টাইফুন ইউন-ইউং এর আজ জাপানের টোকাই অঞ্চলে প্রত্যাশিত ল্যান্ডফল

টাইফুন ইউন-ইউং আজ জাপানের টোকাই অঞ্চলে প্রত্যাশিত ল্যান্ডফল ছবি সৌজন্যে – উত্তরাপথ

উত্তরাপথঃ টাইফুন ইউন-ইউং যা টাইফুন নং ১৩ নামেও পরিচিত যা আজ বিকেলের দিকে জাপানের টোকাই অঞ্চলে ল্যান্ডফল করবে বলে আশা করা হচ্ছে, যেখানে নাগোয়া অবস্থিত। জাপান ইতিমধ্যে এর আগমনের জন্য নিজেদের আগাম প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। প্রসঙ্গত গত কয়েকদিন ধরে ক্রমশ তীব্রতর হচ্ছিল টাইফুন ১৩। জাপানের আবহাওয়া সংস্থা বৃহস্পতিবার থেকে শনিবার টোকাই এবং কান্টো অঞ্চলে ভারী বৃষ্টিপাতের সতর্কতা জারি করছে, যা পরিবহন ব্যবস্থাকে প্রভাবিত করতে পারে।আবহাওয়া দপ্তরের মতে শুক্রবার সকাল ৬ টা নাগাদ ২৪ঘন্টা বৃষ্টিপাতের পরিমাণ ইজু দ্বীপপুঞ্জে ২৫০ মিলিমিটার, টোকাই অঞ্চলে ১৫০ মিলিমিটার এবং কান্টো-কোশিন অঞ্চলে ১০০ মিলিমিটার হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

জাপানের আবহাওয়া সংস্থা (জেএমএ) দেশের একটি বড় অংশের জন্য সতর্কতা ও পরামর্শ জারি করেছে, বাসিন্দাদের প্রয়োজনীয় সতর্কতা অবলম্বন করতে এবং সর্বশেষ তথ্যের সাথে আপডেট থাকার আহ্বান জানিয়েছে। টাইফুনটি প্রবল বৃষ্টি নিয়ে আসবে বলে আশা করা হচ্ছে, কিছু এলাকায় বৃষ্টিপাতের পরিমাণ প্রতি ঘণ্টায় ১০০ মিলিমিটারের বেশি হতে পারে। এই ভারী বৃষ্টিপাতের ফলে আকস্মিক বন্যা, ভূমিধস এবং নদীতে আকস্মিক বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে, যা মানুষের জীবন ও সম্পত্তির জন্য একটি উল্লেখযোগ্য ঝুঁকি তৈরি করতে পারে।

জাপানের স্থানীয় প্রশাসন টাইফুনের প্রস্তুতিতে, স্থানীয় কর্তৃপক্ষ বাসিন্দাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য নিষ্ঠার সাথে কাজ করছে। বন্যা এবং ভূমিধসের প্রবণ এলাকাগুলির জন্য লোকজনকে সরানোর পরামর্শ জারি করা হয়েছে, এবং প্রয়োজনে তাদের আশ্রয় দেওয়ার জন্য জরুরি আশ্রয়কেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে। ট্রেন এবং ফ্লাইট সহ পরিবহন পরিষেবাগুলি বন্ধ করা হয়েছে এবং ছাত্র ও কর্মচারীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে স্কুল এবং ব্যবসাগুলিকে সেই দিনের জন্য বন্ধ রাখার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

জাপানে টাইফুন একটি সাধারণ ঘটনা, কারণ দেশটি ক্রান্তীয় ঘূর্ণিঝড়ের প্রবণ অঞ্চলে অবস্থিত।সেখানে, প্রতিটি টাইফুন তার নিজস্ব অনন্য চ্যালেঞ্জ নিয়ে আসে এবং ঝড়ের তীব্রতা এবং দিকের মতো কারণের উপর নির্ভর করে প্রভাব পরিবর্তিত হতে পারে।এবারের এই প্রাকৃতিক দুর্যোগ যে সাধারণ টাইফুন নয় অনেকটা অপ্রত্যাশিত প্রকৃতির হতে চলেছে তা সেখানকার মানুষ এবং কর্তৃপক্ষের আগাম প্রস্তুতি বলে দিচ্ছে।  

 টাইফুন ইউন-ইউং-এর তীব্রতার কারণ হিসাবে বিজ্ঞানীরা জলবায়ু পরিবর্তনকে দায়ী করেছেন।  ক্রমবর্ধমান সমুদ্র পৃষ্ঠের তাপমাত্রা, অন্যান্য বায়ুমণ্ডলীয় অবস্থার সাথে মিলিত হয়ে, টাইফুনের গঠন এবং তীব্রতা বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে । বৈশ্বিক তাপমাত্রা বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায়, জলবায়ু ব্যবস্থায় ভবিষ্যতে আরও এই ধরনের গুরুতর আবহাওয়ার ঘটনাগুলির ঝুঁকি বাড়বে বলে আশা করা হচ্ছে।

