বিসিসিআই এর তিরস্কার আভেশ খানকে

উত্তরাপথ

বেঙ্গালুরুর এম চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে লখনউ সুপার জায়ান্টস এবং রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের মধ্যে একটি উচ্চ-স্কোরিং, রোমাঞ্চকর এবং শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচ খেলা হয়েছিল। এই ম্যাচে লখনউ শেষ বলে ব্যাঙ্গালোরকে ১ উইকেটে হারিয়েছে। লখনউয়ের খেলোয়াড়রা বেঙ্গালুরুকে তাদের বাড়িতে হারানোর পর প্রচণ্ড উচ্ছ্বাসে মেতে উঠেন, যার বিভিন্ন ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়। এর মধ্যে একটি ছবি আবেশ খানের, যা আলোচনায় থেকে যায়।

জয়ের পর আভেশ খানের হেলমেট মাটিতে ছুড়ে দেওয়া লখনউয়ের ভক্তদের পছন্দ হতে পারে, কিন্তু বিসিসিআই এই ঘটনার জন্য আভেশ খানকে তিরস্কার করেছে।  বিসিসিআই-এর  আইপিএল ওয়েবসাইটের একটি বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘আভেশ খানের হ্যামলেটকে নিক্ষেপ করা নিয়মের লঙ্ঘন, লেভেল ১ আইপিএল কোড অফ কন্ডাক্টের আইন ২.২ এর অধীনে আসে।  এ জন্য আবেশকে তিরস্কার করা হয়েছে।  আভেশ (আভেশ খান) তার ভুল স্বীকার করেছে। এটি ছিল আভেশের প্রথম ভুল, তাই বিসিসিআই তাকে শুধু ভর্ৎসনা করে এবং ভবিষ্যতে এমন না করার নির্দেশ দিয়ে তাকে ছেড়ে দিয়েছে।লখনউ এম চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে টস জিতে প্রথমে বোলিং করার সিদ্ধান্ত নেয়।  প্রথমে ব্যাট করে কোহলির ৬১, ফাফের অপরাজিত ৭৯ এবং ম্যাক্সওয়েলের ৫৯ রানের সুবাদে ব্যাঙ্গালোর ২ উইকেটে ২১২ রান করে।  মার্কস স্টয়নিসের ৬৫এবং নিকোলাস পুরানের ১৯ বলে ৬২ রানের উপর ভিত্তি করে লখনউ ৯ উইকেট হারিয়ে ২১৩ রান করে ম্যাচ জিতে নেয়।

খবরটি শেয়ার করুণ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন


ঘোষণা হল ভারতের শীর্ষ বিজ্ঞান পুরস্কার শান্তি স্বরূপ ভাটনগর প্রাপকদের নাম  

উত্তরাপথঃ এটি আশ্চর্যজনকভাবে ২০২২ সালে, প্রথমবারের মতো, বিজ্ঞানে ভারতের শীর্ষ বার্ষিক পুরস্কার ঘোষণা করা হয়নি।এক বছর স্থগিত রাখার পর, সোমবার ২০২২ সালের শান্তি স্বরূপ ভাটনগর পুরস্কার ঘোষণা করা হয়, যেখানে ১২ জন তরুণ বিজ্ঞানীকে ভারতের শীর্ষ বিজ্ঞান পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত করা হয়েছে।ভাটনগর পুরষ্কার, CSIR-এর প্রথম মহাপরিচালক শান্তি স্বরূপ ভাটনাগরের নামানুসারে, প্রতি বছর সাতটি বৈজ্ঞানিক শাখায় গবেষকদের অসামান্য কৃতিত্বের জন্য দেওয়া হয়। জীববিজ্ঞান, রসায়ন, গণিত, পদার্থবিদ্যা, চিকিৎসা, প্রকৌশল এবং পৃথিবী, বায়ুমণ্ডল, মহাসাগর এবং গ্রহ বিজ্ঞান - এর অধীনে ৪৫ বছর পর্যন্ত অসামান্য গবেষকদের নির্বাচন করা হয়। পুরস্কারে ৫ লক্ষ টাকা নগদ ও একটি প্রশংসাপত্র দেওয়া হয়। .....বিস্তারিত পড়ুন

Diabetes Treatment: রক্তে শর্করা স্থিতিশীল করতে ডালিয়া ফুলের নির্যাস কার্যকর

উত্তরাপথঃ ডায়াবেটিস নিয়ে গবেষণার ক্ষেত্রে একটি উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হয়েছে।সম্প্রতি গবেষণায় ওটাগো বিশ্ববিদ্যালয়ের (University of Otago)নেতৃত্বে বিজ্ঞানীরা ক্লিনিকাল ট্রায়ালের মাধ্যমে আবিষ্কার করেছে যে ডালিয়া ফুলের পাপড়ির নির্যাস ডায়াবেটিসে আক্রান্ত ব্যক্তিদের রক্তে শর্করা স্থিতিশীল করতে সাহায্য করতে পারে। সেন্টার ফর নিউরোএন্ডোক্রিনোলজির একজন সহযোগী অধ্যাপক আলেকজান্ডার টুপসের( Alexander Tups) নির্দেশনায়, দলটি খুঁজে পেয়েছে যে, উদ্ভিদের একটি অণু, যা মস্তিষ্কে কাজ করে এবং রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রন করার জন্য শরীরের ক্ষমতাকে শক্তিশালী করে।প্রসঙ্গত ডায়াবেটিস হল একটি দীর্ঘস্থায়ী বিপাকীয় ব্যাধি যা অপর্যাপ্ত ইনসুলিন উৎপাদনের কারণে রক্তে শর্করার মাত্রা অত্যাধিক বেড়ে যায়। .....বিস্তারিত পড়ুন

আগামী ৩ বছরে শূন্য বর্জ্য হওয়ার পথে রাজস্থানের প্রথম গ্রাম

উত্তরাপথঃ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিভাগের একটি প্রকল্পের আওতায় আঁধি গ্রামে এই পরিবর্তন করা হচ্ছে।জয়পুর থেকে ৫০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত আন্ধি গ্রাম।আগামী তিন বছরে এই গ্রাম শূন্য বর্জ্য হয়ে যাবে বলে মনে করা হচ্ছে ।আন্ধি গ্রামের এই সম্পূর্ণ রূপান্তরটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিভাগের একটি প্রকল্পের অধীনে করা হচ্ছে।  এই প্রকল্পটি সবুজ প্রযুক্তির হস্তক্ষেপ ব্যবহার করে আন্ধি গ্রামকে জিরো ওয়েস্ট মডেলে রূপান্তরিত করার কাজ চলছে ।  এই প্রকল্পটি ২১ মার্চ ২০২২ এ শুরু হয়েছে,  প্রকল্প পরিচালক বলেন, এ গ্রামের অবস্থা আগে খুবই খারাপ ছিল।আগে এই গ্রামের লোকেদের কঠিন বর্জ্য আলাদা করার কোনও ধারনা ছিল না । .....বিস্তারিত পড়ুন

Scroll to Top