lipophilic index: বিজ্ঞানীরা বলছেন চর্বিযুক্ত মাছ খাওয়ার অনেক সুবিধা

উত্তরাপথ

ছবি প্রতীকী

চর্বিযুক্ত মাছ, যেমন সালমন, টুনা এবং ম্যাকেরেল, দীর্ঘদিন ধরে ওমেগা -3 ফ্যাটি অ্যাসিডের একটি ভাল উৎস হিসাবে পরিচিত। সম্প্রতি ইউনিভার্সিটি অফ ইস্টার্ন ফিনল্যান্ড দ্বারা পরিচালিত এক গবেষণায় দেখা গেছে যে চর্বিযুক্ত মাছ খাওয়া হৃদরোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের জন্যও খুব উপযোগী। এটি লিপোফিলিক সূচক কমিয়ে দিতে পারে  যা সুস্বাস্থ্যের জন্য প্রয়োজনীয়।এবার আসা যাক চর্বি যুক্ত মাছ খাওয়ার সুবিধাগুলি নিয়ে আলোচনায় ।

চর্বিযুক্ত মাছ খাওয়া মস্তিষ্কের কার্যকারিতা উন্নত করতে সাহায্য করতে পারে, বিশেষ করে বয়স্ক প্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে। আমেরিকান জার্নাল অফ ক্লিনিকাল নিউট্রিশন-এ প্রকাশিত একটি গবেষণায় দেখা গেছে যে বয়স্ক প্রাপ্তবয়স্করা যারা সপ্তাহে অন্তত একবার ফ্যাটি মাছ খান তাদের মনে রাখার ক্ষমতা ভাল ছিল যারা মাছ খেয়েছিলেন তাদের থেকে। গবেষণায় বলা হয়েছে যে ফ্যাটি মাছের ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড মস্তিষ্ককে বয়সজনিত স্মৃতি শক্তি কমে যাওয়া থেকে রক্ষা করতে সাহায্য করতে পারে।

গবেষণা বলছে চর্বিযুক্ত মাছ হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতেও সাহায্য করতে পারে। আমেরিকান কলেজ অফ কার্ডিওলজির জার্নালে প্রকাশিত একটি গবেষণায় দেখা গেছে যে সপ্তাহে দুবার চর্বিযুক্ত মাছ খাওয়া হার্ট ফেইলিউরের ঝুঁকি কম করে। গবেষণায় আরও বলা হয়েছে যে ফ্যাটি মাছের ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড প্রদাহ (Inflamation) কমাতে এবং হৃদযন্ত্রের কার্যকারিতা উন্নত করতে সাহায্য করতে পারে।

ফ্যাটি মাছ খাওয়া মানসিক বিষণ্নতার ঝুঁকি কমাতেও সাহায্য করতে পারে। জার্নাল অফ অ্যাফেক্টিভ ডিসঅর্ডার-এ প্রকাশিত একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে যে যারা সপ্তাহে অন্তত একবার চর্বিযুক্ত মাছ খান তাদের মানসিক বিষণ্নতা হওয়ার ঝুঁকি কম থাকে যারা মাছ কম খান তাদের তুলনায়। গবেষণায় বলা হয়েছে যে চর্বিযুক্ত মাছের ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড প্রদাহ কমাতে এবং মানসিক শান্তি বজায় রাখতে  সাহায্য করতে পারে।

চর্বিযুক্ত মাছ চোখের স্বাস্থ্যের জন্যও ভালো হতে পারে। জার্নাল অফ নিউট্রিশনে প্রকাশিত একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে যে চর্বিযুক্ত মাছ খাওয়া বয়স-সম্পর্কিত ম্যাকুলার অবক্ষয়ের ঝুঁকির  কম করে । গবেষণায় বলা হয়েছে যে ফ্যাটি মাছে থাকা ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড চোখকে ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করতে সাহায্য করতে পারে।

যদিও চর্বিযুক্ত মাছের সুবিধাগুলি সম্পূর্ণরূপে বোঝার জন্য আরও গবেষণার প্রয়োজন। তবে গবেষণার এই ফলাফলগুলি আমাদের পরামর্শ দেয় যে আপনার খাদ্যে চর্বিযুক্ত মাছ যোগ করা আপনার সামগ্রিক স্বাস্থ্য এবং সুস্থতার জন্য একটি ভাল উপায় হতে পারে।

বিস্তারিত জানতে পড়ুন: Fatty fish consumption reduces lipophilic index in erythrocyte membranes and serum phospholipids, Nutrition, Metabolism and Cardiovascular Diseases, 2023, (DOI: 10.1016/j.numecd.2023.04.011)

খবরটি শেয়ার করুণ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন


দীপাবলির সময় কেন পটকা ফোটানো নিষেধাজ্ঞা কার্যকর করা যায় না ?

