কনজেক্টিভাইটিস: সমস্যা এবং প্রাথমিক সমাধান

ছবি সৌজন্য – টুইটার

উত্তরাপথঃ কনজেক্টিভাইটিস,যা সাধারণত গোলাপী চোখ বা অতি সাধারণ বাংলা ভাষায় জয়বাংলা নামে পরিচিত। এটি চোখের একটি সাধারণ সমস্যা যা যে কোনও বয়সের মানুষকে প্রভাবিত করে। এটি একটি ব্যাকটেরিয়া বা ভাইরাল সংক্রমণ, অ্যালার্জি বা বাইরের পদার্থের সংস্পর্শ সহ বিভিন্ন কারণে কনজেক্টিভাইটিস হতে পারে। এটি অত্যন্ত সংক্রামক এবং সংক্রামিত ব্যক্তির ব্যবহার করা জিনিস যেমন তোয়ালে বা প্রসাধনীগুলির সাথে সরাসরি যোগাযোগের মাধ্যমে সহজেই ছড়িয়ে পড়তে পারে। এতে চোখে সাধারণত লালচেভাব, চুলকানি সহ ব্যাথা অনুভূত হয়।

 কনজেক্টিভাইটিসের প্রাথমিক সমাধান:

  • কনজেক্টিভাইটিসে আক্রান্ত হলে প্রাথমিক সমাধানগুলির মধ্যে একটি হল নির্দিষ্ট স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা।এক্ষেত্রে ঘন ঘন সাবান এবং জল দিয়ে হাত ধোয়া অপরিহার্য, বিশেষ করে চোখ স্পর্শ করার পরে। চোখ স্পর্শ করা বা ঘষা এড়ানোও সংক্রমণের বিস্তার রোধ করতে সাহায্য করতে পারে।
  • উষ্ণ কম্প্রেস কনজেক্টিভাইটিসের সাথে যুক্ত অস্বস্তি থেকে মুক্তি দিতে পারে। দিনে কয়েকবার আক্রান্ত চোখে একটি পরিষ্কার, উষ্ণ ওয়াশক্লথ দিয়ে কম্প্রেস করলে এটি চোখের ব্যাথাকে কম করতে, লালভাব কমাতে এবং চুলকানি এবং জ্বালাপোড়ার মতো উপসর্গগুলি কমাতে সাহায্য করতে পারে।
  • চোখের ড্রপ এই ক্ষেত্রে বিশেষ কার্যকরী,যা কনজেক্টিভাইটিস দ্বারা সৃষ্ট চোখে শুকনো ভাব এবং অস্বস্তি কমাতে সাহায্য করতে পারে। এই লুব্রিকেটিং চোখের এই ড্রপগুলি অনেক ক্ষেত্রে কনজেক্টিভাইটিসের লক্ষণগুলি থেকে সাময়িক ত্রাণ প্রদান করতে পারে এবং চোখকে আর্দ্র রাখতে সাহায্য করতে পারে।ড্রপ নির্বাচনের সময় প্রিজারভেটিভ-মুক্ত ড্রপ বেছে নেওয়া এবং ড্রপের গায়ে লেখা প্রদত্ত নির্দেশাবলী অনুসরণ করা গুরুত্বপূর্ণ।
  • তবে যারা কন্টাক্ট লেন্স পরেন তাদের জন্য কনজেক্টিভাইটিস চলাকালীন তাদের তা ব্যবহার বন্ধ করা ভালো।এক্ষেত্রে কন্টাক্ট লেন্সগুলি উপসর্গগুলিকে বাড়িয়ে তুলতে পারে এবং নিরাময় প্রক্রিয়াকে দীর্ঘায়িত করতে পারে।এই সময় চোখের জ্বালা এবং সম্ভাব্য জটিলতা এড়াতে উপসর্গগুলি পুরোপুরি ঠিক না হওয়া পর্যন্ত চশমা ব্যবহার না করা উচিত।

