নিলামে ১৪০ কোটিতে বিক্রি টিপু সুলতানের তলোয়ার

উত্তরাপথ

ছবি সৌজন্য: টুইটার

লন্ডনের বনহ্যামস নিলাম হাউসে টিপু সুলতানের বিখ্যাত তলোয়ারটি ধারণার চেয়ে সাত গুণ বেশি দামে  বিক্রি হয়েছে যার অর্থমূল্য ১৪ মিলিয়ন পাউন্ড বা ভারতীয় মুদ্রায় ১৪০ কোটি টাকা। টিপু সুলতান ছিলেন ১৮ শতকের মাইসুরুরের প্রখ্যাত  শাসক ১ ডিসেম্বর ১৭৫১ – ৪ মে ১৭৯৯ মাইসুরের শাসক ছিলেন।সেইসাথে তিনি একজন পণ্ডিত, সৈনিক এবং কবিও ছিলেন। ব্রিটিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির ভারতীয় উপমহাদেশের দক্ষিণাঞ্চলে উত্থানের সবচেয়ে বড় বাঁধা ছিলেন টিপু সুলতান ।তার সাহসী এবং তীব্র ইংরেজ বিরোধিতার জন্য তাকে মহীশূরের বাঘ বলা হত। চতুর্থ অ্যাংলো-মহীশূর যুদ্ধে ব্রিটিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি, মারাঠা এবং হায়দ্রাবাদের নিজামের সৈন্যদের একটি সম্মিলিত বাহিনী টিপুকে পরাজিত করেছিল এবং এই যুদ্ধে টিপুর মৃত্যু হয়। এরপর ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির সেনাবাহিনী মেজর জেনারেল ডেভিড বেয়ার্ডের কাছে এই তলোয়ারটি পেশ করেছিল।  টিপু সুলতানের তরবারিটি তার কঠোরতার জন্য খুব বিখ্যাত ছিল। এটি  Wootz স্টিল দিয়ে নির্মাণ করা হয়েছিল এমনকি এটি বর্মকেও ভেদ করতে পারত । সেইসাথে তরবারিতিতে অতুলনীয় কারুকার্য রয়েছে।

ইসলামিক গ্রুপের প্রধান নিমা সাগরচি এবং বনহ্যামস এ ইন্ডিয়ান আর্ট, এক বিবৃতিতে জানান-তলোয়ারটির একটি অসাধারণ ইতিহাস রয়েছে। এটি আশ্চর্যের কিছু ছিল না যে দরদাতাদের মধ্যে  প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে। আমরা ফলাফলে আনন্দিত।

খবরটি শেয়ার করুণ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন


হিউম্যানয়েড রোবট ARTEMIS রেডি পরবর্তী RoboCup-এর জন্য

অনয় কিরণ মাহাতো: কেমন যেন লাগে রোবট এর কথা শুনলে। তারপরে আবার হিউম্যানয়েড, ভাবা যায়। হিউম্যানয়েড রোবট এক জটিল anthropomorphic কৃত্রিম মেশিন যা রোবোটিক্স, লোকোমোশন এবং কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা (আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স) এই হিউম্যানয়েড রোবর্ট এর বিকাশকে ত্বরান্বিত করেছে। ১৮১০ সালে জার্মানির ফ্রেডলিচ কাউফম্যানন প্রথম তৈরি করেছিলেন এক ট্রাম্পেট সৈনিক রোবর্ট। এরপর হুমানোইড রোবর্ট তৈরি করেন আরবের একজন মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার আল-যাজরি। এরপর লিওনার্দো দা ভিঞ্ছির আদলে জাপানের ওসাকা ইউনিভার্সিটির প্রোফেসর ঈশিগুর .....বিস্তারিত পড়ুন

