OMG 2: ওএমজি 2-এর মুক্তি আপতত বন্ধ করে দিয়েছে সেন্সর বোর্ড

উত্তরাপথ

ছবি সংগৃহীত

সেন্সর বোর্ড বর্তমানে OMG 2 ছবিটির মুক্তি নিষিদ্ধ করেছে। ছবিটি রিভিউ কমিটিতে পাঠিয়েছে সেন্সর বোর্ড। সেন্সর বোর্ড রিভিউ কমিটি বিবেচনা করে ছবির ভবিষ্যৎ নির্ধারণ করবে। তবে এখনই চলচ্চিত্রের জন্য নিষিদ্ধ শব্দটি ব্যবহার করা ঠিক হবে না। আদিপুরুষের সঙ্গে যা ঘটেছে তার পরিপ্রেক্ষিতে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

১১ জুলাই ছবিটির টিজার মুক্তি পায়। টিজারে অক্ষয় কুমারকে লম্বা চুল এবং কপালে ছাই দিয়ে ভগবান শিবের রূপে দেখা যাচ্ছে। ছবিতে মুখ্য ভূমিকায় দেখা যাবে পঙ্কজ ত্রিপাঠীকেও।ছবিটি ১১ আগস্ট, ২০২৩-এ প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল।এর প্রথম অংশ OMG ২০১২ সালে প্রকাশিত হয়েছিল।  সেই ছবিতে মুখ্য ভূমিকায় ছিলেন পরেশ রাওয়াল।

 ছবিটির টিজারে বিশেষ কী রয়েছে

 টিজার শুরু হয় পঙ্কজ ত্রিপাঠীর ভয়েস ওভার দিয়ে।  তিনি বলেন, ঈশ্বর থাকুক বা না থাকুক, একজন ব্যক্তি আস্তিক বা নাস্তিক হয়ে এর প্রমাণ দিতে পারে।কিন্তু আল্লাহ তাঁর সৃষ্টিকৃত বান্দাদের মধ্যে কখনো পার্থক্য করেন না।  সে নাস্তিক কাঞ্জি লাল মেহতা হোক বা আস্তিক কান্তি শরণ মুদগল।  এর পরে, অক্ষয় রূপে শিবের প্রবেশ রয়েছে, যেখানে তিনি বলেছেন, বিশ্বাস রাখ, তুমি শিবের সেবক।

 অক্ষয় কুমার টুইট করে টিজার শেয়ার করেছেন । ছবিতে রামানন্দ সাগরের ‘রাম’ অরুণ গোভিলকেও দেখা যাবে। ওএমজি 2′-তে ভগবান রামের ভূমিকায় দেখা যাবে অরুণ গোভিলকে। রামানন্দ সাগরের রামায়ণে ভগবান রামের ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন অরুণ।বিশেষ বিষয় হল ‘ওএমজি 2’ ১১ অগাস্ট সানি দেওলের ছবি ‘গদর 2’-এর সাথে বেরনোর কথা ।

খবরটি শেয়ার করুণ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন


এবার চাঁদের পথে জাপান, অবতরণে সময় লাগতে পারে ছয় মাস

উত্তরাপথঃ এ যেন হঠাৎ করে শুরু হওয়া বিভিন্ন দেশগুলির মধ্যে চাঁদে যাওয়ার প্রতিযোগিতা।ভারতের পর এবার চাঁদের পথে পারি দিল জাপান । চাঁদের জন্য SLIM নামে  তাদের নিজস্ব মুন ল্যান্ডার উৎক্ষেপণ করেছে জাপান।  মহাকাশযানটি ৭ সেপ্টেম্বর জাপানের স্থানীয় সময় সকাল ৮.৪২মিনিটে উৎক্ষেপণ করা হয়।  এটিতে জাপানের নিজস্ব  H2A রকেট ব্যবহার করা হয়েছে। এই মহাকাশ যানটি  তানেগাশিমা স্পেস সেন্টার থেকে উৎক্ষেপণ করা হয়েছে।প্রসঙ্গত দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে জাপান এটিকে নির্দিষ্ট সময়ের চেয়ে ১০ দিন দেরিতে উৎক্ষেপণ করল।মহাকাশযান SLIM ছাড়াও একটি মহাকাশ টেলিস্কোপও পাঠিয়েছে জাপান।উভয় মহাকাশযান এক ঘন্টার মধ্যে তাদের নির্দিষ্ট পথে পৌঁছেছে।  সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে 'স্মার্ট ল্যান্ডার ফর ইনভেস্টিগেটিং মুন' (SLIM) প্রায় চার মাস পর চাঁদে অবতরণ করবে। .....বিস্তারিত পড়ুন