কনজেক্টিভাইটিসের ক্ষেত্রে, একজন চিকিৎসকের সাথে পরামর্শ করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ, বিশেষ করে যদি লক্ষণগুলি আরও খারাপ হয় বা সারতে সময় লাগে। চিকিৎসকের পরামর্শ মত উপযুক্ত ওষুধ, যেমন অ্যান্টিবায়োটিক বা অ্যান্টিভাইরাল আই ড্রপ নিতে পারেন।  

কনজেক্টিভাইটিসের বিস্তার রোধ করতে, ব্যক্তিদের কিছু সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত:

– সংক্রমিত ব্যক্তিদের সাথে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ এড়িয়ে চলুন এবং তাদের ব্যবহৃত জিনিষ শেয়ার করা থেকে বিরত থাকুন।

– সংক্রমিত ব্যক্তিদের ঘর ,জামাকাপড় ভালো ভাবে পরিষ্কার রাখতে হবে,জাতে পুনরায় সংক্রামণের ঘটনা না ঘটে।

– হাত ভালভাবে এবং নিয়মিত ধুয়ে ফেলুন, বিশেষ করে চোখ বা মুখ স্পর্শ করার আগে।

কনজেক্টিভাইটিস, যদিও এটি একটি সাধারণ সমস্যা , প্রাথমিক সমাধানগুলি মেনে চললে বেশীরভাগ ক্ষেত্রেই এই সমস্যার সমাধান সম্ভব । তবে প্রয়োজনে ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া কনজাংটিভাইটিস চিকিৎসার গুরুত্বপূর্ণ অংশ । প্রয়োজনীয় সতর্কতা অবলম্বন কনজেক্টিভাইটিসের তীব্রতা এবং সময়কাল হ্রাস করতে পারে, সেই সাথে এর বিস্তার রোধ করতে পারে।

খবরটি শেয়ার করুণ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন


সম্পাদকীয়

বিশ্ব উস্নায়ন এবং তাকে কেন্দ্র করে জলবায়ু পরিবর্তন একবিংশ শতাব্দীর অন্যতম বড় চ্যালেঞ্জ। এটি  ধীরে ধীরে একাধিক উপায়ে মানব সমাজকে ব্যাপকভাবে প্রভাবিত করছে এবং অদূর ভবিষ্যতে এটি প্রায় অনিয়ন্ত্রিত হয়ে যাবে বলে মনে করা হচ্ছে।ইতিমধ্যে এটি আমাদের পরিবেশ, অর্থনীতি এবং আমাদের জীবন যাত্রার উপর ব্যাপক ভাবে প্রভাব দেখাতে শুরু করেছে ।সদ্য হয়ে যাওয়া হিমাচল প্রদেশের বন্যা আমাদের সামনে বেশ কিছু প্রশ্ন তুলে দিল । এবছর হিমাচল প্রদেশে বর্ষাকালে রেকর্ড পরিমাণে বৃষ্টিপাত হয়েছে ,যা বিগত কয়েক বছরের তুলনায় বহু গুণ বেশী।  ভারতের আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, হিমাচল প্রদেশে ১ জুলাই থেকে ১২ জুলাই পর্যন্ত গড় বৃষ্টিপাত হয়েছে ২৪৯.৬ মিমি যা স্বাভাবিক গড় ৭৬.৬ মিমি থেকে প্রায় ৭০% বেশী .....বিস্তারিত পড়ুন