১ কোটি টাকার মানহানির মামলা প্রাক্তন CJI রঞ্জন গগৈয়ের বিরুদ্ধে

উত্তরাপথ: গুয়াহাটির একটি স্থানীয় আদালতে আসাম পাবলিক ওয়ার্কসের (এপিডব্লিউ) সভাপতি অভিজিৎ শর্মার রাজ্যসভার সাংসদ এবং ভারতের প্রাক্তন প্রধান বিচারপতি (সিজেআই) রঞ্জন গগৈয়ের বিরুদ্ধে ১কোটি টাকার মানহানির মামলা করেছে।  অভিজিৎ শর্মার অভিযোগ রঞ্জন গগৈ তার আত্মজীবনী জাস্টিস ফর এ জাজে  তার বিরুদ্ধে বিভ্রান্তিকর এবং মানহানিকর বিবৃতি প্রকাশ করেছে । তাই তিনি প্রকাশক গগৈ এবং রুপা পাবলিকেশন্সের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা দায়ের করেন  এবং কোনও বই প্রকাশ, বিতরণ বা বিক্রি করা থেকে বিরত রাখার জন্য অন্তবর্তী .....বিস্তারিত পড়ুন

সম্পাদকীয়

এ যেন বহুদিন পর বিজেপির চেনা ছন্দের পতন। হিমাচল প্রদেশের পর কর্ণাটক কংগ্রেস নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে বিজেপির বিজয়রথকে থামিয়ে দিল ।২০১৮ পর থেকে লাগাতার হারতে থাকা একটি দল আবার ২০২৪ সাধারণ নির্বাচনে প্রাসঙ্গিক হয়ে গেল । ২২৪ সদস্যের কর্ণাটক বিধানসভায় সরকার গঠন করতে গেলে প্রয়োজন ১১৩টি আসন সেখানে কংগ্রেস একাই পেয়েছে ১৩৬টি আসন, বিজেপি পেয়েছে ৬৫ টি এবং প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী দেবগৌড়ার জেডিএস পেয়েছে ১৯টি এবং অন্যান্য ৪ টি আসন পেয়েছে। যা গতবারের তুলনায় বিজেপির ৩৯ টি আসন কমেছে এবং কংগ্রেসের বেড়েছে ৫৭টি আসন এবং জেডিএসের কমেছে ১৮ টি আসন।   কর্ণাটকে কংগ্রেসের এই সাফল্য কি রাজ্যে কংগ্রেসের শক্তিশালী সংগঠনের ফল না কি কর্ণাটকের আগের ক্ষমতাশীল বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে মানুষের ক্ষোভ । কর্ণাটকে কংগ্রেসে অনেক বড় নেতা রয়েছে।  প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি শিবকুমার দক্ষ সংগঠক। আগের মুখ্যমন্ত্রী সিদ্ধারামাইয়ার ব্যাপক জনভিত্তি রয়েছে।  ভোটের আগে বিজেপির প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী জগদীশ শেট্টার এবং উপমুখ্যমন্ত্রী সাভাড়ি কংগ্রেসে যোগ দিয়ে নির্বাচনে লড়েছেন। অন্যদিকে বিজেপির প্রচারের সবচেয়ে বড় মুখ ছিলেন প্রধানমন্ত্রী মোদী। বিজেপির প্রচারে সব নেতারাই মোদীর নাম করেই ভোট চেয়েছিলেন কিন্তু শেষ রক্ষা হল না ।কর্ণাটকের বিজেপি সরকারের ব্যাপক দুর্নীতি সেই সাথে কংগ্রেসের লাগাতার প্রচার যা প্রতিষ্ঠান বিরোধিতার সুরকে আরও তীব্র করেছে। তাই শুধুমাত্র মোদী ম্যাজিকের উপর ভর করে নির্বাচন জেতা যে  আর বিজেপির পক্ষে সম্ভব নয় কর্ণাটকের জনগণ চোখে হাত দিয়ে তাই দেখিয়ে দিল। .....বিস্তারিত পড়ুন

Scroll to Top