ISKCONঃ ইসকন কলকাতার মানেকার বিরুদ্ধে ১০০ কোটির মানহানির নোটিশ

উত্তরাপথঃ সম্প্রতি ইসকনের বিরুদ্ধে মানেকা গান্ধীর বক্তব্যের জেরে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মানেকা গান্ধীর সমস্যা বাড়তে পারে। ইসকন কলকাতার ভাইস প্রেসিডেন্ট রাধারমন দাস বলেছেন যে তিনি মানেকা গান্ধীর বিরুদ্ধে ১০০ কোটি টাকার মানহানির দাবি করবেন।  এ বিষয়ে মানেকা গান্ধীকে নোটিশ জারি করা হয়েছে।  দাস বলেন, একজন সাংসদ কীভাবে কোনো তথ্য ছাড়াই এমন মিথ্যা অভিযোগ করতে পারেন?  রাধারমন দাস বলেন, ‘মানেকা গান্ধীর বক্তব্য খুবই দুঃখজনক।  এটি বিশ্বজুড়ে আমাদের অনুসারীদের ক্ষতি করেছে।  আমরা মানেকা গান্ধীর বিরুদ্ধে ১০০ কোটি টাকার মানহানির মামলা করছি।  আমরা তাদের নোটিশ পাঠিয়েছি।  একজন সাংসদ, যিনি কেন্দ্রীয় মন্ত্রীও ছিলেন, কীভাবে সমাজের এত বড় অংশের বিরুদ্ধে কোনও তথ্য ছাড়াই মিথ্যা বলতে পারেন?

 অন্যদিকে এক বিবৃতিতে মানেকা গান্ধী অভিযোগ করেছেন যে ইন্টারন্যাশনাল সোসাইটি ফর কৃষ্ণ কনসায়নেস (ইসকন)-এর গোয়ালঘরে কসাইদের কাছে গরু বিক্রি করা হয়।  গান্ধী বলেছিলেন যে ‘ইসকন গরুর আশ্রয়কেন্দ্র তৈরি করে অনেক সুবিধা নিয়েছে এবং এর ভিত্তিতে, তারা সরকারের কাছ থেকে জমির আকারে একটি বিশাল সুবিধাও নিয়েছে।  ইসকন তার সমস্ত গরু কসাইদের কাছে বিক্রি করছে এবং তাদের চেয়ে বেশি কিছু করছে না।  মানেকা গান্ধী পশুদের অধিকারের জন্য লড়াই করে চলেছেন।

 ইসকন সোসাইটি মানেকা গান্ধীর এই বক্তব্যে তীব্র আপত্তি প্রকাশ করেছে এবং মানেকা গান্ধীর অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে।  ইসকন একটি সরকারী বিবৃতি জারি করে বলেছে যে ইসকন গরু এবং ষাঁড়ের সুরক্ষার জন্য একটি নজরদারি করেছে এবং শুধুমাত্র ভারতে নয়, সারা বিশ্বে গরুর সেবা করার জন্য নিবেদিত হয়েছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মানেকা গান্ধী বরাবরই পশুপ্রেমী হিসেবে পরিচিত । তাঁকে বারবার পশুহত্যার বিরুদ্ধে সরব হতে দেখা গিয়েছে। সেই থেকেই আচমকা তিনি ইসকনের বিরুদ্ধে একটি ভিডিয়োতে বিস্ফোরক অভিযোগ তোলেন। মানেকাকে ভিডিয়োতে বলতে শোনা যায়, ‘দেশের মধ্যে সবচেয়ে বড় প্রতারক হল ইসকন। ওরা গোশালা চালায় এবং সুবিধা নেয় সরকারের থেকে।’ এরপর তিনি নিজের অন্ধ্রপ্রদেশের ইসকনের অনন্তপুর গোশালা পরিদর্শনের অভিজ্ঞাতা জানান। সেখানে তিনি যতগুলি গোরু দেখেছিলেন সবক’টি দুগ্ধবতী। তাদের মধ্যে এমন কোনও গোরু ছিল না যারা দুধ দেয় না। বাছুরও ছিল না কোনও। অর্থাৎ খুব সহজেই অনুমেয় বাছুরগুলিকে বিক্রি করে দেওয়া হয়েছে। কসাইদের কাছে গোরুগুলিকে বিক্রি করে দেয় ইসকন। এরপর রাস্তায় গিয়ে ওরা হরে রাম হরে কৃষ্ণ গাইতে থাকে।’

বিস্ফোরক এই অভিযোগ ঘিরে সরগরম হয়ে ওঠে দেশ। মানেকা গান্ধীর অভিযোগকে উড়িয়ে দেয় ইসকন। তাদের দাবি, এই বক্তব্য সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। ইসকনের শুভাকাঙ্খী হিসেবেই পরিচিত মানেকা গান্ধী। তাঁর থেকে এমন মন্তব্য কাম্য নয় বলেই জানায় এই ধর্মীয় সংস্থা।