উত্তরাপথঃ দীপাবলির পরের দিন, যখন কেন্দ্রীয় দূষণ নিয়ন্ত্রণ বোর্ড (CPCB) শহরের বায়ু মানের সূচকের তালিকা প্রকাশ করে,তখন  দেখা যায় রাজধানী দিল্লি বিশ্বের শীর্ষ ১০টি দূষিত শহরের প্রথমেই রয়েছে। CPCB-এর মতে, ১২ নভেম্বর বিকেল ৪ টায় দিল্লির বায়ু মানের সূচক ছিল ২১৮ যা ভোরের দিকে বেড়ে ৪০৭ এ পৌঁছায় । ৪০০ – ৫০০ AQI  এর স্তর সুস্থ ব্যক্তিদের প্রভাবিত করে। দীপাবলির সারা রাত, লোকেরা পটকা ফাটিয়ে দীপাবলি উদযাপন করে। ১৩ নভেম্বর বিকেল ৪ টায় কেন্দ্রীয় দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদ আবার তথ্য প্রকাশ করে এই তালিকায়, দিল্লির গড় বায়ু মানের সূচক ছিল ৩৫৮ যা 'খুব খারাপ' বিভাগে পড়ে।   বায়ু দূষণের এই পরিস্থিতি শুধু দিল্লিতেই সীমাবদ্ধ ছিল না।  নয়ডার বায়ু মানের সূচক ১৮৯ থেকে ৩৬৩ এ এবং রোহতক, হরিয়ানার ১৩৭ থেকে বেড়ে ৩৮৩ হয়েছে। দীপাবলির দুই দিন দিল্লি ,নয়ডা  ,কলকাতা, মুম্বাই সহ দেশের অন্যান্য শহরেও একই অবস্থা বিরাজ করছে। এই দিনগুলিতে মানুষ বিষাক্ত বাতাসে শ্বাস নিতে বাধ্য হয়েছে। ২০১৮ সালে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে জাতীয় রাজধানী দিল্লি এবং নয়ডায় সবুজ পটকা ছাড়া যে কোনও ধরণের আতশবাজি ফাটান সম্পূর্ণ রূপে নিষিদ্ধ। আদালত সবুজ পটকা পোড়ানোর সময়ও নির্ধারণ করে দিয়েছে রাত ৮টা থেকে ১০টা। এমন পরিস্থিতিতে প্রশ্ন উঠছে সুপ্রিম কোর্টের এই আদেশের মানে কী?  আদালতের এই আদেশ কি এখন প্রত্যাহার করা উচিত?  পুলিশ কেন এই আদেশ কার্যকর করতে পারছে না?  এর জন্য কি পুলিশ দায়ী নাকি সরকারের উদাসীনতা রয়েছে এর পেছনে? .....বিস্তারিত পড়ুন

World Children's Day: সত্যিই কি ‘বিশ্ব শিশু দিবস´পালনের কোনও যৌক্তিকতা আছে ?

প্রীতি গুপ্তাঃ হাতে গোনা আর মাত্র কয়েকটি দিন তারপর ১৪ নভেম্বর আমাদের দেশ সহ সারা বিশ্বজুড়ে  পালন করা হবে ‘বিশ্ব শিশু দিবস´(World Children's Day)।এই দিনটি শিশুদের মঙ্গলের জন্য, তাদের ভবিষ্যতের জন্য একটি অনুকূল বিশ্ব তৈরি করার প্রচেষ্টার একটি দিন।কিন্তু প্রশ্ন,সত্যি কি হাজার হাজার কোটি টাকা খরচ করে সারা বিশ্ব জুড়ে শিশু দিবস পালন করার কোনও যৌক্তিকতা আছে? আদৌ কি এর কোনও লাভ আমরা আমাদের প্রান্তিক স্তরের শিশুদের কাছে পৌঁছে দিতে পেরেছি ? সম্প্রতি কাজের প্রয়োজনে রাজস্থানের উদয়পুর শহরে আসা। আমরা সবাই জানি উদয়পুর বিখ্যাত তার হ্রদের কারণে । এখানকার স্থানীয় থেকে পর্যটক সকলেই এই সুন্দর হ্রদগুলির আকর্ষণে বারবার ছুঁটে যায়। ‘ফতে সাহেব লেক’ রাজস্থানের উদয়পুরের এক বিখ্যাত পর্যটক স্থল।এখানে বহু মানুষ সকাল- বিকেল এই লেকের চার ধারে হাঁটাহাঁটি করতে বেরিয়ে পড়ে। সেভাবেই দুই দিন আগে বিকেলে হঠাৎ করে বেরিয়ে পড়লাম ‘ফতে সাহেব লেকের ধারে হাঁটার উদ্দেশ্য নিয়ে। হাঁটার মাঝখানে হঠাৎ করে একটি বাচ্চাছেলে আওয়াজ করে ডাকছে ,বললাম কিছু বলবি? সে বলল একটু দাঁড়াতে। ও ছুটে গিয়ে হাতে করে কয়েকটি বেলুন নিয়ে এসে হাজির । সে বারবার বেলুন কেনার অনুরোধ জানাতে লাগল। হাতে অন্য কাজের চাপ নেই অনেকটা অবসর সময় তাই আমি অনেকটা সাংবাদিক সুলভ মন নিয়ে বললাম ঠিক আছে আমি তোর বেলুন নেব ,কিন্তু তার আগে আমি  তোকে যা বলব তার তার ঠিক ঠিক উত্তর দিতে হবে। সে খুশী খুশী রাজি হয়ে গেল । .....বিস্তারিত পড়ুন

