মোদীময় New Parliament Building -এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান

উত্তরাপথ

ছবি- টুইটার

নতুন সংসদ ভবনের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।  নতুন সংসদ ভবনের পুজোয় বসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী মোদী ও লোকসভার স্পিকার ওম বিড়লা।  রবিবার, একটি বড় ধর্মীয় আচারের পরে, সাধুরা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কাছে সেঙ্গোল হস্তান্তর করেছেন, যা ভারতের নতুন সংসদ ভবনে স্থাপন করা হয়েছে। দেশের ১৯টি বিরোধী দল নতুন সংসদ ভবনের বিরোধিতা করে এবং এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান বয়কট করে।  প্রধানমন্ত্রী মোদী বলেছেন যে ভারতীয় সংসদের নতুন ভবন আমাদের সকলকে গর্ব ও আশায় ভরিয়ে দেবে।  তিনি বলেন, “আমার পূর্ণ বিশ্বাস আছে যে, এই ঐশ্বরিক ও বিশাল ভবন জনগণের ক্ষমতায়নের পাশাপাশি জাতির সমৃদ্ধি ও শক্তিতে নতুন গতি ও শক্তি যোগাবে।”

নতুন সংসদ ভবনে ঐতিহাসিক সাঙ্গোল স্থাপন করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।  প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী তামিলনাড়ুর সাধুদের মন্ত্রোচ্চারণের পর লোকসভায় স্পিকারের চেয়ারের কাছে সাঙ্গোল স্থাপন করেন।  উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ নতুন সংসদ ভবনের উদ্বোধনকে ঐতিহাসিক মুহূর্ত বলে বর্ণনা করে দেশবাসীকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।

নতুন সংসদ ভবন সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ কিছু তত্ত্ব –

 ১। নতুন সংসদ ভবনটি ত্রিভুজাকার।  যে জমিতে নতুন সংসদ ভবন নির্মিত হয়েছে সেটি ত্রিভুজাকার।  স্থপতির মতে ত্রিভুজাকার আকৃতি বিভিন্ন ধর্মে পবিত্র জ্যামিতির একটি চিহ্ন।.

২। নতুন সংসদ ভবনের তিনতলা এবং আয়তন ৬৪,৫০০ বর্গমিটার।  নতুন সংসদে লোকসভায় 888টি আসন থাকবে।  কেন্দ্রীয় হলের অনুপস্থিতিতে, লোকসভা উভয় কক্ষের যৌথ বৈঠকের জন্য ব্যবহার করা যেতে পারে।  একই সঙ্গে সংসদ ভবনে বসতে পারবেন ১২৭২ জন।

৩। সংসদের নতুন ভবনে লোকসভা কক্ষ তৈরি হয়েছে ময়ূরের থিমে।  এতে দেয়াল ও ছাদে খোদাই করা ময়ূরের পালকের নকশা রয়েছে।  রাজ্যসভার কক্ষটি থিম হিসাবে পদ্ম সহ একটি লাল গালিচা দিয়ে সজ্জিত।

৪। লোকসভা ও রাজ্যসভায় দুইজন সাংসদ এক মঞ্চে বসবেন এবং প্রত্যেক সাংসদের ডেস্কে একটি টাচস্ক্রিন থাকবে।  রাজ্যসভার চেম্বারে ৩৮৪ জন সদস্য …

৫। পুরনো সংসদে তিনটি কমিটি কক্ষ থাকলেও নতুন সংসদে নতুন কমিটি কক্ষ রয়েছে ৬টি।  মন্ত্রী পরিষদের কার্যালয় হিসেবে ৯২টি কক্ষ করা হয়েছে।

৬। নতুন সংসদ নির্মাণে সারাদেশ থেকে নির্মাণসামগ্রী আনা হয়েছে।  এর মধ্যে রয়েছে ধোলপুরের সরমাথুয়া থেকে প্রাপ্ত বেলেপাথর, রাজস্থানের জয়সলমেরের লাখা গ্রামের গ্রানাইট পাথর ইত্যাদি।  আসবাবপত্রে ব্যবহৃত কাঠ নাগপুর থেকে এসেছে এবং কাঠের স্থাপত্যটি মুম্বাইয়ের একজন কারিগর দ্বারা ডিজাইন করা হয়েছে।  উত্তরপ্রদেশের ভাদোহির তাঁতিরা নতুন সংসদের জন্য হাতে বোনা কার্পেট তৈরি করেছেন।

৭। নতুন সংসদ ভবন জাতীয় প্রতীকে পরিপূর্ণ।  এতে অশোকের সিংহও রয়েছে যার ওজন ৯৫ শত কেজি এবং উচ্চতা ৬.৫ মিটার।  অশোক চক্র এবং সত্যমেব জয়তে শব্দগুলি নতুন সংসদের প্রবেশপথে পাথরে লেখা রয়েছে।

