্তন একবিংশ শতাব্দীর অন্যতম বড় চ্যালেঞ্জ। এটি  ধীরে ধীরে একাধিক উপায়ে মানব সমাজকে ব্যাপকভাবে প্রভাবিত করছে এবং অদূর ভবিষ্যতে এটি প্রায় অনিয়ন্ত্রিত হয়ে যাবে বলে মনে করা হচ্ছে।ইতিমধ্যে এটি আমাদের পরিবেশ, অর্থনীতি এবং আমাদের জীবন যাত্রার উপর ব্যাপক ভাবে প্রভাব দেখাতে শুরু করেছে ।সদ্য হয়ে যাওয়া হিমাচল প্রদেশের বন্যা আমাদের সামনে বেশ কিছু প্রশ্ন তুলে দিল । এবছর হিমাচল প্রদেশে বর্ষাকালে রেকর্ড পরিমাণে বৃষ্টিপাত হয়েছে ,যা বিগত কয়েক বছরের তুলনায় বহু গুণ বেশী।  ভারতের আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, হিমাচল প্রদেশে ১ জুলাই থেকে ১২ জুলাই পর্যন্ত গড় বৃষ্টিপাত হয়েছে ২৪৯.৬ মিমি যা স্বাভাবিক গড় ৭৬.৬ মিমি থেকে প্রায় ৭০% বেশী .....বিস্তারিত পড়ুন

আগামী ৩ বছরে শূন্য বর্জ্য হওয়ার পথে রাজস্থানের প্রথম গ্রাম

উত্তরাপথঃ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিভাগের একটি প্রকল্পের আওতায় আঁধি গ্রামে এই পরিবর্তন করা হচ্ছে।জয়পুর থেকে ৫০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত আন্ধি গ্রাম।আগামী তিন বছরে এই গ্রাম শূন্য বর্জ্য হয়ে যাবে বলে মনে করা হচ্ছে ।আন্ধি গ্রামের এই সম্পূর্ণ রূপান্তরটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিভাগের একটি প্রকল্পের অধীনে করা হচ্ছে।  এই প্রকল্পটি সবুজ প্রযুক্তির হস্তক্ষেপ ব্যবহার করে আন্ধি গ্রামকে জিরো ওয়েস্ট মডেলে রূপান্তরিত করার কাজ চলছে ।  এই প্রকল্পটি ২১ মার্চ ২০২২ এ শুরু হয়েছে,  প্রকল্প পরিচালক বলেন, এ গ্রামের অবস্থা আগে খুবই খারাপ ছিল।আগে এই গ্রামের লোকেদের কঠিন বর্জ্য আলাদা করার কোনও ধারনা ছিল না । .....বিস্তারিত পড়ুন

মানব-চালিত রোবট ARCHAX এর সাথে দেখা করুন

উত্তরাপথঃসাম্প্রতিক বছরগুলিতে, প্রযুক্তিগত অগ্রগতি আমাদের এক ধাপে অনেকটা এগিয়ে নিয়ে এসেছে, আজ রোবটগুলি আমাদের দৈনন্দিন জীবনের একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ। স্বয়ংক্রিয় সহকারী থেকে স্ব-ড্রাইভিং গাড়ি পর্যন্ত,সর্বত্র আজ রোবটের অবাধ উপস্থিতি। ARCHAX মানব-চালিত এই রোবট  এমনই এক উদ্ভাবন যা বিজ্ঞানী এবং সাধারণ জনগণ উভয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে । অটোনোমাস রোবোটিক কম্প্যানিয়ন উইথ হিউম্যান অ্যাসিসট্যান্সের সংক্ষিপ্ত আর্ক্যাক্স, এর একটি যুগান্তকারী সৃষ্টি যা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার (AI) বুদ্ধিমত্তাকে একজন মানব অপারেটরের দক্ষতা এবং সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতার সাথে একত্রিত করে তৈরি করা হয়েছে।জাপানের Tsubame Industries ARCHAX তৈরি করেছে।এটি একটি মানুষের আকারের ককপিট সহ একটি বিশাল ট্রান্সফরমার রোবট। .....বিস্তারিত পড়ুন

Scroll to Top