পূজায় ডিজে বক্সের রমরমায়, ঢাকিদের কেউ ডাকছেনা  

পূজায় ডিজে বক্সের রমরমা ছবি – উত্তরাপথ

উত্তরাপথঃ পূজা চলে এলেও এখনও তেমন বায়না জোটেনি বাংলার ঢাকিদের। মহালয়ার দুই একদিন আগে থাকতেই রাজ্যের বিভিন্ন জেলা থেকে ঢাকিদের দল বাড়তি রোজগারের আশায় কলকাতায় আসেন। এবার ঢাকিদের দল কলকাতা এলেও তারা তেমন একটা কোথাও ডাক পাচ্ছে না বলে তাদের অভিযোগ ।সে সাথে তাদের দাবী পূজায় ডিজে বক্সের রমরমায়, ঢাকিদের কেউ তেমন ডাকছেনা ।

ঢাকিদের দাবি, প্রতি বছরই পূজোতে ক্রমশ কদর কমছে ঢাকিদের। আগের মত ষষ্ঠী থেকে দশমী পর্যন্ত চরম ব্যস্ততাও আর নেই। অত্যাধুনিক বাদ্যযন্ত্র, ডিজের বক্সের দাপটে ঢাকিদের কদর ক্রমশ কমছে বলে তারা জানিয়েছে। পূজো মানেই ঢাকের আওয়াজ।এইসময় তাদের ব্যস্ততা থাকে চরম পর্যায়ে। পূজো এলেই তাদের চাহিদা পাড়ায় পাড়ায়। কিন্তু এই জীবিকায় এখন আর কেউ আসতে চান না। কারণ, অত্যাধুনিক যুগে সবকিছুর সঙ্গে তাল মিলিয়ে বেড়েছে অত্যাধুনিক ডিজে বক্স থেকে রকমারি যন্ত্রপাতির চাহিদা তারফলে ঐতিহ্যবাহী ঢাকি দের কেউ ডাকছে না এবং পূজার সময়ও এদের ঘর থাকছে অন্ধকার।

এই ব্যাপারে শিয়ালদা স্টেশনে অপেক্ষারত ঢাকিদের দাবি পূজো চলে এলেও পূজায় ডিজে বক্সের রমরমায় এখনও তেমন বায়না জোটেনি। বালুরঘাট শহরের সুকান্ত কলোনী এলাকায় বেশ কিছু ঢাকি স্থানীয় বাজারে বরাত না পেয়ে কলকাতা এসেছে বাড়তি রোজগারের আশায়,কিন্তু কলকাতাতে এসেও সেই একই অবস্থ বরাত নেই।তাদের বক্তব্য সারা বছর তারা স্থানীয় স্তরে ঢাক বাজিয়ে রোজগার করে। পূজাতে বাড়তি উপার্জনের আশায় কলকাতায় আসা।মালদার এক ঢাকির বক্তব্য,লকডাউনের জন্য পর পর দুই বছর আমরা তেমন কোনও কাজ পায়নি।গত বছর আমরা কিছু গ্রাহক পেলেও এবছর বাজার খুব খারাপ।

সারা রাজ্যে ৪০,০০০ টিরও বেশি দুর্গাপূজা ক্লাব রয়েছে। রাজ্যে উৎসবের প্রস্তুতি শুরু হয় তিন-চার মাস আগে থেকে। দুর্গাপূজার এই প্রস্তুতির সাথে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষ ভাবে যুক্ত থাকে কমপক্ষে দুই-তিন লক্ষ লোক যা রাজ্যের অর্থনীতিতে এক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।দুর্গাপূজার সময় রাজ্যে ভারত সহ বিদেশ থেকে এক বিশাল সংখ্যক পর্যটকের আগমন ঘটে এই রাজ্যে।উৎসবকে কেন্দ্র করে বিস্তৃত সজ্জা, শৈল্পিক ভাস্কর্য এবং বিশাল শোভাযাত্রা পর্যটকদের আকর্ষণ করে ।পর্যটকদের এই বিশাল আগমন পশ্চিমবঙ্গের পর্যটন শিল্পকে উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি করে।সেইসাথে হোটেল, গেস্টহাউস, রেস্তোরাঁ এবং পরিবহন পরিষেবাগুলিরও চাহিদা বৃদ্ধি পায়,যা রাজ্যের রাজস্ব বৃদ্ধি সহ কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি করে।

খবরটি শেয়ার করুণ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন


প্রয়াত "কালবেলা"-র স্রষ্টা সাহিত্যিক সমরেশ মজুমদার

উত্তরাপথ: সাহিত্য একাডেমি পুরুষ্কার প্রাপ্ত প্রখ্যাত সাহিত্যিক সমরেশ মজুমদার কলকাতার এক বেসরকারী হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৯ বছর।বেশ কিছুদিন ধরে তিনি ফুসফুস ও শ্বাসনালীর সংক্রামণের কারনে তিনি হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। ১৯৪২ সালে উত্তরবঙ্গের গয়েরকাটায় জন্ম এই বিখ্যাত লেখকের।ষাটের দশকের গোড়ায় তিনি কলকাতায় এসেছিলেন। ভর্তি হয়েছিলেন স্কটিশ চার্চ কলেজের বাংলা (সাম্মানিক) স্নাতক বিভাগে৷ এর পর স্নাতকোত্তর  সম্পন্ন করেন কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। সমরেশ মজুমদারের উল্লেখযোগ্য .....বিস্তারিত পড়ুন

১ কোটি টাকার মানহানির মামলা প্রাক্তন CJI রঞ্জন গগৈয়ের বিরুদ্ধে

উত্তরাপথ: গুয়াহাটির একটি স্থানীয় আদালতে আসাম পাবলিক ওয়ার্কসের (এপিডব্লিউ) সভাপতি অভিজিৎ শর্মার রাজ্যসভার সাংসদ এবং ভারতের প্রাক্তন প্রধান বিচারপতি (সিজেআই) রঞ্জন গগৈয়ের বিরুদ্ধে ১কোটি টাকার মানহানির মামলা করেছে।  অভিজিৎ শর্মার অভিযোগ রঞ্জন গগৈ তার আত্মজীবনী জাস্টিস ফর এ জাজে  তার বিরুদ্ধে বিভ্রান্তিকর এবং মানহানিকর বিবৃতি প্রকাশ করেছে । তাই তিনি প্রকাশক গগৈ এবং রুপা পাবলিকেশন্সের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা দায়ের করেন  এবং কোনও বই প্রকাশ, বিতরণ বা বিক্রি করা থেকে বিরত রাখার জন্য অন্তবর্তী .....বিস্তারিত পড়ুন

Scroll to Top