খবরটি শেয়ার করুণ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন


ছৌশিল্পী পদ্মশ্রী নেপাল মাহতো ও বিশ্ব মঞ্চে ভারতের লোকনৃত্য

গার্গী আগরওয়ালা মাহাতোঃ আমাদের চারিদিকে বিশ্ব দ্রুত বিকশিত হচ্ছে,পরিবর্তিত হচ্ছে শিল্প সাধনার প্রকৃতি। এই পরিবর্তিত শিল্প সাধনার যুগে আমাদের সেই সমস্ত ব্যক্তিদের স্বীকৃতি দেওয়া এবং সম্মান করা অপরিহার্য যারা সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য সংরক্ষণ ও প্রচারে তাদের জীবন উৎসর্গ করেছেন। এমনই একজন উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিত্ব হলেন ছৌশিল্পী পদ্মশ্রী নেপাল মাহতো। নেপাল মাহাতো, যার ছৌনৃত্যের জগতে  দেশে ও বিদেশে অতুলনীয় অবদান তাকে ভারতের চতুর্থ সর্বোচ্চ নাগরিক সম্মান ‘পদ্মশ্রী´এনে দিয়েছে। নেপাল মাহতোর জন্ম ১৭ জুন ১৯৫৪ সালে পশ্চিমবঙ্গের পুরুলিয়া জেলার বরাবাজার থানার আদাবনা নামে একটি ছোট গ্রামে। তার পিতা স্বর্গীয় নগেন্দ্রনাথ মাহাতো ও মাতা তুষ্ট মাহাতো। .....বিস্তারিত পড়ুন

সম্পাদকীয়

বিশ্ব উস্নায়ন এবং তাকে কেন্দ্র করে জলবায়ু পরিবর্তন একবিংশ শতাব্দীর অন্যতম বড় চ্যালেঞ্জ। এটি  ধীরে ধীরে একাধিক উপায়ে মানব সমাজকে ব্যাপকভাবে প্রভাবিত করছে এবং অদূর ভবিষ্যতে এটি প্রায় অনিয়ন্ত্রিত হয়ে যাবে বলে মনে করা হচ্ছে।ইতিমধ্যে এটি আমাদের পরিবেশ, অর্থনীতি এবং আমাদের জীবন যাত্রার উপর ব্যাপক ভাবে প্রভাব দেখাতে শুরু করেছে ।সদ্য হয়ে যাওয়া হিমাচল প্রদেশের বন্যা আমাদের সামনে বেশ কিছু প্রশ্ন তুলে দিল । এবছর হিমাচল প্রদেশে বর্ষাকালে রেকর্ড পরিমাণে বৃষ্টিপাত হয়েছে ,যা বিগত কয়েক বছরের তুলনায় বহু গুণ বেশী।  ভারতের আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, হিমাচল প্রদেশে ১ জুলাই থেকে ১২ জুলাই পর্যন্ত গড় বৃষ্টিপাত হয়েছে ২৪৯.৬ মিমি যা স্বাভাবিক গড় ৭৬.৬ মিমি থেকে প্রায় ৭০% বেশী .....বিস্তারিত পড়ুন

বিজ্ঞানীদের মতে, বিশ্ব উষ্ণায়নের প্রভাবে কিছু মাছের প্রজাতি সঙ্কুচিত হচ্ছে

উত্তরাপথঃ আমাদের গ্রহে বিশ্ব উষ্ণায়নের প্রভাব ক্রমশ স্পষ্ট হয়ে উঠছে, ক্রমবর্ধমান তাপমাত্রা আমাদের পরিবেশের বিভিন্ন দিককে প্রভাবিত করছে।সম্প্রতি বিজ্ঞানীরা আবিষ্কার করেছেন যে কিছু মাছের প্রজাতি সঙ্কুচিত হচ্ছে এর প্রভাবে। বিজ্ঞানীদের করা এই গবেষণাটি আমাদের মহাসাগরের উষ্ণায়নের প্রত্যক্ষ পরিণতি বলে মনে করা হচ্ছে। গবেষকদের একটি আন্তর্জাতিক দল দ্বারা পরিচালিা সাম্প্রতিক এই গবেষণায় বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলে মাছের জনসংখ্যা পরীক্ষা করা হয়েছে। বিজ্ঞানীরা দেখেছেন যে কড এবং হ্যাডকের মতো বাণিজ্যিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ সহ অসংখ্য প্রজাতির আকার গত কয়েক দশক ধরে হ্রাস পাচ্ছে। আকারের এই হ্রাস সামুদ্রিক বাস্তুতন্ত্র এবং মৎস শিল্প উভয় ক্ষেত্রে ভবিষ্যতে উদ্বেগের কারণ হতে পারে। .....বিস্তারিত পড়ুন

Scroll to Top