রবি কিরণে “আদিত্য”

ড. সায়ন বসুঃ বীর "বিক্রমে" চাঁদের মাটিতে পা রাখার পর এবার ভারতীয় মহাকাশ গবেষণাকেন্দ্র (ISRO)-এর লক্ষ্য সূর্য | আমাদের ৮টি গ্রহ (প্লুটো এখন বামন গ্রহের তালিকায়) যাকে কেন্দ্র করে ঘুরছে সেই সূর্যের দিকে পাড়ি দিয়েছে "আদিত্য" ২রা সেপ্টেম্বর| চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে অবতরণের ১০ দিনের মাথায় আদিত্যকে সূর্যের উদ্দেশ্যে পাঠিয়ে দিয়ে ISRO বাকি বিশ্বের মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্রগুলির কাছে যে একটি শক্তিশালী বার্তা পৌঁছে দিতে পেরেছে তা বলাই বাহুল্য| আদিত্য মিশনের সূচনা ২০০৮ সালের জানুয়ারী মাসে মহাকাশ বিজ্ঞান সম্পর্কিত একটি উপদেষ্টা কমিটির বৈঠকে|প্রাথমিকভাবে ঠিক করা হয় যে একটি ছোট এবং কম ওজনের (৪০০ কেজি) কৃত্রিম উপগ্রহকে low Earth orbit (LEO ;লিও) যে কক্ষপথের উচ্চতা ১,২০০ কিলোমিটারের থেকে কম সেখানে পাঠানো হবে এবং তার কাজ হবে সূর্যের একদম যে বাইরের স্তর যাকে আমরা সৌর-করোনা বলি তার সম্বন্ধে তথ্য পাঠানো। .....বিস্তারিত পড়ুন

লোকসংস্কৃতির আলোকে মালদার শতাব্দী প্রাচীন গম্ভীরা  

মৈত্রেয়ী চৌধুরীঃ পশ্চিমবঙ্গের উত্তরের একটি জেলা মালদা। আমের জন্য এই জেলাটি পরিচিতি লাভ করলেও এই জেলা আর ও একটি কারণে বিখ্যাত, তা হল গম্ভীরা । মালদার নিজস্ব লোকসংস্কৃতি।গম্ভীরা শব্দটি প্রকোষ্ট, গৃহ বা মন্দির অর্থের সঙ্গে আভিধানিক মিল থাকলেও এই অনুষ্ঠানটি উন্মুক্ত আকাশের নিচে বা কোথাও চাঁদোয়া বা ত্রিপল  দিয়ে ঢেকে অনুষ্ঠিত হয়। এই উৎসবের মূল কেন্দ্রবিন্দু হলেন স্বয়ং দেবাদিদেব। এই উৎসবের তিনি 'নানা' নামে পরিচিত।একজন শিবের সাজে থাকেন, আর দেবাদিদেবের চেলার মতো কিছু সংখ্যক সেই নানার ভক্ত হয়ে খোল, করতাল হাতে উনার সঙ্গী হন। বাস্তব জগতের এবং পারিপার্শ্বিক যা মা সমস্যা থাকে তা  চেলার নানার কাছে অভিযোগ জানান, যেন নানা সেই অভিযোগ শুনে তার সমাধান করেন।শিশু থেকে বৃদ্ধ সকলেই ভিড় করে জমায়েত .....বিস্তারিত পড়ুন

আগামী ৩ বছরে শূন্য বর্জ্য হওয়ার পথে রাজস্থানের প্রথম গ্রাম

উত্তরাপথঃ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিভাগের একটি প্রকল্পের আওতায় আঁধি গ্রামে এই পরিবর্তন করা হচ্ছে।জয়পুর থেকে ৫০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত আন্ধি গ্রাম।আগামী তিন বছরে এই গ্রাম শূন্য বর্জ্য হয়ে যাবে বলে মনে করা হচ্ছে ।আন্ধি গ্রামের এই সম্পূর্ণ রূপান্তরটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিভাগের একটি প্রকল্পের অধীনে করা হচ্ছে।  এই প্রকল্পটি সবুজ প্রযুক্তির হস্তক্ষেপ ব্যবহার করে আন্ধি গ্রামকে জিরো ওয়েস্ট মডেলে রূপান্তরিত করার কাজ চলছে ।  এই প্রকল্পটি ২১ মার্চ ২০২২ এ শুরু হয়েছে,  প্রকল্প পরিচালক বলেন, এ গ্রামের অবস্থা আগে খুবই খারাপ ছিল।আগে এই গ্রামের লোকেদের কঠিন বর্জ্য আলাদা করার কোনও ধারনা ছিল না । .....বিস্তারিত পড়ুন

Scroll to Top