এই আসন্ন টাইফুনের মুখে, বাসিন্দাদের জন্য তাদের নিরাপত্তাকে অগ্রাধিকার দেওয়া এবং স্থানীয় কর্তৃপক্ষের পরামর্শ ও নির্দেশনা মেনে চলা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।নাগরিকদের জিনিসপত্র সুরক্ষিত রাখা, প্রয়োজনীয় দ্রব্য মজুদ করা এবং ঝড় শেষ না হওয়া পর্যন্ত বাড়ির ভিতরে থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। উপরন্তু, সময়মত আপডেট এবং সতর্কতা পাওয়ার জন্য JMA-এর মতো তথ্যের নির্ভরযোগ্য উৎসের মাধ্যমে অবগত থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

 এর আগেও জাপানের জনগণ অসংখ্য প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলা করেছে এবং তাদের দৃঢ়তার পরিচয় দিয়েছে।বর্তমানে টোকাই এবং কান্টো অঞ্চল টাইফুন ইউন-ইউং-এর আগমনের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে ।আশাকরা যাচ্ছে তারা প্রয়োজনীয় সতর্কতা অবলম্বন করে, টাইফুনের সম্ভাব্য প্রভাব থেকে নিজেদের রক্ষা করতে পারবে এবং আবার শক্তিশালী হয়ে উঠতে পারবে।

খবরটি শেয়ার করুণ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন


ICC টুর্নামেন্ট জিতলে পুরুষ ও মহিলাদের দল একই অর্থ পাবে

উত্তরাপথ: এবার থেকে ICC টুর্নামেন্ট জিতলে পুরুষ ও মহিলা দলের প্রাইজ মানি একই। ডারবানে বসেছে আইসিসি-র (ICC) বার্ষিক বৈঠক সেখানেই স্থির হয়েছে ।  ICC-র চেয়ারম্যান গ্রেগ বার্কলে বলেছেন, ”ক্রিকেটের ইতিহাসে তাৎপর্যপূর্ণ মুহূর্ত এটি। আমি অত্যন্ত খুশি যে পুরুষ ও মহিলাদের দল আইসিসি-র ইভেন্টে এবার প্রাইজ মানি হিসেবে একই অর্থ পাবে।” তিনি আরও বলেন, ”২০১৭ সাল থেকে প্রতি বছর আমরা মহিলাদের ইভেন্টের প্রাইজ মানি বাড়িয়ে এসেছি, উদ্দেশ্য ছিল একটাই। মহিলাদের বিশ্বকাপ জয় এবং পুরুষদের বিশ্বকাপ জয়ের আর্থিক পুরস্কার এক হবে .....বিস্তারিত পড়ুন

 সম্পাদকীয়

পশ্চিমবঙ্গের ছোট-বড় যে কোনও নির্বাচন মানেই রাজনৈতিক হিংসা । সদ্য অনুষ্ঠিত পঞ্চায়েত নির্বাচনও তার ব্যতিক্রম নয়।রাজনৈতিক হিংসা যাতে না হয় নির্বাচনে তার জন্য যাবতীয় উদ্যোগ গ্রহণ করার পরও হিংসা অব্যাহত থাকল, সারা রাজ্যজুরে ঘটল তেরোটি মৃত্যুর ঘটনা ।পঞ্চায়েত নির্বাচনকে কেন্দ্র করে  ঘট হিংসা রাজ্যের গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া সহ নাগরিকদের ভোটাধিকার নিয়ে আমাদের সামনে প্রশ্ন তুলে দিয়েছে। আমাদের রাজ্যে চলতে থাকা রাজনৈতিক হিংসার পেছনে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ একাধিক কারণ থাকলেও বেকারত্ব সহ দুর্বল গ্রামীন অর্থনীতি এর প্রধান কারণ । দুর্বল গ্রামীন অর্থনীতির কারণে বেশীরভাগ গ্রামীন এলাকার মানুষদের অর্থনৈতিক উপার্জনের সুযোগ খুব কম। বিশেষত স্বল্প শিক্ষিত সেই সব মানুষদের যারা না পায় সরকারি চাকুরি না পারে ঠিকা শ্রমিকের কাজ করতে, গ্রামীন অর্থনীতিতে বিশাল সংখ্যক মানুষ এই শ্রেনীর অন্তর্গত .....বিস্তারিত পড়ুন

উত্তর ভারত জুড়ে প্রবল বৃষ্টি ও ভূমিধস

উত্তরাপথ: উত্তর ভারত জুড়ে প্রবল বৃষ্টিতে অন্তত ২২ জনের মৃত্যু হয়েছে, এই অঞ্চলে ভূমিধস এবং আকস্মিক বন্যা হয়েছে, যা কয়েক দশকের মধ্যে সবচেয়ে বেশি বৃষ্টিপাত বলে সরকারি রিপোর্টে বলা হয়েছে। সপ্তাহান্তে জাতীয় রাজধানীতে ভারী বৃষ্টিপাতের পরে দিল্লির স্কুলগুলি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে, এবং হিমাচল প্রদেশ এবং উত্তরাখণ্ডে রাজ্যের লোকেদের প্রয়োজন ছাড়া বাড়ি থেকে বের না হতে বলেছে কর্তৃপক্ষ। হিমাচল প্রদেশ, উত্তরাখণ্ড, উত্তর প্রদেশ, জম্মু ও কাশ্মীর এবং পাঞ্জাব রাজ্যের উত্তরাঞ্চলীয় রাজ্যগুলিতে বন্যা ও ভূমিধসে অন্তত .....বিস্তারিত পড়ুন

Scroll to Top