প্রাপ্তবয়স্কদের স্মৃতিশক্তি এবং চিন্তাভাবনা হ্রাস সমস্যার সমাধানের ক্ষেত্রে প্রোবায়োটিক

উত্তরাপথঃ সারা বিশ্বের জনসংখ্যার বয়স বৃদ্ধির সাথে স্মৃতিশক্তি এবং চিন্তাভাবনা হ্রাস এবং ডিমেনশিয়ার মতো নিউরোডিজেনারেটিভ রোগের প্রকোপ বাড়ছে৷ তাদের এই  সমস্যাগুলি যে কেবল তাদের একার সমস্যা তা নয় ,এটি ধীরে ধীরে পুরো পারিবারিক সমস্যার আকার নেয়।সম্প্রতি বয়স্ক প্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে মস্তিষ্কের কার্যকারিতাকে পুনরুদ্ধার করার জন্য গবেষকদের মধ্যে কার্যকর কৌশল খোঁজার আগ্রহ বাড়ছে।বর্তমানে বেশীরভাগ গবেষক মস্তিস্কের স্বাস্থ্য উদ্ধারের ক্ষেত্রে প্রোবায়োটিকের সম্ভাব্য ভূমিকা নিয়ে গবেষণা করছেন । এখন খুব স্বাভাবিকভাবেই একটি প্রশ্ন আসে প্রোবায়োটিক কি? কেনই বা গবেষকরা মস্তিস্কের স্বাস্থ্য উদ্ধারের ক্ষেত্রে প্রোবায়োটিকের ভূমিকা নিয়ে গবেষণা করছেন । .....বিস্তারিত পড়ুন

NASA Carbon Emission: পৃথিবী কার্বন ডাই অক্সাইড শোষণ করার চেয়ে বেশি নির্গত করছে

উত্তরাপথঃ কার্বন নির্গমন (NASA Carbon Emission) সম্পর্কে নাসার সর্বশেষ আবিষ্কার পৃথিবীর জন্য এক সতর্কতা সংকেত। মহাকাশ সংস্থার মতে, পৃথিবী কার্বন ডাই অক্সাইড শোষণ করার চেয়ে বেশি নির্গত করছে, যার ফলে গ্রিনহাউস গ্যাসের বায়ুমণ্ডলীয় ঘনত্ব উল্লেখযোগ্য বৃদ্ধি পাচ্ছে। NASA এর এই আবিষ্কারটি জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য একটি উল্লেখযোগ্য কারণ হিসাবে দেখা যেতে পারে, সেইসাথে কার্বন নিঃসরণ কমানোর জন্য জরুরি পদক্ষেপের প্রয়োজনীয়তার উপর আলোকপাত করেছে।নাসার সর্বশেষ গবেষণায় যে তথ্য উঠে এসেছে তাতে পৃথিবীর মহাসাগর এবং ভূমি-ভিত্তিক বাস্তুতন্ত্র আগের চেয়ে কম কার্বন ডাই অক্সাইড শোষণ করছে। গবেষণায় দেখা গেছে যে গত এক দশকে ভূমি এবং মহাসাগর দ্বারা শোষিত কার্বন ডাই অক্সাইডের পরিমাণ ৫% হ্রাস পেয়েছে, যার ফলে গ্যাসের বায়ুমণ্ডলীয় ঘনত্ব বৃদ্ধি পেয়েছে। .....বিস্তারিত পড়ুন

Scroll to Top