খবরটি শেয়ার করুণ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন


বিজ্ঞানীদের মতে, বিশ্ব উষ্ণায়নের প্রভাবে কিছু মাছের প্রজাতি সঙ্কুচিত হচ্ছে

উত্তরাপথঃ আমাদের গ্রহে বিশ্ব উষ্ণায়নের প্রভাব ক্রমশ স্পষ্ট হয়ে উঠছে, ক্রমবর্ধমান তাপমাত্রা আমাদের পরিবেশের বিভিন্ন দিককে প্রভাবিত করছে।সম্প্রতি বিজ্ঞানীরা আবিষ্কার করেছেন যে কিছু মাছের প্রজাতি সঙ্কুচিত হচ্ছে এর প্রভাবে। বিজ্ঞানীদের করা এই গবেষণাটি আমাদের মহাসাগরের উষ্ণায়নের প্রত্যক্ষ পরিণতি বলে মনে করা হচ্ছে। গবেষকদের একটি আন্তর্জাতিক দল দ্বারা পরিচালিা সাম্প্রতিক এই গবেষণায় বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলে মাছের জনসংখ্যা পরীক্ষা করা হয়েছে। বিজ্ঞানীরা দেখেছেন যে কড এবং হ্যাডকের মতো বাণিজ্যিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ সহ অসংখ্য প্রজাতির আকার গত কয়েক দশক ধরে হ্রাস পাচ্ছে। আকারের এই হ্রাস সামুদ্রিক বাস্তুতন্ত্র এবং মৎস শিল্প উভয় ক্ষেত্রে ভবিষ্যতে উদ্বেগের কারণ হতে পারে। .....বিস্তারিত পড়ুন

ধানের সাধ ভক্ষণ : জিহুড়

ড.  নিমাইকৃষ্ণ মাহাত: আশ্বিন সংক্রান্তিতে কৃষক সমাজের মধ্যে জিহুড় পার্বণ পালিত হয়। কৃষক সাধারণের মধ্যে জিহুড় পার্বণের একটি বিশেষ তাৎপর্য রয়েছে। জিহুড় অর্থাৎ আশ্বিন সংক্রান্তির সময় বহাল জমিতে লাগানো ধান বা বড়ান ধানে থোড় আসতে শুরু করে। সুতরাং ধান গাছ গর্ভাবস্থায় থাকে। মানুষের ক্ষেত্রে গর্ভাবস্থায় নানা ধরনের আচার-সংস্কার পালন করা হয়। এই সংস্কারগুলির অন্যতম হলো " ন' মাসি " অর্থাৎ গর্ভাবস্থার নবম মাসে যে আচার -অনুষ্ঠান পালন করা হয়। এর কিছুদিন পরেই সন্তানজন্মগ্রহণ করে। মানব- সমাজের গর্ভাবস্থাজনিত এই ধরনের আচার সংস্কারের সঙ্গে ধান গাছের গর্ভাবস্থার কারণে পালনীয় অনুষ্ঠান জিহুড়ের সাদৃশ্য থাকে দেখা যায়। সেই জন্য অনেকে জিহুড় অনুষ্ঠানকে ধান গাছের 'সাধভক্ষণ'  বলে থাকেন। জিহুড়-এ ধান গাছ .....বিস্তারিত পড়ুন

তিব্বতে ওজোন স্তরের গর্ত গ্রীষ্মকালীন বৃষ্টিপাতকে প্রভাবিত করছে

উত্তরাপথঃ ওজোন স্তর পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলের একটি অপরিহার্য দিক, যা স্ট্রাটোস্ফিয়ারে অবস্থিত। এটি সূর্য দ্বারা নির্গত ক্ষতিকারক অতিবেগুনী (UV) বিকিরণ থেকে আমাদের রক্ষা করতে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। ওজোন স্তরের অবক্ষয় , বিশ্বজুড়ে জলবায়ুর ধরনের উপর বিরূপ প্রভাব ফেলতে শুরু করেছে । এরকম একটি পরিণতি হল তিব্বতে ওজোন স্তরের গর্ত যা সেখানকার গ্রীষ্মকালীন বৃষ্টিপাতকে প্রভাবিত করছে।তিব্বতকে, প্রায়শই "বিশ্বের ছাদ" হিসাবে উল্লেখ করা হয়।এটি একটি বৈচিত্র্যময় বাস্তুতন্ত্র এবং অনন্য আবহাওয়ার নিদর্শন সহ এক বিশাল অঞ্চল। এর বিশাল এলাকা জুড়ে উচ্চ পর্বতমালা, মালভূমি এবং গভীর উপত্যকা রয়েছে । .....বিস্তারিত পড়ুন

রাজা মহম্মদ ও সি সেল মিউজিয়াম

প্রিয়াঙ্কা দত্তঃ রাজা মহম্মদ, এমন একজন মানুষের নাম, যার ব্যাক্তিগত ইচ্ছার কাছে হেরে যায় সব বাধা। ইচ্ছার চেয়ে বলা ভালো নেশা। সামুদ্রিক প্রাণীদের খোল সংগ্রহের নেশা। যা তাঁকে ছোটবেলা থেকেই ছুটিয়ে নিয়ে বেরিয়েছে প্রায় তিরিশ বছর ধরে। আর সেই দীর্ঘ পথের শেষে , তিনি সম্পূর্ন ব্যক্তিগত উদ্যোগে গড়ে তুলেছেন এশিয়ার বৃহত্তম ও পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম ব্যাক্তিগত সংগ্রহশালা। তাঁর প্রতিষ্ঠিত সি সেল মিউজিয়ামটি বর্তমানে চেন্নাইয়ের মহাবলিপূরম মন্দিরের সন্নিকটে অবস্থিত একটি জনপ্রিয় ট্যুরিস্ট স্পট। রাজা মহম্মদ ছোট্ট বেলা থেকেই  সমুদ্র তট থেকে সংগ্রহ করতেন বিভিন্ন সামুদ্রিক প্রাণীর দেহাংশ। কুড্ডালোর থেকে রামেশ্বরম এর সমুদ্রতট, সেখান থেকে জাপান, ইন্দোনেশিয়া, অস্ট্রেলিয়া, ফিলিপিন্স প্রভৃতি দেশে গিয়েছেন ব্যাক্তিগত উদ্যোগে। সংগ্রহ করেছেন অসাধারণ সব সামুদ্রিক .....বিস্তারিত পড়ুন

Scroll to Top