এক নজরে টি-টোয়েন্টিতে বিশ্বের এক নম্বর ব্যাটসম্যান সূর্যকুমার যাদব

উত্তরাপথঃ  টি-টোয়েন্টিতে বিশ্বের এক নম্বর ব্যাটসম্যান সূর্যকুমার যাদব আজ তার ৩৩তম জন্মদিন উদযাপন করছেন।  তিনি বর্তমানে টিম ইন্ডিয়ার সাথে শ্রীলঙ্কায় রয়েছেন এবং এশিয়া কাপ খেলছেন।  সূর্য, যাকে ৩৬০ ডিগ্রি ব্যাটসম্যান বলা হয়, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে দেরিতে প্রবেশ করেছিলেন, কিন্তু অল্প সময়ের মধ্যেই তিনি এমন সব কিছু অর্জন করেছিলেন যা অনেক ক্রিকেটার দীর্ঘ সময় ধরে খেলেও স্বপ্নেও দেখতে পারেন না।  চলুন জেনে নেওয়া যাক তার সবচেয়ে বিশেষ ৫টি রেকর্ড সম্পর্কে- T-20 আন্তর্জাতিকে দ্রুততম ১২টি ম্যান অফ দ্য ম্যাচের পুরস্কার সূর্যকুমার যাদবকে টি-টোয়েন্টির সবচেয়ে ধ্বংসাত্মক ব্যাটসম্যান হিসেবে বিবেচনা করা হয়।  একই বলে অনেক শট খেলতে পারেন তিনি। তাঁর ৫৩ টি ম্যাচে .....বিস্তারিত পড়ুন

ভোরের শুকতারা

অনসূয়া পাঠকঃ বাস ছাড়তে তখনো কিছুটা সময় বাকি ছিলো, আমি মা বাবার সাথে বাসের ভেতরে জানালার দিকের সিটটায় বসে আছি। এমন সময় দেখি আমাদের পাশের সিটে বসে একজন রবীন্দ্রনাথের সঞ্জয়িতা পড়ছেন, বইটাকে দেখে আমার চোখের সামনে একটা সোনালী ফ্রেমের চশমা পরা মুখ ভেসে উঠলো, চন্দন স্যারের মুখ। বছর পাঁচেক আগের কথা, আমার বাবা তখন জঙ্গলমহল মেদিনীপুরের আমলাশুলির পোষ্টমাষ্টার। দু কিমি দূরেই আমার পিসীমার বাড়ি। ওখানেই আমার হাইস্কুলে পড়াশোনা শুরু। আর যে স্যার আমার মননে সদা জাগরুক , বাংলা সাহিত্যের বটবৃক্ষ বলা যায় যাকে , আমার গল্প যাঁকে নিয়ে সেই চন্দন স্যারকে ওখানেই পাওয়া। ফর্সা গায়ের রঙ, মাথায় ক়াঁচা পাকা চুল , সরু গোঁফ চোখে সোনালী ফ্রেমের চশমা, .....বিস্তারিত পড়ুন

রেলওয়ে ইউনিয়নের নতুন সূচনা, গান গেয়ে মানসিক চাপ দূর করছেন রেলের কর্মচারীরা

উত্তরাপথঃ আপনি যদি সরকারি বা বেসরকারি চাকরি করেন, তাহলে এই খবর আপনাকে স্বস্তি দেবে।কারণ ভারতীয় রেলওয়ের বৃহত্তম শ্রমিক সংগঠন অল ইন্ডিয়া রেলওয়েম্যানস ফেডারেশন (এআইআরএফ) এবং নর্থ ওয়েস্টার্ন রেলওয়ে এমপ্লয়িজ ইউনিয়ন কর্মক্ষেত্রে কর্মীদের উপর ক্রমবর্ধমান চাপ কমাতে এক অনন্য উদ্যোগ শুরু করেছে।তারা তাদের কর্মীদের গান গেয়ে তাদের মানসিক চাপ দূর করতে পরামর্শ দিচ্ছে।    এআইআরএফ-এর সাধারণ সম্পাদক শিব গোপাল মিশ্র এবং কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মুকেশ মাথুরের নির্দেশে, জয়পুর এবং অন্যান্য শহরের কর্মচারীরা একটি মাঠে জড়ো হয় এবং সেখানে তারা গান গায় এবং আন্তাক্ষিরি খেলে। .....বিস্তারিত পড়ুন

Scroll to Top