শিশুদের বন্ধুকবাজের হাত থেকে বাঁচাতেই হিরো ডিএসপি

উত্তরাপথ

সৌজন্যে: মালদা জেলা পুলিশ

পুরাতন মালদহ: স্কুলের কচিকাঁচা পড়ুয়াদের বন্দুকের নলের সামনে দেখে নিজেকে আর ঠিক রাখতে পারিনি। তখন নিজের জীবনের থেকেও ছোট শিশুগুলিকে বাঁচানোর তাগিদ তার  কাছে বেশি গুরুত্ব পেয়েছিল। সেই কারণে বন্দুকবাজের উপর অতর্কিতে ঝাঁপিয়ে পড়তে দ্বিতীয়বার ভাবেননি ।  বুধবার মালদহ থানার মুচিয়া হাইস্কুলে ছাত্রছাত্রীদের পণবন্দি করে রাখা বন্দুকবাজকে বাগে আনার পর এক নিঃশ্বাসে কথাগুলি বলেছিলেন  রাতারাতি ‘হিরো’ হয়ে যাওয়া মালদহের ডিএসপি  আজহারউদ্দিন খান। এদিন স্বয়ংক্রিয় আগ্নেয়াস্ত্র সহ ওই বন্দুকবাজকে দ্রুত কব্জা করতে না পারলে বড় অঘটন ঘটে যেতে পারত বলে অনেকেই আশঙ্কা করছেন। তাই সাহসিকতার জন্য ডিএসপিকে সকলে একবাক্যে কুর্নিশ জানাচ্ছেন।

প্রসঙ্গত, দুপুর সাড়ে ১২টা নাগাদ মুচিয়ার ওই স্কুলের ক্লাসরুমে বন্দুকবাজ দেবকুমার বল্লভের দাপিয়ে বেড়ানোর খবর পেয়ে ডিএসপি ঘটনাস্থলে হাজির হন। অপারেশনে নামার আগে তিনি পুলিসের ইউনিফর্ম ছেড়ে সাধারণ টি শার্ট পরে নেন। তারপর অভিভাবক সেজে বন্দুকবাজের সঙ্গে কথাবার্তা বলতে শুরু করেন। বন্দুকবাজের অন্যমনস্কতার সুযোগ নিয়ে তাঁর উপর কার্যত বাঘের মতো ঝাঁপিয়ে পড়েন কলকাতার পার্ক সার্কাসের ছেলে আজহারউদ্দিন। ক্লাসরুমের এক কোণে বন্দুকবাজকে তিনি ঠেসে ধরেন। তখন বাকি পুলিস কর্মীরা গিয়ে হামলাকারীকে নিরস্ত্র করেন। শেষে বুদ্ধি করে বন্দুকবাজকে জনরোষের কবল থেকে বাঁচিয়ে বের করে নিয়ে যান।

খবরটি শেয়ার করুণ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন


পশ্চিমবঙ্গে 'দ্য কেরালা স্টোরি'সিনেমাটির ভাগ্য সুপ্রিম কোর্টের হাতে

উত্তরাপথ: 'দ্য কেরালা স্টোরি' সিনেমাটি পশ্চিমবঙ্গে নিষিদ্ধ হওয়ায় সিনেমাটির সিনেমার নির্মাতারা বাংলার নিষেধাজ্ঞাকে সুপ্রিম কোর্টে চ্যালেঞ্জ করেছিলেন। তাদের দাবী ছিল নিষেধাজ্ঞার ফলে প্রতিদিন তাদের আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হতে হচ্ছে । নির্মাতাদের আবেদনের ভিত্তিতে সুপ্রিম কোর্ট আজ 'দ্য কেরালা স্টোরি' সিনেমাটি পশ্চিমবঙ্গে নিষিদ্ধ হওয়ার পিছনে যুক্তি জানতে চেয়েছে । প্রধান বিচারপতির একটি বেঞ্চ পর্যবেক্ষণ করেছে, যখন এটি কোনও সমস্যা ছাড়াই সারা দেশে চলছে।পশ্চিমবঙ্গের সিনেমাটি কেন নিষিদ্ধ করা উচিত? এটি একই রকম জনসংখ্যার সংমিশ্রণ রয়েছে এম .....বিস্তারিত পড়ুন

ইঞ্জিনিয়ারড ব্যাকটেরিয়া জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে লড়াই করার ক্ষমতা রাখে

উত্তরাপথ: লরেন্স বার্কলে ন্যাশনাল ল্যাবরেটরি এবং ইউসি বার্কলে এর সহযোগিতামূলক গবেষণায় গবেষকরা একটি অভিনব ব্যাকটেরিয়া ইঞ্জিনিয়ারড করেছেন যা জ্বালানি, ওষুধ এবং রাসায়নিক উত্পাদনের সময় উত্পন্ন গ্রিনহাউস গ্যাসের নির্গমনকে উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস করতে ডিকার্বনাইজশন এর মাধ্যমে। সম্প্রতি Nature জার্নালে প্রকাশিত হয়েছে এই আবিষ্কারটি । আর এটি "Carbene Transfer Chemistry in Biosynthesis" নামে পরিচিত । একটি অভিনব প্রতিক্রিয়ার সাথে প্রাকৃতিক এনজাইমেটিক বিক্রিয়াকে সংহত করতে ব্যাকটেরিয়াকে কাজে লাগায়। আর যা সাধারণত জীবাশ্ম .....বিস্তারিত পড়ুন

Scroll to Top